হাজার বছর আগের এক ‘অ্যাডোনিস’ বৃক্ষ কাহিনী!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ অবিশ্বাস্য মনে হলেও এটিই সত্য যে, যে গাছটি আপনারা দেখছেন সেটি বেড়ে উঠেছে হাজার বছর ধরে!

Adonis tree

সবচেয়ে আশ্চর্যের বিষয় হলো স্বয়ং বিশেষজ্ঞরা দেখলেও ভাববেন যে এই গাছটির বয়স ২০০ দিনের বেশি হতে পারে না।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা গেছে, এই হাজার বছরের পুরোনো গাছটির অবস্থান গ্রিসের পিন্ডাস পার্বত্য অঞ্চলে।

বিজ্ঞানীরা বলেছেন, এটি বোসনিয়ান পাইন (বৈজ্ঞানিক নাম পিনাস হেলড্রিচিল) এটির মূল সেই ৯৪১ খ্রিষ্টাব্দে মাটিতে মেশে। ধারণা করা হচ্ছে যে, এই বৃক্ষটিকে ‘অ্যাডোনিস’ (Adonis tree) নামে ডাকা হতো। গ্রিকপুরাণে রয়েছে অ্যাডোনিস হলো সৌন্দর্য, তারুণ্য ও আকাঙ্ক্ষার দেবতা।

সুইডেনের স্টকহাম ইউনিভার্সিটির ডেনড্রোক্রোনলজিস্ট ও বিজ্ঞানী দলের প্রধান পল জে ক্রুসিক জানিয়েছেন, এই উদ্ভিদের জটিল বায়োলজি প্রতিকূল পরিবেশে বিস্তর সময় ধরে কিভাবে টিকেছিল তা সত্যিই বিস্ময়কর ব্যাপার। এমন এক স্থানে এই বৃক্ষের এমন একটি অবস্থান, যেখানে মানব সভ্যতার বয়স ৩ হাজার বছরেরও বেশি।

এই আজব গাছটি এমন একটি বনাঞ্চলে অবস্থিত যেখানে অনেক প্রাচীন পাইনও রয়েছে।

নাভারিনো এনভায়রোনমেন্টাল অবজারভেটরি (নিও) পরিচালিত এক গবেষণা অভিযানে এই গাছটির অস্তিত্ব খুঁজে পাওয়া যায়। অভিযাত্রী এই দলটি ওই অঞ্চলের প্রাচীন আমলের জলবায়ু বুঝতে বৃক্ষদের নিয়ে গবেষণা করছিল। প্রাচীন বৃক্ষ সম্পর্কে আগেই শুনেছিলেন ক্রুসিক। তবে এই প্রথমবারের মতো গবেষণায় আসার সুযোগ হয়েছে তাদের।

অ্যাডোনিস গাছটির বয়স বের করতে দলটি গাছের গভীর ড্রিল করেন। তারা ‘ট্রি রিং’ গণনা করেন যার প্রত্যেকটি এক একটি মৌসুমের হিসাব দিয়ে থাকে। এসব ট্রি রিংয়ের ঘনত্ব ও রং সেই সময়কার জলবায়ু বুঝতে সূত্র দেয়। আনুষ্ঠানিকভাবে এই গাছটির বয়স ঘোষণার আগে তারা বনের অন্যান্য গাছের ট্রি রিংয়ের সঙ্গে অ্যাডোনিসের ট্রি রিং তারা মিলিয়ে দেখেন। কারণ অনেক সময়ই খরা কিংবা অন্যান্য পরিবেশগত কারণে ট্রি রিং নিয়মিতভাবে নাও হতে পারে। অন্যান্য গাছের সঙ্গে মিলিয়ে দেখলে বয়সের হিসাবটি একেবারে নিখুঁত হয় বলে জানান বিজ্ঞানীরা।

যাবতীয় হিসাব-নিকাশ শেষে বেরিয়ে আসে যে অ্যাডোনিসের বয়স ১০৭৫ বছর! যে সময়টিতে ইউরোপ দাপিয়ে বেড়াতো ভাইকিংরা।

উল্লেখ্য, ইউরোপে আরও অনেক পুরনো গাছের সন্ধান পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। যেমন ওয়েলসের ল্যানগারন্যু ইয়েউ নামে গাছটির বয়স ৩ হাজার বছর। যদিও আনুষ্ঠানিকভাবে এই গাছের বয়স ঘোষিত হয়নি। এছাড়া ডেনমার্কের রয়্যাল হান্টিং ফরেস্টের কনগিজেন বা রাজার বৃক্ষটির বয়স ধরা হয়ে থাকে দেড় হাজার হতে ২ হাজার বছর।

পৃথিবীর সবচেয়ে প্রাচীন গাছ হিসেবে ক্যালিফোর্নিয়ার হোয়াইট মাইন্টেনস-এর একটি বৃক্ষকে বলা হয়। এই বৃক্ষের বয়স ৫ হাজার বছর। এটি ছাড়া আরও অন্তত ডজনখানেক উদ্ভিদ রয়েছে যাদের বয়স ৩ হাজার হতে সাড়ে ৩ হাজার বছরের মধ্যে। অপরদিকে উতাহ-এর প্যান্ডো নামে পরিচিত কোয়াকিং অ্যাসপেনের ক্লোনাল কলোনিক গাছ নাকি ৮০ হাজার বছরের পুরনো!

Advertisements
Loading...