রাগ হলে যে কাজগুলো বর্জন করতে হবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ রাগ বা জেদ মানুষের অনেক ক্ষতি করে থাকে। অনেকেই না বুঝেই রাগের বসে মারাত্মক ভুল বা ক্ষতি করে বসে। রাগ হলে যে কাজগুলো বর্জন করতে হবে- সে বিষয নিয়েই এই প্রতিবেদন।

Anger

আমাদের মধ্যে অনেকেই রয়েছেন যাদের মেজাজ একটুতেই চড়া হয়ে যায় তখন সে তার রাগকে সংবরণ করতে পারেন না। আর রাগকে কন্ট্রোল করতে না পারলে বড় ধরনের সমস্যা সৃষ্টি হতে পারে। তাই রাগ হলে কতগুলো কাজ বর্জন করতে হবে। সে বিষয়গুলো নিয়েই আজকের আলোচনা।

অনেক মানুষই আছেন যাদের মেজাজ একটু বেশিই চড়া। রাগ নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারেন না। আর তখন আপনি বদমেজাজি হিসেবে বেশ পরিচিতি পেয়ে যান। আবার অনেকে আছেন যাদের সহসা রাগ উঠে না। তবে একবার উঠে গেলে রাগ নিয়ন্ত্রণে থাকে না তার। যে যেমন রাগী মানুষই হোন না কেনো, রাগ এমন একটি জিনিস যা নিয়ন্ত্রণে রাখা মঙ্গলজনক।

রেগে কখনও ঘুমুতে যাবেন না

রাগ করে কখনও ঘুমাতে যাওয়ার মতো ভুল কাজটি করবেন না। জার্নাল অফ নিউরোসাইন্সের একটি গবেষণায় বলা হয়েছে, ‘রাগ করে ঘুমাতে গেলে এই ধরনের নেতিবাচক বিষয়টি একেবারে গেঁথে যায়। আর সেটি পরবর্তীতে আরও বড় আকার ধারণ করতে পারে’। তাই ঘুমোতে যাওয়ার আগে যদি রাগ ওঠে তাহলে রাগ না কমা পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।

রাগ অবস্থায় গাড়ি চালাবেন না

রাগ উঠলে আমাদের সেন্স কাজ অকেজো হয়ে যায় তাই এই সময় গাড়ি চালানোর মতো কাজটি আপনার এবং অন্যান্য মানুষের জন্য বিপদ ডেকে আনতে পারে। তাই রাগ অবস্থায় ড্রাইভিং করবেন না।

রাগের উঠলে খাওয়া থেকে বিরত থাকুন

অনেকেই রাগ উঠলে খাবার খেয়ে কমানোর চেষ্টা করেন। তারা মনে করেন ক্ষিধা থাকলে বোধহয় রাগ ওঠে। কিন্তু এটি মোটেও ঠিক নয়। এতে দুটি বিষয় ঘটে প্রথমত রাগের সময় যাকিছু খাচ্ছেন সবই অস্বাস্থ্যকর খাদ্যে পরিণত হবে যা আপনার দেহের ক্ষতি করবে আর দ্বিতীয়ত: রাগের কারণে দ্রুত ও আধ চিবানো খাবার গিলে আপনি নিজেই বিপদে ডেকে আনতে পারেন। সুতরাং রাগের সময় খাবার থেকে দূরে থাকার চেষ্টা করুন।

রাগ উঠলে তর্ক চালিয়ে যাবেন না

রাগ উঠলে রাগের মাথায় কখনই তর্ক চালিয়ে যাবেন না। কারণ এতে আপনার রাগ ক্রমেই বাড়তে থাকবে। তখন আপনি এমন কোনো কথা হয়তো বলে ফেলতে পারেন যা আপনার সামনের মানুষটিকে গুরুতর আঘাত করতে পারে।

সব মিলিয়ে এক কথায় বলা যায় রাগ একটি মারাত্মক খারাপ জিনিস যেটি কখনই মঙ্গল বয়ে আনতে পারে না। তাই রাগ সংবরণ করার চেষ্টা করুন। তাহলে সেটি হবে আপনার এবং আপনার আশপাশের সবার জন্যই মঙ্গলজনক।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...