বড়ই অমানবিক কাজ ॥ পাবনায় কিশোরের কব্জি কেটে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা

পাবনা প্রতিনিধি ॥ মানুষ কতটা নির্দয় ও পাষাণ হতে পারে তা চোখে না দেখলে বোঝা যাবে না। সমপ্রতি শহরে প্রকাশ্যে এক কিশোরের হাতের কব্জি কেটে নিয়েছে সন্ত্রাসীরা। অথচ এ ঘটনার ২৪ ঘণ্টা পার হলেও পুলিশ ঘটনার সঙ্গে জড়িত কোন সন্ত্রাসীকে গ্রেফতার করতে পারেনি। এতে হাতের কব্জি হারানো যুবকের পরিবারে চরম হতাশা এবং ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

জানা গেছে, ২৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরে একদল চিহ্নিত সন্ত্রাসী পাবনা শহরের শালগাড়িয়া গোলাপবাগ মহল্লায় দরিদ্র নওশাদের ছেলে হেলাল উদ্দিনকে ডেকে নিয়ে তার ডান হাতের কব্জি কেটে নিয়ে যায়। পাবনা থানার ওসি এনায়েত উদ্দিন পিপিএম জানান, ২৩ ফেব্রুয়ারি দুপুরের দিকে হেলাল পার্শ্ববর্তী সিঙ্গা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বার্ষিক ক্রীড়া অনুষ্ঠান দেখছিল। এ সময় নাইম নামের এক যুবক তাকে সেখান থেকে গোলাপবাগ এলাকায় ডেকে নিয়ে যায়। এরপর প্রান্তর নেতৃত্বে ৫ বন্ধু মিলে হেলালের ডান হাতের কব্জি কেটে ফেলে। এরপর সন্ত্রাসীরা কর্তিত কব্জিটি নিয়ে চলে যায়। পরে আশংকাজনক অবস্থায় হেলালকে উদ্ধার করে পাবনা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদিকে কী কারণে এ ঘটনা ঘটেছে সে সম্পর্কে পুলিশ এখনও স্পষ্ট ধারণা দিতে পারছে না।

একটি সূত্র জানায়, ৫-৭ দিন আগে ক্রিকেট খেলা নিয়ে হেলালের সঙ্গে ওই যুবকদের ঝগড়া হয়েছিল। এরই জের ধরে তারা এ ঘটনা ঘটাতে পারে। আবার এলাকার আরও একটি সূত্র জানায়, যুবকরা এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী। হেলাল স্থানীয় শামলা প্লাস্টিক কারখানায় শ্রমিকের কাজ করত। কয়েক দিন আগে সন্ত্রাসীরা ওই কারখানায় চাঁদা চাইতে গেলে হেলাল তাদের মারধর করে তাড়িয়ে দেয়। তবে পুলিশ জানায়, শুধু এ কারণেই নয়, অন্য কোন বিষয় এর সঙ্গে যুক্ত থাকতে পারে। পুলিশ কর্তিত হাতের কব্জিটি উদ্ধার এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এদিকে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত কেও গ্রেফতার হয়নি।

Advertisements
Loading...