ফেলানী হত্যা মামলা: বিএসএফের আদালতে আবার নির্দোষ অমিয় ঘোষ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিচারের বাণী নিরবে-নীভৃতে কাঁদে। সে কথাটিই সত্য প্রমাণিত হলো। চাঞ্চল্যকর ফেলানী হত্যা মামলায় বিএসএফের আদালতে আবার নির্দোষ ঘোষিত হলো ফেলানীর হত্যাকারী অমিয় ঘোষ।

Pelani murder case

পূবের রায় বহাল রেখে ভারতের কোচবিহারে বিএসএফ’র বিশেষ আদালতে ফেলানী হত্যা মামলার পুনর্বিচারের রায় ঘোষিত হয়েছে। যে কারণে এই মামলায় অভিযুক্ত বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষ আবারও নির্দোষ প্রমাণীত হলেন। অভিযুক্ত অমিয় ঘোষকে বেকসুর খালাস দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুরে এই রায় দেয় বিএসএফ এর ওই বিশেষ আদালত।

ফেলানী হত্যা মামলার আইন সহায়তাকারী কুড়িগ্রামের পাবলিক প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট আব্রাহাম লিংকন সংবাদ মাধ্যমকে জানান, গত তিন দিন একটানা পুনর্বিচারিক কার্যক্রম চলে। এরপর বাংলাদেশ সময় রাত ১২টার পর আগের রায় বহাল রেখে রায় ঘোষণা করেন বিএসএফ’র আধিকারী সিপি ত্রিবেদীর নেতৃত্বে ৫ সদস্যের বিচারিক প্যানেল।

উল্লেখ্য,২০১১ সালের ৭ জানুয়ারি ফুলবাড়ীর অনন্তপুর সীমান্তে কাঁটাতারের বেড়া পার হওয়ার সময় বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষ নির্মমভাবে গুলি করে হত্যা করে বাংলাদেশী কিশোরী ফেলানী খাতুনকে। এই হত্যাকাণ্ডে দেশ-বিদেশের গণমাধ্যমসহ মনবাধিকার কর্মীদের মাঝে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় ওঠে। আন্তর্জাতিক সমালোচনার মুখে ২০১৩ সালের ১৩ আগস্ট ভারতের কোচবিহারের বিএসএফ’র ওই বিশেষ আদালতে ফেলানী হত্যার বিচার কাজ শুরু হয়। ২০১৩ সালের ৬ সেপ্টেম্বর অভিযুক্ত বিএসএফ সদস্য অমিয় ঘোষকে বেকসুর খালাস দেয় বিএসএফ’র ওই বিশেষ আদালত। পরে বাংলাদেশ পুনবিচারের আবেদন করে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...