The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মৃত্যু পথযাত্রী ক্যানসারে আক্রান্ত মা রেখে যাচ্ছেন সন্তানের জন্য ভিন্ন রকম ভালোবাসা!

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ ছেলে সন্তান জন্মদেয়ার ছয় মাস পরেই Rowena জানতে পারেন তার শরীরে বাসা বেঁধেছে দুরারোগ্য ক্যানসার। তিনি জানেন তিনি মারা যাবেন ছোট সন্তানকে পৃথিবীতে একা রেখেই। তাই তিনি মারা যাওয়ার আগে সন্তানের জন্য রেখে যাচ্ছেন ভালোবাসার কিছু নিদর্শন।


article-2540162-1AB0E68E00000578-394_634x470

Rowena তার সন্তান Freddie এর জন্মদেয়ার পরেই পেটে বিশেষ ব্যথা অনুভব করতে থাকেন। প্রথম দিকে এই ব্যথা সাধারণ ভাবলেও পরে অসহ্য হয়ে উঠলে তিনি ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করেন। Freddie এর বয়স যখন কেবল ৬ মাস তখনই Rowena শরীরে ধরা পরে নিরাময় অযোগ্য bowel ক্যানসার।

ডাক্তাররা Rowena কে জানিয়ে দেন বেশ কিছু রোগ নির্ণয় পরীক্ষা করতে হবে তাকে, তবে তার বাঁচার আশা খুব একটা নেই। Rowena সাথে সাথে বুঝতে পারেন এই সুন্দর পৃথিবী এবং তার নিষ্পাপ ছোট শিশু সন্তানকে ছেড়ে তাকে অনিচ্ছা শর্তেও যেতে হচ্ছে অজানার দেশে। তিনি নিয়তি মেনে নিলেন এবং তার না থাকা সময়টিতে তার সন্তান যেন তাকে মনে রাখে এবং সন্তানের বিশেষ সকল দিনের জন্য নিজের শুভেচ্ছা বার্তা রেখে যাবেন বলে ঠিক করেন এই মা!

12859

মা জানেন তিনি খুব শিগ্রই তার প্রিয় সন্তানকে ছেড়ে না ফেরার দেশে পাড়ি জমাবেন, তাও তিনি ভেঙে পড়েননি। নিজের মৃত্যু নিশ্চিত জানেন তাও মৃত্যুর পর যেন সন্তান এবং স্বামী তার অভাব না অনুভব করে সে জন্য যতদূর সম্ভব তাদের গুরুত্বপূর্ণ দিন সমূহের কাজ গুলো এবং শুভেচ্ছা বার্তা লিখে রেখে যাচ্ছেন Rowena!

article-2540162-1AB0E4D500000578-925_634x432

ডাক্তাররা Rowena শরীর থেকে ভয়ংকর ব্যাধি ক্যানসার অপসারণ করতে অপারেশন করলেও তারা বিফল হন।

Rowena

Rowena নিজের মৃত্যুর বিষয়ে বলেন, আমি তো জানি আমি খুব তাড়াতাড়ি মারা যাচ্ছি, তবে আমি আমার স্বামী এবং সন্তানকে অনেক ভালোবাসি। আমার স্বামী এবং সন্তান হয়তো আমার মৃত্যুর পর স্বাভাবিক জীবন যাপন করবে কিন্তু আমি চাই তারা মনে রাখুক আমার সাথে তাদের কাটানো সময় গুলো কতোটা মধুর ছিল।”

তিনি আরও বলেন, “প্রভু আমার মৃত্যু এভাবেই লিখে রেখেছে, তিনি আমাকে সময় দিয়েছে মরার আগে এবং আমি সৌভাগ্যবান এই দিক থেকে যে আমি মরার আগে জানতে পারছি আমি কবে মারা যাচ্ছি। আমি যদি সড়ক দুর্ঘটনায় কিংবা অন্য কোন তাৎক্ষণিক কারণে মারা যেতাম হয়তো কাউকে কিছু বলে যাওয়ারও সময় পেতাম না।”

article-2540162-1AB1CAAC00000578-828_306x423_Fotor_Collage

এদিকে Rowena নিজের মৃত্যুর আগে তার এক মাত্র সন্তান নিষ্পাপ ছোট শিশু Freddie এর সাথে যতটুকু পারছেন সময় ব্যয় করছেন। তিনি Freddie এর ২১ বছর বয়স হওয়া পর্যন্ত সকল জন্মদিনের শুভেচ্ছা এবং সাথে উপহার প্যাকেট করে রেখে যাচ্ছেন। Freddie হয়তো ধীরে ধীরে বড় হয়ে উঠবে কিন্তু মায়ের অনুপস্থিতিতেও তার বিশেষ দিনে মায়ের বিশেষ ভালবাসায় লিখে যাওয়া শুভকামনা সমূহ সে পাবে।

মা হচ্ছেন একজন সন্তানের জন্য মমতা-নিরাপত্তা-অস্তিত্ব, নিশ্চয়তা ও আশ্রয় স্থল। সন্তানের প্রতি মায়ের ভালোবাসা অকৃত্রিম। পৃথিবীর সকল মায়ের ভালোবাসা সন্তানের জন্য অকৃত্রিম। যারা মায়ের মূল্য বুঝেনা বা দিতে জানেনা তারা মা হারালেই কেবল বুঝতে পারে আসলে মা কতোটা মূল্যবান ছিল তার জন্য। অতএব আমাদের সবার মায়ের যত্ন নেয়া উচিৎ মাকে দেয়া উচিৎ তার যোগ্য সম্মান। Rowena পৃথিবীর সকল মা দের মাঝে একজন হলে সন্তানের প্রতি তার মায়া ভালোবাসা আর সকল মায়ের মতই। আমাদের সকলের মাও আমাদের ঠিক Rowena এর মতই ভালোবাসেন। ভয়ংকর ক্যানসারে Rowena এই মৃত্যুর দিকে এগিয়ে যাওয়া হয়তো ছোট Freddie এখন বুঝতে পারছেনা কিন্তু যখন Rowena থাকবেনা Freddie এর চারদিকে নেমে আসবে শূন্যতা, Freddie অপেক্ষায় থাকবে তাকে মা এসে খাওয়াবে, সময় মত গোসল করাবে, বুকে নিয়ে আদর করে ঘুম পারাবে। Freddie এর এই অপেক্ষা থাকবে অনন্ত দিনের কারণ মা Rowena যে তখন চলে যাবে না ফেরার দেশে!

মায়ের ভালোবাসা মহান এক ভালোবাসা! একজন মা পাঁচ জন সন্তান কে দেখে রাখতে পারে কিন্তু পাঁচ জন সন্তান মিলেও অনেক সময় একজন মা কে দেখে রাখতে পারেনা! এই ছোট উদাহারনেই বুঝে নিন মা আমাদের কতোটা মমতায় রাখেন।

সূত্রঃ Viralnova

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...