লাদেনের ছেলে পিতা হত্যার প্রতিশোধ নিতে চান!

উদ্ধারকৃত ব্যক্তিগত এক চিঠির বরাত দিয়ে মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা এফবিআই’র সাবেক এক অ্যাজেন্ট এই তথ্য প্রকাশ করেছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের অভিযানে নিহত আল-কায়েদা নেতা ওসামা বিন লাদেনের ছেলে তার পিতার খুনের প্রতিশোধ নিতে চান।

ওই অভিযানে উদ্ধারকৃত ব্যক্তিগত এক চিঠির বরাত দিয়ে মার্কিন কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা এফবিআই’র সাবেক এক অ্যাজেন্ট এই তথ্য প্রকাশ করেছে।

বর্তমানে লাদেনের ছেলে আল-কায়েদার বৃহৎ একটি অংশের নেতৃত্ব দিচ্ছেন। তিনি পিতার খুনের প্রতিশোধ নিতে চান। লেবানি বংশোদ্ভূত এফবিআইয়ের সাবেক মার্কিন অ্যাজেন্ট আলি সোফান ৯/১১ হামলার তদন্তকারী দলকে নেতৃত্ব দেন; গোয়েন্দা নথি বিশ্লেষণের পর তিনি এই তথ্য প্রকাশ করেছেন।

লাদেনের ছেলে হামজার ওই চিঠি অভিযানের সময় সংগ্রহের পর বর্তমানে সংরক্ষিত রয়েছে। সোফান বলেছেন, চিঠিতে হামজা লিখেছেন, ‘তার (লাদেনের) চেহারা মনে রাখবেন… আপনার (লাদেনের) প্রত্যেকটি হাসি…প্রত্যেকটি শব্দ মনে রাখবো।’

বর্তমানে ওসামা বিন লাদেনের এই ছেলের বয়স ২৮ বছর। ২২ বছর বয়সের সময় ওই চিঠি লিখেছিলেন লাদেন পুত্র; যখন দীর্ঘদিন ধরে তার বাবার সঙ্গে সাক্ষাৎ হতো না।

হামজা লিখেছেন, ‘আমি নিজেকে সব সময় ইস্পাতের মতো মনে করি। ঈশ্বরের জন্যই আমরা জিহাদের রাস্তায় বেঁচে রয়েছি।’

সোফান বলেছেন, কয়েক বছর আগের ছোট হামজা এখন আল-কায়েদার গুরুত্বপূর্ণ এক নেতা। অনেক সময় তাকে আল-কায়েদার প্রোপাগান্ডা ভিডিওতে বন্দুক হাতেও দেখা যায়। আল-কায়েদার সদস্যদের জন্য তিনি পোস্টার বালক ছিলেন।

এদিকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র হামজাকে বিশেষ বৈশ্বিক সন্ত্রাসী হিসেবে তালিকাভূক্ত করেছে; যা তার বাবার ক্ষেত্রেও করা হয়। তার বার্তাগুলোও ঠিক তার বাবার মতোই। সম্প্রতি প্রকাশিত এক বার্তায় তার বাবার মতো শব্দ এবং মতাদর্শ উল্লেখ করে বক্তৃতা দিতে দেখা গেছে।

গত দুই বছরে হামজা অন্তত ৪টি অডিও বার্তা প্রকাশ করে। সোফানের বিশ্বাস, জিহাদী আন্দোলনকে অনুপ্রাণিত এবং ঐক্যবদ্ধ করতে পারে জুনিয়র লাদেন হামজা।

তিনি বলেছেন, ‘মার্কিন জনগণ আমরা আসছি ও আপনারা শীঘ্রই তা বুঝতে পাবেন। ইরাক, আফগানিস্তান ও আমার বাবার ক্ষেত্রে আপনারা যা করেছেন আমরা তার প্রতিশোধ নিতে চলেছি।’

এফবিআইয়ের সাবেক মার্কিন অ্যাজেন্ট আলি সোফান বলেন, এখন আল-কায়েদা আগের থেকেও অনেক বেশি শক্তিশালী।

Loading...