তথ্য প্রযুক্তির সংক্ষিপ্ত সংবাদ (২৯-১২-১২)

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ আধুনিক যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়ে এগিয়ে চলেছে তথ্য প্রযুক্তির হাওয়া। তাইতো বর্তমান বিশ্বে তথ্য প্রযুক্তি ছাড়া ভাবাই যায় না। আজ তথ্য প্রযুক্তির সংক্ষিপ্ত সংবাদ (২৯-১২-১২) এ বিশ্বের বেশ কিছু তথ্য প্রযুক্তির খবর তুলে ধরা হলো।
Computer-090
কম্পিউটারের পঞ্চ ইন্দ্রিয়!

সম্প্রতি আইবিএম জানায়, আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে তারা এমন এক ধরনের কম্পিউটার তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছে যেটি মানুষের মতোই অনুভূতিসম্পন্ন হবে। কম্পিউটারে থাকবে পঞ্চ ইন্দ্রিয়ের অনুভূতি শনাক্ত করার প্রযুক্তি। এর ফলে দেখা, শোনা, গন্ধ নেয়া আর স্বাদ শনাক্তকরণসহ স্পর্শের অনুভূতি বুঝতে পারবে কম্পিউটার। ম্যাশএবল জানায়, এখন এক সেকেন্ডেরও কম সময়ে যে কোন দেশে বসে জানা সম্ভব হাজার মাইল দূরের কোন দেশের আবহাওয়ার পরিস্থিতি। কিন্তু আপনি যদি কম্পিউটারকে বলেন, একটুকরো কাপড় ধরে অনুভূতি জানাতে; কিংবা ভালো একটা স্যুপের গন্ধ শুকে দেখতে, এক্ষেত্রে কম্পিউটারটি কিন্তু একেবারেই অসহায়। কিন্তু আইবিএম জানায়, আগামী পাঁচ বছরের মধ্যে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার ব্যাপক অগ্রগতি দেখা যাবে কম্পিউটারে। ডিভাইসটি মানুষের সহকারী হিসেবে কাজ করবে বলে জানায় তারা। এতে গতানুগতিক কম্পিউটিং সিস্টেমের চেয়ে ভিন্ন কম্পিউটিং সম্ভব হবে বলে জানায় আইবিএম। একে বলা হচ্ছে ‘কগনিটিভ কম্পিউটিং’, কম্পিউটারের সঙ্গে এর পার্থক্য হচ্ছে, ট্রেনিংয়ে। কগনিটিভ কম্পিউটিংয়ে কোন ভুল সিদ্ধান্ত বারবার দেখা যাবে না। যদি কোন ভুল সিদ্ধান্ত চলেও আসে, তাহলে এটি পদ্ধতি পরিবর্তন করে আবার চেষ্টা করবে।

পানির মধ্যেও সচল স্মার্ট মোবাইল ফোন!

এটা কোন সাধারণ ওয়াটার প্রুফ বা পানি নিরোধক কেসিং নয়। কোনরকম সমস্যা ছাড়া কেসিংটি আইফোনকে গভীর পানিতে ডুবিয়ে রাখতে পারবে। স্মার্টফোন এ কেসিংটির নাম ‘আইগিলস এসই-৩৫’, পানি নিরোধক এ কেসিংটি ডুবে থাকার জন্য বিশেষভাবে ডিজাইন করা হয়েছে।

এতে ছয়টি বিশেষ বাটন ব্যবহার করা হয়েছে। ছয়টি বাটনে রয়েছে ছয়টি অ্যাপ্লিকেশন- এয়ার, নাইট্রক্স এবং গেজ মুডস, একটি লগ ডাইভ, একটি ডিজিটাল কম্পাস এবং ফ্লাশ লাইট। বাটনগুলো দিয়ে আইফোনের প্রায় সব কাজই পানির নিচে করা যাবে। তাছাড়া কেসিংটির নিজের একটা বৈশিষ্ট্যও আছে। যখন এর ক্যামেরাটি গভীর পানিতে ছবি তুলে এবং ভিডিও ধারণ করে তখন কেসিংটি গভীরতা এবং তাপমাত্রার সেন্সর হিসেবে কাজ করে। মজার ব্যাপার হলো, পানির ১৩০ ফুট অর্থাৎ ৪০ মিটার নিচেও কেসিংটি সম্পূর্ণ পানি নিরোধক থাকবে এবং পানির নিচে থেকেও আইফোনের মাধ্যমে নিখুঁত ও পরিষ্কার ছবি তুলতে পারবে।

তবে ব্যবহারকারীরা পানির নিচে থাকা অবস্থায় মোবাইল ফোনে কথা বলা এবং খুদে বার্তা লেখার সুবিধাগুলো পাবেন না। ‘আইগিলস এসই-৩৫’ সহজেই আইফোন থ্রিজিএস, ফোর এবং ফোরএস এ তিনটি মডেলে ব্যবহার করা যাবে। শুধু তাই নয়, পানি নিরোধক এ কেসিংটির মাধ্যমে আইফোনকে পুরোপুরি কম্পিউটার হিসেবেও ব্যবহার করা যাবে।

কবে নাগাদ ‘আইগিলস এসই-৩৫’ নামের এ কেসিংটি বাজারে আসবে তা বলা না গেলেও আশা করা যাচ্ছে, খুব শিগগিরই এটি বাজারে আসবে। তবে এটি বলার অপেক্ষা রাখে না যে, অন্যান্য সাধারণ পানি নিরোধক কেসিংয়ের চেয়ে এটি হবে অত্যন্ত ব্যয়বহুল। এর দাম পড়বে ৩২৯ দশমিক ৯৯ মার্কিন ডলার।

গুগল টিভির নতুন সংস্করণ

দরজায় কড়া নাড়ছে ২০১৩ সাল। নতুন বছরে প্রযুক্তির বাজারে আবারও সুখবর নিয়ে আসছে গুগল। ওয়েব ব্রাউজার থেকে শুরু করে স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট পিসির জন্য অপারেটিং সিস্টেম এবং পিসির জন্যও ওয়েবনির্ভর অপারেটিং সিস্টেম বাজারে এনে ইতিমধ্যেই বেশ নজর কাড়ে প্রযুক্তিপ্রেমীদের।

তারই ধারাবাহিকতায় আগামী বছরের শুরুতেই বাজারে আনছে গুগল টিভির দ্বিতীয় সংস্করণ। এই সংস্করণের গুগল টিভির ইন্টারফেস হবে আরও সহজ এবং সাধারণ। এতে ইন্টারনেটে টিভি কনটেন্ট আগের চেয়ে অনেক সহজে খুঁজে বের করার ব্যবস্থা রয়েছে। এর পাশাপাশি এবার গুগল টিভির জন্য অ্যাপ্লিকেশন তৈরির বিষয়টিও উন্মুক্ত করে দেয়া হয়েছে সবার জন্য। ডেভেলপাররা এখন চাইলেই গুগল টিভির জন্য বিশেষায়িত অ্যাপ্লিকেশন তৈরি করতে পারবেন। এর সঙ্গে অন্যান্য অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন চালানোর এবং গেম খেলার ব্যবস্থা তো রয়েছেই। ইন্টারনেট সংযোগ থাকায় খুব সহজেই গুগল টিভিতে ব্যবহার করা যাবে ইউটিউব এবং নেটফ্লিক্স সার্ভিস।

এতে ইউটিউবের ভিডিওগুলো আরও সহজে খুঁজে বের করা যাবে। গুগল টিভিতে এসব নতুন ফিচার চালু হলেও এবিসি, এনবিসি বা সিবিএস-এর মতো বড় বড় টেলিভিশন নেটওয়ার্ক এখনও রয়ে গেছে গুগল টিভির ধরাছোঁয়ার বাইরে।
এসব টেলিভিশন নেটওয়ার্ক গুগল টিভিতে যুক্ত হলে গুগল টিভির জনপ্রিয়তা খুব অল্প সময়ের মধ্যেই অনেক বেড়ে যেত বলে বিশ্লেষকদের ধারণা। তা না হলেও নতুন ইন্টারফেসের গুগল টিভির জনপ্রিয়তাকে অনেকখানি বাড়িয়ে দিতে সক্ষম হবে বলেই আশা করছে গুগল। গুগল জানিয়েছে, আসছে বছরে দুটো গুগল টিভি বাজারে আনবে এলজি।
এ দুটি টিভিতেই থাকবে কোয়ার্টি রিমোর্ট কন্ট্রোল আর ন্যাচারাল স্পিচ রিকগনিশন ফিচার। আসছে দুটি মডেল হচ্ছে জিএ৭৯০০ (৫৫ এবং ৪৭ ইঞ্চি) এবং জিএ৬৪০০ (৬০ ইঞ্চি থেকে ৪২ ইঞ্চি পর্যন্ত), এ দুটি মডেলে আছে কোয়ার্টি মোশন রিমোর্ট কন্ট্রোল। সঙ্গে আছে ভয়েস কমান্ডের বাড়তি ফিচার। একেবারেই ভিন্ন অবয়বের এ মডেল দুটি নতুন ধারার টেলিভিশনের অভিজ্ঞতা তুলে ধরবে বিনোদনপ্রেমীদের সামনে। এ ছাড়াও প্যাসিভ মোডে থ্রিডি সিনেমা দেখারও সুযোগ তৈরি হবে এ গুগল টিভির মাধ্যমে।

গুগল জিএ৭৯০০ মডেলের টিভির অন্যতম বৈশিষ্ট্য এলইডি টিভি। এর রিফ্রেশ রেট ২৪০ হার্টজ। আছে ব্যাকলাইট স্ক্যানিং সুবিধাও।

অন্যদিকে গুগল জিএ৬৪০০ মডেলের টিভির অন্যতম বৈশিষ্ট্য এডজ ডিসপ্লে। এর রিফ্রেশ রেট ১২০ হার্টজ। মডেল দুটির মূল পার্থক্যের মধ্যে আসলে এটাই প্রধান। গুগল টিভির এ দু’মাধ্যমেই আছে হানিকম্ব ৩.২ সংস্করণ। ফলে ট্যাব এবং স্মার্টফোনে ব্যবহারযোগ্য যেকোন অ্যাপই এ টিভিতেও উপভোগ করা সম্ভব। তবে দামের বিষয়ে এখনও সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি।

পরিষ্কার করা যাবে কিবোর্ড!

যারা কম্পিউটারে কাজ করেন তারা জানেন, কিবোর্ড ব্যবহারে তাতে প্রচুর ধুলা-ময়লা জমে। ব্রাশের মাধ্যমে এর উপরিভাগের ধুলা-ময়লা পরিষ্কার করা গেলেও কখনোই তা ধুয়ে পরিষ্কার করা যায় না। কারণ কিবোর্ডে পানি ঢুকলে তা বাতিল হয়ে যাবে। সমপ্রতি কিবোর্ড পরিষ্কার রাখার ঝামেলা এড়াতে লজিটেক নিয়ে এসেছে ওয়াশেবল কিবোর্ড কে৩১০, মজার ব্যাপার হল, এ কিবোর্ডটি সহজেই পানিতে ধোয়া যাবে। রান্নাঘরের সিঙ্কে বারবার গোসল করালে এবং ১১ ইঞ্চি পানির নিচে ডুবিয়ে রাখলেও এর কোন ক্ষতি হবে না। শুধু একটু শুকিয়ে নিলেই হল। কিবোর্ডটি কাজ করবে নতুনের মতোই। ধোয়ার পর কিবোর্ডটির পানি ঝরাতে বা শুকাতে এর পেছনে রয়েছে ড্রেনেজ হোল। এছাড়া কিবোর্ডের অক্ষরগুলো যাতে ভিজে নষ্ট হয়ে না যায় সেজন্য লেজার প্রিন্ট এবং ইউভি কোটিং ব্যবহার করা হয়েছে।
লজিটেক মাউস এবং কিবোর্ডের ঊর্ধ্বতন পরিচালক সোফি লে গুয়েন বলেন, সাবধান থাকা সত্ত্বেও আমাদের সবারই অভিজ্ঞতা আছে যে, কোন একসময় কফির কাপটি উল্টে পড়ে গিয়ে কিবোর্ডটি ভিজে নষ্ট হয়ে গেছে। আর এসব সমস্যা দূর করতেই লজিটেক এবার কম্পিউটার ব্যবহারকারীদের জন্য নিয়ে এসেছে ওয়াশেবল কিবোর্ড কে৩১০, এটি বারবার ধুলেও এতটুকু নষ্ট কিংবা ব্যবহারের অনুপযোগী হবে না। উইন্ডোজ এক্সপি, উইন্ডোজ ভিসতা এবং উইন্ডোজ সেভেন সবকিছুর সঙ্গেই এটি মানানসই। আশা করা যাচ্ছে, আগামী অক্টোবর মাসেই কিবোর্ডটি ইউরোপিয়ান বাজারে পাওয়া যাবে। আর এর খুচরা মূল্য হবে ৩৯.৯৯ মার্কিন ডলার।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...