দুর্গম এক পর্বতময় ‘স্বর্গে’র গল্প!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অনেক দুর্গম পর্বতের কথা আমরা শুনেছি। কিন্তু এমন পর্বতময় স্বর্গের কথা মনে হয় আগে কেও বলেনি। আজ এমনই দুর্গম এক পর্বতময় স্বর্গের গল্প রয়েছে আপনাদের জন্য!

Kashmir Pyangi Valley

যাকে বলা হয় ভূস্বর্গ কাশ্মিরের সৌন্দর্য। এমন একটি প্রাকৃতিক রূপ দেখতে আকুল হয়ে থাকেন ভ্রমণ পিপাসুরা সেটিও আশ্চর্যের কিছু নয়। তবে তীব্র তুষারের কারণে কাশ্মিরের সবগুলো উপত্যকায় যাওয়া রাস্তাগুলো খুব সহজ রাস্তা হয় না। বরফে আচ্ছাদিত হয়ে থাকে পথ-ঘাট। সে জন্য বিকল্প পথ ধরতে হয় অভিযাত্রীদের।

জম্মু ও কাশ্মিরের এমনই একটি সৌন্দর্যপূর্ণ উপত্যকা হলো প্যাঙ্গি উপত্যকা। হিমালয়ের পশ্চিমাংশের পির পাঞ্জাল এবং জান্সকার রেঞ্জের মাঝখানে লুকানো পৌরানিক প্যাঙ্গি উপত্যকাটি। নভেম্বর মাসের দিকে তীব্র বরফপাতের কারণে বন্ধ হয়ে যায় উপত্যকাটিতে যাওয়ার সব পথ। এক কথায় বলা যায়, এই উপত্যকাটি বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে কয়েক মাসের জন্য বাকি বিশ্ব হতে।

Pictures from Kishtwar, Kashmir
Pictures from Kishtwar, Kashmir

কিন্তু তাই বলে কী অ্যাডভেঞ্চারপ্রিয় ভ্রমণকারীরা থেমে থাকে প্যাঙ্গি উপত্যকার সৌন্দর্য উপভোগ করা হতে? না। তাদেরকে যেতে হবেই যেভাবেই হোক! সে জন্য রয়েছে ভারতের ভেতর হতে কিশটওয়ার হয়ে প্যাঙ্গি উপত্যকায় যাওয়ার বিকল্প একটি রাস্তা।

বিশাল এই পাহাড়ের ঘা ঘেঁষে উঁচু-নিচু এবড়ো-থেবড়ো রাস্তা দিয়ে ভয়ঙ্কর শিহরণ জাগানো এবং অ্যাডভেঞ্চার করার মতো একটি পথ বেয়ে যেতে হয়। বলা হয় ভারতের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর পথ হলো এই পথটি। পর্বতের গা ঘেঁষে এক লেনের এবড়ো-থেবড়ো পথ এটি।

একপাশে খাড়া পর্বত আর অন্য পাশে গভীর গিরিখাত। পড়ে গেলেই একেবারে সব শেষ। এমন ভয়ঙ্কর শিহরণের রাস্তা পাড়ি দিয়ে পৌঁছাতে হয় প্যাঙ্গি উপত্যকায়। কষ্ট করে সেখানে যেতে পারলেই হাতছানি দিচ্ছে ভূস্বর্গের সেই অপার সৌন্দর্য।

ইতিহাস বলে, এক সময় মোগল সম্রাজ্য বিস্তারকারী শাসকদের হাত হতে রক্ষা পেতেই নাকি এই গোপন প্যাঙ্গি উপত্যকা বানায় চাম্বা জনগৌষ্ঠী। সম্‌ভ্রান্ত পরিবারগুলো তাদের নারী এবং শিশুদের গোপনে শান্তিতে বসবাস করার জন্য পাঠাতো এই প্যাঙ্গিতে।

ইতিহাস থেকে যানা যায়, ৬ শতাব্দিতে চাম্বা রাজত্বের অধিকারে আসে এই উপত্যকাটি। সেখানে যেসব কর্মকর্তাদের পাঠানো হতো তারা আর কখনও ফিরে আসতে চাইতো না। যে কারণে তাদেরকে প্যাঙ্গি উপত্যকাতেই সমাহিত করা হতো- এমন জনশ্রুতিও রয়েছে এখানকার ইতিহাস নিয়ে। এমনও শোনা যায় যে, প্যাঙ্গি উপত্যকায় চাম্বারাজ অপরাধীদের আজীবন সাজা দিয়ে নাকি এখানে পাঠিয়ে দিতেন।

প্যাঙ্গি উপত্যকায় পৌঁছার পথটি করা হয়েছে অনেকটা পাহাড় কেটে বড় বড় তাকের মতো করে। রাস্তাটির বিভিন্ন স্থানে কেবল একটি কার কোনো মতে পার হতে পারে। তবে কিছু কিছু বেপরোয়া বাস-ট্রাক চালক মাঝে-মধ্যেই সেখান দিয়ে অতিক্রম করে।

এক মহা প্রাকৃতিক সৌন্দর্য, মেঘের খেলা, তুষারপাতের উপর হাঁটা, এমনকি শিহরণ জাগানো ভয়ঙ্কর রাস্তা এবং মনোরম সৌন্দর্যের সমাহার বিদ্যমান দুর্গম প্যাঙ্গি উপত্যকায়। সে কারণে এটিকে অনেকেই ‘পর্বতময় স্বর্গও’ বলে থাকেন।

Advertisements
Loading...