জিম্বাবুয়ের এক গর্ভধারিণীর দাবি: ‘আমার গর্ভে যীশু খ্রিষ্টের সন্তান’!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ জিম্বাবুয়ের এক গর্ভধারিণী দাবি করে বলেছেন, ‘আমার গর্ভে যীশু খ্রিষ্টের সন্তান’! ১৫ বছর বয়সী জিম্বাবুয়ে বসবাসকারী লতিফা স্মিথ নাবেঙ্গানা এমন দাবি করেছেন।

Jesus Christ son of my womb

জিম্বাবুয়ে বসবাসকারী ১৫ বছর বয়সী লতিফা স্মিথ নাবেঙ্গানা নিজেকে যীশু খ্রিষ্টের সন্তানের গর্ভধারিণী হিসেবে দাবি করেছেন। ওই মহিলা ২০১৫ সালের জুলাই মাসে তার নিকট ‘ঈশ্বরের দূত’ এসে বলে গেছেন যে, যীশু খ্রিষ্টের সন্তান জন্মদানের জন্য তাকে মনোনীত করা হয়েছে। তার দাবি হলো, এটা কোনো মিথ্যে খবর নয়।

ইন্ডিয়া টুডে’র খবরে বলা হয়েছে, ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরী দাবি করেছেন যে, সেই মহাবীর নিজে এসে তাকে সেই কথা জানিয়েছেন। যা খ্রিষ্টান ধর্মীয় পবিত্র গ্রন্থ বাইবেলে বর্ণিত রয়েছে। মহাবীরদের বর্ণনা বাইবেলে দেওয়া রয়েছে। তাদেরকে বাইবেলে নায়কের আসন দেওয়া হয়েছে।

লতিফা আরও জানান, ‘মহাবীর বলেছেন, তার নিকট যীশুর বার্তা রয়েছে, সে বলেছেন আমি গর্ভবতী হবো এবং যীশুর পুত্র সন্তানকে জন্ম দিবো।’ জিম্বাবুয়ে নিউজ ডে এর প্রতিবেদন অনুযায়ী, লতিফা স্মিথের পরিবার ধর্মের প্রতি অনেক বিশ্বাসী। তার পরিবারের সবাই তাকে বিশ্বাস করেন ও সমর্থনও করেন।

তার চিকিৎসকরা বলেছেন, ‘আমরা তার দাবি মিথ্যা বলতে পারি না কিংবা সত্য বলেও প্রমাণ করতে পারবো না।’
তার গায়নোলজিস্ট জানান, ‘আমি যা জানি, তার গর্ভধারণ প্রক্রিয়া একেবারে স্বাভাবিক। তিনি নিজেকে ভার্জিন বলে দাবি করছেন, এটি টেকনিক্যালি সত্য। কিন্তু এর অর্থ এই নয় যে, এতে কোনো ঐশ্বরিক শক্তি বিদ্যমান। আমি আপনাকে বলতে পারি যে তার গর্ভে ছেলে সন্তান রয়েছে কিন্তু সে সত্যিই যীশু খ্রিষ্টের সন্তান কিনা তা আমি তার জন্মের পূর্বে বলতে পারছি না।’
তিনি বলেছেন, ‘যদি লতিফা তার সন্তানের ডিএনএ পরীক্ষা করাতে চান, তাহলে বিষয়টি পরিষ্কার হতে পারে।’

Advertisements
Loading...