The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

ফিলিস্তিন ইস্যুতে আরব নেতাদের নীরবতার রহস্য

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ ফিলিস্তিনে ইসরায়েলি আগ্রাসন চলছেই, কয়েক দশকে ফিলিস্তিনি ভূখণ্ডে ইসরায়েলি আগ্রাসনে বিলীন হতে চলেছে ফিলিস্তিন। ইসরায়েলি আগ্রাসন মরছে অসংখ্য মুসলিম শিশু এবং সাধারণ মানুষ। এই বিষয়ে আরব লিগ কিংবা আরব দেশ সমূহকে বর্তমানে অনেক নীরব থাকতে দেখা যাচ্ছে, আজ আমরা খুঁজার চেষ্টা করবো আরব নেতারা ফিলিস্তিন ইস্যুতে কেনো নীরব?


E58586354

আরব বিশ্বে ইহুদিবাদী-মার্কিন ষড়যন্ত্র বাস্তবায়ন করা হচ্ছে এবং এ ষড়যন্ত্রের আওতায় ‘আরব বসন্ত’ বা আরব গণজাগরণকে আরবদের স্বার্থ রক্ষার পরিবর্তে ইসরাইলের নিরাপত্তা রক্ষার বসন্তে রূপান্তরিত করার চেষ্টা চলছে। একই সাথে ফিলিস্তিন নিয়ে আরব নেতাদের বর্তমানে তেমন কোন ভ্রূক্ষেপ নেই কারণ ফিলিস্তিনিদের নিয়ে কথা বললে আরব নেতাদের ব্যক্তিগত কোন লাভ নেই। এমন চিন্তা আজ মুসলিম বিশ্বের কোটি কোটি জনগণের।

এদিকে ‘আরব বসন্ত’ কিংবা ফিলিস্তিনি আগ্রাসন সব কিছুই মার্কিন সরকারের নিয়ন্ত্রণেই হচ্ছে বলে অনেকেই মনে করছেন। ‘আরব বসন্ত’ বসন্তের ক্ষেত্রে যখন যে দেশে বিক্ষব হচ্ছে আরব লিগে থাকা এক এক দেশ নিজেদের ব্যক্তিগত স্বার্থের উপর নির্ভর করেই সেই বিক্ষবে মদত দিয়ে যাচ্ছে।

এবার আসি ফিলিস্তিন ইস্যুতে। ইসরাইলকে রক্ষা ছাড়াও মুসলমানদের প্রথম কেবলা ‘আল-আকসা’ মসজিদের ইহুদিকরণের মার্কিন লক্ষ্যও এর মাধ্যমে বাস্তবায়ন করা হচ্ছে ফিলিস্তিনে আগ্রাসনের আড়ালেই। আর মার্কিন পররাষ্ট্র নীতির এই লক্ষ্য বাস্তবায়নের জন্যই কথিত আরব বসন্তের প্রতি অভূতপূর্ব সমর্থন দিচ্ছে ওয়াশিংটন। একই সাথে মার্কিন সরকারের সাথে এবং পশ্চিমা সরকারের সাথে নিজেদের সু-সম্পর্ক রক্ষায় আরব নেতৃত্ব আরাল থেকেই অট্ট হাসি দিয়ে যাচ্ছে এবং নির্লজ্জ নীরব সমর্থন দিচ্ছে ইহুদী ভিন্ন ধর্মীদের।

whitewashing-war-crimes1

যে সত্যটি সবারই জানা উচিত স্পষ্টভাবে তা হল, ফিলিস্তিনি প্রতিরোধ আন্দোলনের প্রধান মদদদাতা ও অস্ত্র সরবরাহকারী এবং পশ্চিমা সরকারগুলোকে চ্যালেঞ্জকারী শক্তিগুলো যারা ফিলিস্তিনের ইসরাইল-বিরোধী দ্বিতীয় ইন্তিফাদা বা গণজাগরণে সহায়তা যুগিয়েছে তারা হল: ইসলামী প্রজাতন্ত্র ইরান, সিরিয়ান আরব প্রজাতন্ত্র (আসাদ সরকার) ও লেবাননের হিজবুল্লাহ। এই তিন সহায়তাকারী ফিলিস্তিন প্রতিরোধ আন্দোলনের শক্তি জোরদারের জন্য সব ধরনের প্রচেষ্টা চালিয়েছে, তবে সম্প্রতি ইরানের ক্ষমতা বদলের সাথে সাথে কিছুটা রূপ বদলেছে।

এদিকে ফিলিস্তিনে অন্যায় ভাবে সাবেক ভাসমান ইহুদীদের আগ্রাসনে বিশ্ব বিবেক যেন নীরব! এরা হয় চোখ বুঝে আছে নাহয় অন্ধ! কিন্তু অন্য ক্ষেত্রে যারা সরব থাকে তারা এই ক্ষেত্রে অন্ধ হতে পারেনা, ফলে এরা চোখ বুঝেই আছে। জাতিসংঘ দায়সারা বিবৃতি দিয়ে দায়িত্ব এড়াতে চাচ্ছে। নিরব সৌদি আরবসহ গোটা আরব ভূমি।ইহুদিবাদী ইসরাইল ফিলিস্তিনে নির্বিচারে মুসলমানদের হত্যা করছে; অথচ কোন মুসলিম দেশই এর আদৌ প্রতিবাদ করছে না।
হাদীস শরীফ-এ ইরশাদ হয়েছে, সব মুসলমান মিলে একটা দেহের ন্যায়, দেহের কোন এক স্থানে আঘাত পেলে তা সারা দেহেই সঞ্চালিত হয় তাই ইসলাম ও শরীয়তের দৃষ্টিতে ফিলিস্তিনে মুসলমানদের উপর নির্যাতন বন্ধে পৃথিবীর ২৫০ কোটিরও বেশি মুসলমানের প্রত্যেকের প্রতিবাদ করা একান্ত প্রয়োজন।

প্রায় ৭০ লাখের মত ফিলিস্তিনি পার্শ্ববর্তী আরবদেশগুলোতে সেই ৬৬ বছর ধরে শরণার্থী জীবন যাপন করছে প্রজন্ম থেকে প্রজন্মান্তরে। ইরান-সিরিয়া বাদে আরবরা যেমন ফিলিস্তিনিদের ভাগ্য বিপর্যয়ে ঘুমে আচ্ছন্ন, শুধু আচ্ছন্ন নয় আরব রাজা বাদশাহরা ইসরাইলের সাথে সম্পর্ক উন্নয়নে ব্যস্ত কিভাবে ক্ষমতায় দীর্ঘদিন টিকে থাকা যায় তেমনি বিশ্ব বিবেক এখানে চুপ!

bodies

একজন মুসলিম কিভাবে এরেকজন মুসিমের বিপদে হত্যা দেখেও নীরব থাকতে পারে কেবল ইহুদিদের সাথে নিজেদের সম্পর্ক ভালো রাখার তাদিগে? এদের বলা হয় মুসলিম বিশ্ব নেতা, বলা হয় ইসলামের পবিত্র ভূমির নেতা, রাজা! ধিক এসব বিকৃত মানুষদের, এরা প্রকৃত মুসলিম হলে কখনোই একজন মুসলিম ভাই এবং বনের বুকে গুলি চালাতে নীরব থেকে হত্যাকারীর নিজেদের স্বার্থের সম্পর্ক বজায় রাখতনা। আজ হাজার মেইল দূরে থেকেও বাংলাদেশের কোটি কোটি মানুষের অন্তর ফেটে যাচ্ছে ফিলিস্তিনি অসহায় মুসলিমদের কথা ভেবে কিছু করতে অনেকেই সাহায্যের চেস্টাও করছেন, কিন্তু কি করছে বিশ্ব মুসলিম নেতারা? কি করছে সেখানকার জনগণ? তারা দবি করলে নিশ্চয় তাদের সরকার ফিলিস্তিনিদের পাশে দাঁড়াতই।

“মহান আল্লাহ পাক ইরশাদ করেন, তোমরা সম্মিলিতভাবে আল্লাহ পাক-এর রজ্জুকে আঁঁকড়ে ধর; পরস্পর বিচ্ছিন্ন হয়ো না।” হে মুসলিম সমাজ নিজেদের শির উন্নত করে বেঁচে থাকো পৃথিবীতে, আল্লাহ মহান, রাসুল শ্রেষ্ঠ মানব, ইসলাম শান্তির, মোহাব্বতের ধর্ম। সকল মুসলিম ভাই ভাই, দুঃখী মুসলিমের পাশে দাড়াতে কোন লজ্জা নাই।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx