বিমানবন্দরে আর এ্যারাইভাল কার্ড পূরণ করতে হবে না!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আগে বিদেশ থেকে ফিরে বিমানবন্দরে এ্যারাইভাল কার্ড পূরণ করার মতো ঝামেলা পোহাতে হতো। তবে এখন থেকে বিমানবন্দরে আর এ্যারাইভাল কার্ড পূরণ করতে হবে না!

ED card and airport

এই এ্যারাইভাল কার্ডকে সংক্ষেপে বলা হয় ‘ইডি’ (এম্বারকেশন-ডিসএম্বারকেশন) কার্ড। ইতিমধ্যে এই সিদ্ধান্তের বাস্তবায়নও শুরু হয়েছে। বিদেশ ফেরত বাংলাদেশী নাগরিকদের এই এ্যারাইভাল কার্ড পূরণ করতে হচ্ছে না।

হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে ইমিগ্রেশন বিভাগে কর্মরত এএসপি মো: মুকিত হাসান এ বিষয়ে সংবাদ মাধ্যমকে জানান, অনেক সময় একই সঙ্গে বেশ কয়েকটি বিমান ল্যান্ড করলে ইমিগ্রেশন বিভাগের উপর এক ধরণের চাপ সৃষ্টি হয়, সে সময় যাত্রীদের লাইনও দীর্ঘ হতে থাকে। সে সময় এ্যারাইভাল কার্ড পূরণ করাটাকে এক ধরণের ভোগান্তিই মনে করে থাকেন যাত্রীরা।

তিনি আরও বলেন, ‘ইমিগ্রেশন বিভাগের ডিআইজিসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগগুলোর উর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ এয়ারলাইন্সগুলোর সঙ্গে বৈঠক করে এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। তাছাড়া এই কার্ড কিংবা ফরম পূরণ করা নিয়ে বিমানবন্দরের মধ্যে তৃতীয় পক্ষ ব্যবসা খুলে বসেছিল।

তিনি বলেছেন, এ্যারাইভাল কার্ড পূরণ করা বন্ধ হয়ে যাওয়ার কারণে যাত্রীরা স্বস্তি পাবেন। তাছাড়া আমরাও চাচ্ছি না হাতে-কলমে লেখার একটা পুরনো পদ্ধতি এখনও বহাল থাকুক।’

এএসপি মুকিত হাসান আরও বলেন, বিমানবন্দরে বর্তমানে অনেক কিছুই ডিজিটাল হয়ে গেছে। যাত্রীরা যখন দেশ ত্যাগ করেন তখনই তাদের নামসহ সকল তথ্য সংরক্ষণ করা হয়। তাই তারা যখন আবার দেশে ফেরেন তখনও আবার সেই ঝামেলাটা যাত্রীদের দিতে চায় না কর্তৃপক্ষ।

তিনি বলেন, ‘আসলে যাত্রীরা বর্তমানে অনেকটাই রিলিফ পাচ্ছে। বিশেষ করে এখন যে হজ্ব যাত্রীরা ফিরবেন, তাদের জন্য ইমিগ্রেশন পার হওয়ায় তুলনামূলকভাবে অনেক কম সময় লাগবে। হাজিরা হজ্ব করে ফেরার সময় নিজেদের লাগেজ, পাসপোর্ট সামলিয়ে আবার এ্যারাইভাল কার্ড পূরণ করাটা বেশ ঝক্কি-ঝামেলার বিষয় হয়ে যায়। এই পদ্ধতি চালুর কারণে এখন থেকে আর সেটি হবে না।’

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...