এবার ধর্ষিতার চরিত্রে ‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’ নাটকে মেহজাবিন

বিয়ের পিঁড়িতে বসতেই পারেননি মেহজাবিন। তার আগেই ধর্ষণের মতো অনাকাঙ্ক্ষিত অঘটনে থমকে গেছে তার জীবনের সবকিছু

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ নাট্য জগতের বর্তমান সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী মেহজাবিন। একের পর এক নাটকে অভিনয় করে দর্শক শ্রোতাদের মন জয় করে নিয়েছেন। এবার ধর্ষিতার চরিত্রে অভিনয় করেছেন মেহজাবিন।

নাটকটির কাহিনী এমন: বিয়ের পিঁড়িতে বসতেই পারেননি মেহজাবিন। তার আগেই ধর্ষণের মতো অনাকাঙ্ক্ষিত অঘটনে থমকে গেছে তার জীবনের সবকিছুই। এমন এক পরিস্থিতিতে সানাইয়ের সুর নয়, প্রবল হতাশা ও আত্মহননের পথ তাকে গ্রাস করে ফেলে। তারপরও প্রচণ্ড আত্মবিশ্বাস নিয়ে ঘুরে দাঁড়াতে চান মেহজাবিন।

এমন সময় মেহজাবিনের সহপাঠী সুষমা তার দিকে সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দেয়। ঘটনাক্রমে পরিচয় ঘটে সুষমার পূর্বপরিচিত সজলের সঙ্গে। ভয়াল অতীতকে পেছনে ফেলে আগামীকে সুন্দর করে সাজানোর জন্যই মেহজাবিনকে জীবনসঙ্গী হিসেবে পেতে চান সজল।

মেহজাবিনের জীবনে ঘটে যাওয়া সেই অনাকাঙ্ক্ষিত অঘটনের কথা জানার পর সজল কি মেহজাবিনের পাশে থাকতে চাইবে? এমন একটি গল্প নিয়ে নির্মিত হয়েছে নাটক ‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’। ব্যতিক্রমী গল্প ও চমৎকার ভাবনায় নির্মিত নাটকটি রচনা ও পরিচালনা করেছেন ড. তৌফিক এলাহী।

লাক্স তারকা মেহজাবিন নাটকটি সম্পর্কে বলেছেন, এমন একটি চরিত্র আমার জন্য একেবারেই নতুন। ধর্ষিতার চরিত্রে অভিনয় করা আমার জন্য অনেক বড় চ্যালেঞ্জিং ছিল। অভিনয় দিয়ে নিজের সেরাটা উপস্থাপন করার শতভাগ চেষ্টা করেছি।

অপরদিকে নির্মাতা ড. তৌফিক এলাহী সকল ধর্ষিতা নারীদের উৎসর্গ করে নাটকটি নির্মাণ করেছেন। তার ভাষ্য মতে, হরহামেশাই দেখা যায় ধর্ষণের শিকার মফস্বলের মেয়েরা। তারা লজ্জায় অপমানে আত্মহত্যার পথে বেছে নেয়। ধর্ষণ একটি নারী নির্যাতন এবং নির্যাতনকারীদের বিচারের জন্য কঠোর আইন রয়েছে। আত্মহত্যায় অনুৎসাহিত করে নারীর ক্ষমতায়ন নিশ্চিতের লক্ষে নির্মাণ করা হয়েছে ‘অনামিকার নীল উপাধ্যায়’ নাটকটি।

মেহজাবিন, সজল, সুষমা সরকারের সঙ্গে আরও অভিনয় করেছেন শেলি আহসান, নিকুল কুমার, খালেকুজ্জামান প্রমুখ। শীঘ্রই নাটকটি একটি বেসরকারি টেলিভিশনে প্রচারিত হবে বলে নির্মাতা সূত্রে বলা হয়েছে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...