বিশ্বের এক ভয়ঙ্কর হাসপাতাল ‘ফেদ্রিকো মোরা’ কাহিনী!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আপনি হয়তো এমন হাসপাতালের কথা কখনও শোনেননি। আজ আপনাদের জন্য এমন এক ভয়ঙ্কর হাসপাতাল ‘ফেদ্রিকো মোরা’ কাহিনী রয়েছে।

horrible hospital Story

মানুষ যখন অসুস্থ হয় তখন তাকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। আর হাসপাতালে নেওয়ার একটাই কারণ হলো তাকে সুস্থ্য করে তোলা। কিন্তু এমন এক হাসপাতালের কাহিনী আপনাদের জন্য রয়েছে তাহলো সেখানে গেলে মানুষ আরও অসুস্থ পড়ে! অর্থাৎ সেখানে রোগী ভর্তি হওয়া মানে সুস্থতার বদলে আরও বেশি অসুস্থ হয়ে পড়া। গুয়াতেমালাতে অবস্থিত এমন একটি ‘কুখ্যাত’ হাসপাতালের নাম দ্য ফেদ্রিকো মোরা।

horrible hospital Story-2

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, সম্প্রতি একদল ক্যাম্পেইনার এই হাসপাতালটি পরিদর্শন করে বিশ্বের ভয়ঙ্করতম হাসপাতাল হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। হাসপাতালটিতে যৌন নির্যাতন হতে শুরু করে হত্যার মতো ঘটনাও ঘটে থাকে এই হাসপাতালটিতে।

পরিদর্শন শেষে হাসপাতালের অবস্থা সম্পর্কে তারা বলেন, ‘আমরা হাসপাতালের যেখানেই তাকাচ্ছিলাম সেখানেই শুধু অচেতন মানুষ শুয়ে রয়েছে। প্রচণ্ড সূর্যের তাপেও অনেক রোগী শুয়ে ছিল ওই হাসপাতালটিতে। পরে আমরা জানতে পারি যে, প্রত্যেক রোগীকেই উচ্চমাত্রার ঘুমের ওষুধ দিয়ে অচেতন করে রাখা হয় সেখানে।’

horrible hospital Story-3

পরিদর্শক টীম আরও বলেছে, ‘তাছাড়া বেশিরভাগ মানুষের শরীরেই কোন পোশাক ছিল না। আর যাদের শরীরে পোশাক ছিল তাও একেবারে সামান্য। মল-মূত্রের মধ্যে তারা গুটিসুটি মেরে শুয়ে ছিল!’

জানা যায়, হাসপাতালটির রোগীর সংখ্যা ৩৪০ জন। এদের মধ্যে ৫০ জনই মানসিকভাবে অসুস্থ আর ভয়ঙ্কর অপরাধী। তবে সবচেয়ে হৃদয়বিদারক ঘটনাটি হলো, ৭০ জন রোগীর জন্য হাসপাতালটিতে মাত্র দুজন নার্স কাজ করে। তাও আবার দিনের বেশিরভাগ সময়েই তাদের খুঁজে পাওয়া যায় না।

horrible hospital Story-4

হাসপাতালের অন্ধকার ঘরে কঠিন লোহার বিছানায় শেকল দিয়ে বাধা অবস্থায় রয়েছে অনেকে। তাদের মল-মূত্র ত্যাগ করার জন্যও কোথাও নিয়ে যাওয়াও হয় না। ওই লোহার বিছানাতেই তাদের সব সময় প্রাকৃতিক কাজ সারতে হয়।

হাসপাতালের সার্বিক মান সম্পর্কে কর্তৃপক্ষ বলেছে যে, তারা বিশ্বে স্বাস্থ্য সংস্থার নিয়মানুযায়ী রোগীদের খুব কম মাত্রার ঘুমের ওষুধ দিয়ে থাকেন। এছাড়াও কর্তৃপক্ষ দাবি করেছে যে, তাদের হাসপাতালের সব নার্সই বিশেষ প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ও তারা রোগীদের সব সময় পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন করে রাখে।

কিন্তু বাস্তবতার সঙ্গে তাদের কথার কোনই মিল পাওয়া যায়নি। তাই বিশ্বের ‘কুখ্যাত’ হিসেবে পরিগণিত হচ্ছে এই হাসপাতালটি।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...