ফুটন্ত গরম পানি যেভাবে মুহূর্তেই হয়ে যাচ্ছে বরফ! [ভিডিও]

১৯৯৩ সালের পর এই প্রথমবারের মতো বেশ কিছু স্থানের তাপমাত্রা মাইনাস ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াতেও নেমেছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ফুটন্ত গরম পানি কী কখনও বরফ হতে পারে? এমন প্রশ্ন করা হলে হয়তো উত্তর মিলবে না। কিন্তু বাস্তবে ঘটেছে ঠিক উল্টোটা অর্থাৎ ফুটন্ত গরম পানি মুহূর্তেই হয়ে যাচ্ছে বরফ! ভিডিওটি দেখলেই বুঝতে পারবেন।

সম্প্রতি একদিন গেইল ক্রেটারের তাপমাত্রা ছিল মাইনাস ৯.৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস। অ্যান্টার্কটিকার আমুন্ডসেন-স্কট আবহাওয়া দপ্তরের পারদ ছিল ১ ডিগ্রিতে।

বিষয়টি অবশ্য কানাডাবাসীদের জন্যে এক ঐতিহাসিক অভিজ্ঞতা হয়ে থাকবে। তারা এবার দেখছে কানাডার শীতলতম শীতকাল। ১৯৯৩ সালের পর এই প্রথমবারের মতো বেশ কিছু স্থানের তাপমাত্রা মাইনাস ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াতেও নেমেছে। এসব তথ্য দিয়েছে ইনভায়রনমেন্ট কানাডা’র আবহাওয়াবিদ আলেকজান্দ্রে প্যারেন্ট।

এমন প্রচণ্ড ঠাণ্ডায় জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। তবে অনেক কানাডিয়ান আরও বেশি সৃষ্টিশীল হয়ে উঠেছেন। কানাডা এখন কতোটা শীতল তার জানান দিতে অনেকেই ভিডিওটি প্রকাশও করেছেন। সেখানে দেখা যাচ্ছে যে, ফুটন্ত গরম পানি তাৎক্ষণিকভাবে বরফে পরিণত হচ্ছে।

ওই ভিডিওতে দেখা যায়, এক কাপ ফুটন্ত গরম পানি বাতাসে উড়িয়ে উপরের দিকে মারার সঙ্গে সঙ্গে তা বরফ হয়ে মাটিতে পড়ছে!

স্লো মোশন ভিডিওতে বিস্ময়কর এই ঘটনাটি দেখতে পারবেন। এডমন্টোনোতে এই ভিডিওটি করা হয়েছে। এটিএই মুহূর্তে কানাডার সবচেয়ে শীতল শহরগুলোর একটি। ডিসেম্বরের ৩০ তারিখে তাপমাত্রা মাইনাস ৩০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের নিচে নেমে গিয়েছিলো।

যে তাপমাত্রায় ফুটন্ত পানি বরফে পরিণত হয়, সেই অবস্থাকে বলা হয়ে থাকে ‘পেম্বা’। এই অবস্থায় ও বিশেষ কিছু পরিস্থিতিতে উষ্ণ পানি স্বাভাবিক তাপমাত্রার পানির চেয়ে অনেক বেশি দ্রুত বরফে পরিণত হয়।

দেখুন ভিডিওটি

Advertisements
Loading...