ম্যাক্রোঁ ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত: কে এই ম্যাক্রোঁ?

দ্বিতীয় দফা নির্বাচনে ম্যাক্রোঁ পেয়েছেন ৬৫ দশমিক ১ শতাংশ ভোট

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ইউরোপীয় ইউনিয়নপন্থী ইমানুয়েল ম্যাক্রন। দ্বিতীয় দফা নির্বাচনে ম্যাক্রোঁ পেয়েছেন ৬৫ দশমিক ১ শতাংশ ভোট।

এদিকে তার প্রতিদ্বন্দ্বী অভিবাসনবিরোধী কট্টর ডানপন্থী মারিন লে পেন পান ৩৪ দশমিক ৯ শতাংশ ভোট। সরকারিভাবে এই ফলাফল ঘোষণা হবে আগামী ১০ মে।

এর পূর্বে স্থানীয় সময় ৭ মে (রবিবার) সকাল হতে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের চূড়ান্ত এই ভোট গ্রহণ শুরু হয়। ভোট কেন্দ্রগুলোতে দেশটির লাখ লাখ ভোটার তাদের পছন্দের প্রেসিডেন্টকে বেছে নিতে ভোট দিয়েছেন।

ফ্রান্সের বর্তমান প্রেসিডেন্টের মেয়াদ শেষ হচ্ছে ১৪ মে। এদিন শপথ নেবেন দেশটির নব নির্বাচিত প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

এ মাসের মাঝামাঝিতে নাম ঘোষণা করা হবে দেশটির নতুন প্রধানমন্ত্রীর। এই নাম ঘোষণা করবেন দেশটির নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট। অপরদিকে ১১ এবং ১৮ জুন সংসদ নির্বাচনও অনুষ্ঠিত হবে।

ম্যাক্রোঁর রাজনৈতিক ক্যারিয়ার শুরু যেভাবে

ফ্রান্সের নতুন প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাক্রোঁর মতো রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের শুরু বিশ্বের খুব অল্পসংখ্যক রাজনীতিকেরই রয়েছে। অভিজাত শ্রেণীর ন্যাশনাল স্কুল অব অ্যাডমিনিস্ট্রেশন হতে স্নাত্ক শেষ করেন ম্যাক্রোঁ। তিনি দেশটির অর্থমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করেছেন। তবে একেবারে মূলধারার রাজনৈতিক দলের বাইরে হতে ফ্রান্সের ইতিহাসে সবচেয়ে কম বয়সী প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়ে ব্যাপক শোরগোল ফেলেছেন মধ্যপন্থী এই নেতা ম্যাক্রোঁ। স্নাত্ক শেষে দেশটির রথচাইল্ড অ্যান্ড সাই ব্যাংকে একজন বিনিয়োগকারী ব্যাংকার হিসেবে কাজ শুরুর আগে ফ্রান্সের অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থনৈতিক পরিদর্শক হিসেবে কাজ করেন তিনি।

মূলধারার দলের সঙ্গে তার রাজনৈতিক ক্যারিয়ার বেশিদিনের নয়, মাত্র ৩ বছরের। দেশটির সোশ্যালিস্ট পার্টির সদস্য হিসেবে ৩ বছর থাকার পর ২০০৯ সালে স্বতন্ত্র রাজনীতিক হিসেবে রাজনীতিতে নামেন ম্যাক্রোঁ। ৩৯ বছর বয়সী এই রাজনীতিক প্রেসিডেন্ট ফ্রাঁসোয়া ওঁলাদের ব্যক্তিগত স্টাফ হিসেবে প্রথম দায়িত্ব পালন করেন। পরে ম্যানুয়েল ভালস সরকারের অর্থনীতি, শিল্প ও ডিজিটাল কল্যাণবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বে ছিলেন ম্যাক্রোঁ।

পশ্চিমা বিশ্ব ক্রমবর্ধমানহারে কট্টর ডানপন্থার দিকে ঝুঁকলেও ম্যাক্রোঁ নিজের অবস্থান মধ্যপন্থায় অটল রাখেন। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচন ও ব্রেক্সিটের পর বিশৃঙ্খলার সঙ্গে নিত্য পরিচিত ফরাসি নাগরিকদের প্রতি তাঁর অবস্থান তুলে ধরেন সুষম নীতিতে বিশ্বাসী এমানুয়েল ম্যাক্রোঁ।

Advertisements
Loading...