এক মার্কিন শিশুর মুসলিমদের প্রতি সহানুভূতির দৃষ্টান্ত!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শিশুদের মন বড়ই নরম ও পবিত্র হয়। তাই শিশুদের মধ্যে থাকে না কোনো হিংসা-বিদ্বেষ। ঠিক তেমনই ঘটনা ঘটলো। এক মার্কিন শিশুর মুসলিমদের প্রতি সহানুভূতির দৃষ্টান্ত!

American children sympathetic to Muslims

সম্প্রতি ফ্রান্সে সন্ত্রাসী হামলার পর সারাবিশ্বের মুসলিমদের ওপর সেই ঘটনার প্রভাব পড়ছে। পশ্চিমের দেশগুলোতে আক্রমণ করা হচ্ছে মসজিদ ও মুসলিমদের ওপরেও। এমন এক পরিস্থিতিতে মুসলিমদের প্রতি এক মার্কিন শিশুর অভিনব সহানুভূতি সাড়া ফেলেছে বিশ্বময়। সামাজিক মাধ্যমেও ঘটনাটি বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।

ইরানের বার্তা সংস্থা ইকনা বলেছে, চারদিকে যখন মুসলিমদের আক্রমণের হিড়িক পড়েছে ঠিক তখন তাদের প্রতি সহানুভূতি প্রদর্শনের এক দৃষ্টান্ত দেখালো এক মার্কিন শিশু। ওই শিশু টেক্সাসের এক মসজিদে নিজের সঞ্চিত সব অর্থ দান করেছে। ওই শিশুটির নাম জ্যাক সাওয়ানসিন।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, প্যারিসে সন্ত্রাসী হামলার ২ দিন পর আমেরিকার টেক্সাস রাজ্যের ‘ফালাগরভিল’ শহরের ইসলামিক কেন্দ্র এবং মসজিদে হামলা চালায় ইসলাম বিদ্বেষী কতিপয় ব্যক্তিরা। এছাড়াও যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন শহরের মসজিদ এবং ইসলামি কেন্দ্রে হামলা চালায় এরা। মসজিদের সামনে পবিত্র কুরআনের পৃষ্ঠা ছিঁড়ে ফেলার ঘটনাও ঘটে। এমন পরিস্থিতিতে মুসলিমদের প্রতি সহমর্মিতায় জ্যাক সাওয়ানসিন উদ্যোগ সকলকেই বিস্মিত করেছে। শিশুরাও যে এমনিভাবে মানুষের প্রতি অর্থাৎ ধর্ম, বর্ণ নির্বিশেষে মানবিক হতে পারে ওই শিশুর কর্মকাণ্ড সত্যিই বিশ্ব বিবেককে নাড়া দিয়েছে।

ওই শিশু জ্যাক সাওয়ানসিন’র মা লারা বলেছেন, ‘জ্যাক সাওয়ানসিন যখন শুনলো মসজিদে হামলা করা হয়েছে, তখন থেকেই সে মসজিদে সাহায্য করার চেষ্টা করে আসছে। তবে তার কাছে খুব বেশি অর্থ ছিল না। তার নিজের জমানো ২০ ডলার নিয়েই ছুটে যায় মসজিদে’।

এদিকে মসজিদ কর্তৃপক্ষ এই শিশুর অনুদান সাদরে গ্রহণ করে বলেছেন, ‘জ্যাকের এই পদক্ষেপ আমাদের কাছে অতি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। তার এই পদক্ষেপের জন্য আমরা তাকে এবং তার মা’কে ধন্যবাদ জানাচ্ছি।’

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...