গোটা শহরই কবরখানা এমন এক শহরের গল্প!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ গোটা শহরই কবরখানা। ইরাকের শিয়া ধর্মাবলম্বী শহর, নাজাফ-এ অবস্থিত কবরখানাটিকে বিশ্বের বৃহত্তম কবরখানা বলে চিহ্ণিত করা হয়েছে।

story-of-city-cemetery

সাম্প্রতিক পাওয়া এক খবরে জানা যায়, এই গোরস্থানটি তার আদি আয়তনের প্রায় দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। এর অন্যতম কারণ, ইসলামিক স্টেট-যুদ্ধে যে সংখ্যক শিয়া ধর্মবলম্বী মারা গিয়েছিলেন, তাতে এর আয়তন বৃদ্ধি করা ছাড়া অন্য কোনও উপায় ছিল না।

ইতিপূর্বে, ওয়াদি আল-সালাম গোরস্থানটি (যার অর্থ ‘পিস ভ্যালি’) শিয়া মুসলমানদের কাছে বিপুল আবেগের স্থান ছিল। কারণ, তাঁদের প্রথম ইমাম আলি বিন আবি তালিব-এর সমাধি এই কবরস্থানেই অবস্থিত। এই কবরখানাতে প্রতিদিন প্রায় ১৫০ হতে ২০০টি দেহ সমাহিত হয়ে থাকে, সংখ্যাটি আগে ছিল ৮০ হতে ১২০।

জঙ্গি সংগঠন দায়েশের সঙ্গে যুদ্ধেরত আধাসামরিকরা আবি তালিব-এর সমাধিতে শ্রদ্ধা জানাতে আসেন। তাঁদের ইচ্ছা, ইন্তেকালের পরে তাঁদের এখানেই দাফন করা হোক। এটাই হবে তাঁদের জন্য শ্রেষ্ঠ ইনাম। তাই ক্রমশ বেড়েছে জমির দাম। দাফনের উপযুক্ত জমি পাওয়া সত্যিই দুষ্কর হয়ে উঠেছে।

জানা গেছে, ৪১০০ মার্কিন ডলারে পাওয়া যায় মাত্র ২৫ স্কোয়ার মিটার জমি। তাও আবার বিস্তর কাঠখড় পোড়াতে হয়। ক্রমশ ঘিঞ্জি হয়ে ওঠছে গোরস্থান। একটা অতিপ্রাকৃত চেহারা নিতে থাকে এই কবরখানাটি। পর্যটকদের কাছে দ্রষ্টব্য হয়ে ওঠেছে এই ‘পিস ভ্যালি’!

Advertisements
Loading...