অস্কারে যাচ্ছে মোবাইলে নির্মিত বাংলাদেশী চলচ্চিত্র ‘ইন্টেরিয়র্স অ্যান্ড এক্সটেরিয়র্স’

চেক রিপাবলিকে অনুষ্ঠিত জিলাভা ইন্টারন্যাশনাল ডকুমেন্টরি ফিল্ম ফেস্টিভালে শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য ডকুমেন্টরি ফিল্মের জন্য ‘ক্রাটকা রাডস্ট (শর্ট জয়)’ পুরস্কার জিতে নিয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ‘ক্রাটকা রাডস্ট (শর্ট জয়)’ পুরষ্কার অর্জন করে এবার অস্কারের ৯১তম আসরে যাচ্ছে মোবাইলে নির্মিত বাংলাদেশী চলচ্চিত্র ‘ইন্টেরিয়র্স অ্যান্ড এক্সটেরিয়র্স’।

চেক রিপাবলিকে অনুষ্ঠিত জিলাভা ইন্টারন্যাশনাল ডকুমেন্টরি ফিল্ম ফেস্টিভালে শ্রেষ্ঠ স্বল্পদৈর্ঘ্য ডকুমেন্টরি ফিল্মের জন্য ‘ক্রাটকা রাডস্ট (শর্ট জয়)’ পুরস্কার জিতে নিয়েছে বাংলাদেশী চলচ্চিত্র নির্মাতা আশিক মোস্তফার জিরো-বাজেটে নির্মিত এই স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্রটি।

‘শর্ট জয়’ পুরস্কারের অর্থমূল্য হিসেবে রয়েছে অনলাইন ডিস্ট্রিবিউশন ও প্রচারণা বাবদ ৩ হাজার ইউরো। এ ছাড়াও অস্কার মনোনীত ‘শর্ট জয়’ পুরস্কারপ্রাপ্ত ফিল্ম একাডেমি অ্যাওয়ার্ডেরর শর্ট ডকুমেন্টরি বিভাগের জন্যও প্রি-সিলেক্টেড হয়।

সেই হিসেবেই অস্কারের ৯১তম আসরের জন্য ছবিটি প্রতিযোগিতায় অংশ নেবে। মধ্য ও পূর্ব ইউরোপের সৃজনশীল ডকুমেন্টারির সর্ববৃহৎ এই উৎসবে প্রথাবিরোধী এবং নিরীক্ষাধর্মী ভিন্ন ধারার চলচ্চিত্রকে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হয়ে থাকে।

এই বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ‘ইন্টেরিয়র্স অ্যান্ড এক্সটেরিয়র্স’র নির্মাতা আশিক মোস্তফা। চলচ্চিত্রটির ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার উপলক্ষে অংশগ্রহণের অভিজ্ঞতা ব্যক্ত করে নির্মাতা আশিক মোস্তফা সংবাদ মাধ্যমকে বলেছেন, ‘একসঙ্গে এতো অসাধারণ সব চলচ্চিত্র দেখতে পারা আমার দৃষ্টিভঙ্গিকে আরও প্রসারিত করছে। এই ধরনের চলচ্চিত্র নির্মাণে আমি এখন আরও অনুপ্রাণিত হচ্ছি।’

জানা গেছে, খনা টকিজের ব্যানারে নির্মিত এই ‘ইন্টেরিয়র্স এন্ড এক্সটেরিয়র্স’ ছবিটি প্রযোজনা করেছেন রুবাইয়াত হোসেন।

মোবাইল ফোনে ধারণকৃত জিরো-বাজেটে নির্মিত এই স্বল্পদৈর্ঘ্য ‘ইন্টেরিয়র্স অ্যান্ড এক্সটেরিয়র্স’ ঢাকা শহরের প্রতিদিনকার দেখা একটি আপাত সাধারণ দৃশ্যের সূক্ষ্ম এবং ব্যঞ্জনাময় দৃশ্যগুলো উপস্থাপন করা হয়েচে। একটি মাত্র শটে নেওয়া ৮ মিনিটের এই চলচ্চিত্রটি যেনো একটি চলমান স্থিরচিত্র, যেখানে একই ফ্রেমে প্রতিফলিত হয়েছে সাধারণ মানুষের স্বাভাবিক ধর্মচর্চা এবং শ্রেণিবৈষম্যের ভেতর-বাহিরের একটি বাস্তব চিত্র।

আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...