The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এবার বিশ্বকাপে ব্রাজিল দলের জার্সির গায়ে লিখা থাকবে বাংলাদেশের নাম

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ সামনে আসছে ব্রাজিল বিশ্বকাপ। এবার বিশ্বকাপে ব্রাজিল ভক্তদের জন্য রয়েছে আরো একটি সুখবর। আর তা হলো ব্রাজিল দলের জার্সিতে থাকবে বাংলাদেশের নাম। এবার বিশ্বকাপের ব্রাজিল দলের জার্সির ট্যাগে লেখা থাকবে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’।


brazil-2014-world-cup-team

এই বিশ্বকাপের অনেক দেশেরই জার্সি তৈরির কাজ পায় বাংলাদেশের অনেক প্রতিষ্ঠান। তারমধ্যে স্বাগতিক এই দলের জার্সি তৈরির দায়িত্বও পায় বাংলাদেশের একটি পোশাক কারখানা। কিন্তু এরিমধ্যে ঘটে যায় রানা প্লাজা ধসের ঘটনা। যা সারাবিশ্বের মানুষের মনে নাড়া দেয়। এই ঘটনার কথা ব্রাজিলের ফুটবল ফেডারেশন সিবিএফকে জানানো হয়। সবকিছু বিবেচনা করে তারা বাংলাদেশের পোশাকশ্রমিকদের অসামান্য কাজের প্রতি সম্মান জানিয়ে ফুটবল দলের জার্সির ট্যাগে ‘মেড ইন বাংলাদেশ’ লিখার সিদ্ধান্ত নেন। ফলে এবারের বিশ্বকাপের সাথে জড়িয়ে থাকবে বাংলাদেশের নাম। এটি বাংলাদেশের জন্য এক অনন্য স্বীকৃতি। সে যাই হোক বিশ্বব্যাপী বাংলাদেশের এই প্রচার পোশাকশিল্পে বাংলাদেশের নাম আরো ছড়িয়ে পড়বে বলে আশা করেন পোশাকশিল্পের সাথে জড়িতরা।

FifthEstate20131011

বাংলাদেশ নিটওয়্যার ম্যানুফ্যাকচার এসোসিয়েশন বা বিকেএমএ বলেন, পোশাক শিল্পের জন্য এটি একটি বড় অর্জন। পোশাকশিল্পের সাথে জড়িতরা বলেন, এই বছর বাংলাদেশ বিশ্বকাপ উপলক্ষে অন্তত ১৫ আইটেমের প্রায় ১ কোটির উপর পোশাক সরবরাহ করে। তারমধ্যে বেশিরভাগই ছিল নিট বা গেঞ্জি জাতীয়। বিশ্বকাপ উপলক্ষে নিট পণ্যের রপ্তানি বেড়েছে পূর্বের তুলনায় প্রায় ৩৫ শতাংশ। বিকেএমই এই সম্পর্কে বলেন, মোট রপ্তানি আয়ের হিসেব দিতে আরো কিছুদিন সময় লাগবে কেননা এখনো এই উপলক্ষে পোশাক রপ্তানি হচ্ছে। বিকেএমই এই বিষয়ে আরো বলেন, উন্নত বিশ্বের অনেক দেশেই পছন্দের দলের জার্সি কিংবা টি-শার্ট পড়াটা একটি ট্রেন্ডে পরিণত হয়েছে ফলে সারাবছরই বাংলাদেশ থেকে প্রচুর পরিমাণ স্পোর্টসওয়্যার রপ্তানি হয়ে থাকে। গত কয়েক বছরে সারাবিশ্বে স্পোর্টসওয়্যারের চাহিদা বেড়েছে এবং এর বাজার ক্রমবর্ধমান। প্রতিবছর বাংলাদেশ থেকে প্রায় ১০০ কোটি ডলারের সম-মূল্যমানের স্পোর্টসওয়্যার রপ্তানি হয়ে থাকে।

রপ্তানিকারক সূত্রে আরো জানা যায় যে, নাইকি, অ্যাডিডাস, পুমা সারাবিশ্বের বিভিন্ন দলের খেলোয়াড়দের জার্সি সরবরাহ করে থাকে। আর এই জার্সির বেশিরভাগই তৈরি হয় আমাদের দেশের পোশাক কারখানায় খেটে খাওয়া শ্রমিকদের হাতে। খেলোয়াড়রা মূল খেলার জার্সি ছাড়াও অনুশীলনে আরো ১২ রকমের পোশাক পরিধান করে থাকেন। আর এই পোশাকগুলোর বেশিরভাগই তৈরি হয় বাংলাদেশে। ব্রাজিলের ফুটবল ফেডারেশনের এই স্বীকৃতির মাধ্যমে আমাদের দেশের পোশাক শ্রমিকদের কাজের প্রতি আন্তর্জাতিক একটি সম্মান প্রদর্শিত হলো।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...