The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

নিটল-নিলয় গ্রুপ সুলভ মূল্যে আনলো টাটার নতুন গাড়ি!

ম্যানুয়েল ও অটোমেটিক গিয়ার শিফর্টিং সুবিধাসহ এই গাড়িটিতে রয়েছে আকর্ষণীয় মাইলেজ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ নিটল-নিলয় গ্রুপ সুলভ মূল্যে দেশের বাজারে আনলো টাটার নতুন গাড়ি! গাড়িটির মডেল হলো ‘টাটা টিয়াগো এএমটি’। দেশের ক্রেতারা সাধ্যের মধ্যে নিতে পারবেন নতুন একটি গাড়ি।

নিটল-নিলয় গ্রুপ সুলভ মূল্যে আনলো টাটার নতুন গাড়ি! 1

বাংলাদেশে টাটার নতুন গাড়ি আনলো নিটল-নিলয় গ্রুপ। গাড়িটির মডেল হলো ‘টাটা টিয়াগো এএমটি।’ ম্যানুয়েল ও অটোমেটিক গিয়ার শিফর্টিং সুবিধাসহ এই গাড়িটিতে রয়েছে আকর্ষণীয় মাইলেজ।

সম্প্রতি রাজধানীর একটি হোটেলে এই গাড়িটির আনুষ্ঠানিকভাবে বাংলাদেশের বাজারে বিক্রির ঘোষণা দিয়েছে টাটা মোটরস। এই উপলক্ষে এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। ওই অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি ছিলেন বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ। এই সময় টাটা মোটরস’র প্যাসেঞ্জার ভেহিক্যাল ইউনিটের প্রেসিডেন্ট মায়ানক পারিক ও টাটার দেশীয় পরিবেশক নিটল নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদও উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, নিটল নিলয়ের মাধ্যমে টাটা দেশের বাজারে সুলভ মূল্যের নতুন একটি গাড়ি আনলো। আমরা আশা করি টাটা বাংলাদেশেও কারখানা স্থাপন করবে।

নিটল নিলয় গ্রুপের চেয়ারম্যান আব্দুল মাতলুব আহমাদ বলেছেন, বাংলাদেশের বাজারে টাটা টিয়াগো এক অনন্য ভূমিকা রাখবে। দেশের মানুষ যেনো একসঙ্গে বাড়ি ও গাড়ি দুটোই সহজে কিনতে পারেন সেজন্য আমরা উদ্যোগ নিয়েছি। শুধুমাত্র ফ্ল্যাটের বুকিং মানি দিয়েই বুঝে নিন ফ্ল্যাটের চাবি। কোনো ডাউনপেমেন্ট ছাড়াই কিস্তিতে কিনতে পারবেন এই গাড়ি। ২০ বছর মেয়াদি কিস্তিতে বাকি অর্থ পরিশোধ করা যাবে।

জানা গেছে, টাটার নতুন এই টিয়াগো গাড়িটিতে রয়েছে রিভোট্রোন ১.২ লিটার মাল্টি ড্রাইভ পেট্রোল ইঞ্জিন। ভারত স্টেজ ফোর নীতিমালায় এই ইঞ্জিন তৈরি করা হয়েছে। এতে ১১৯৯ সিসির থ্রি সিলিন্ডার ইঞ্জিন সংযোজিত রয়েছে। এই ইঞ্জিনের সর্বোচ্চ ক্ষমতা হলো ৮৫ পিএস@ ৬০০০ আরপিএম এবং ম্যাক্স টর্ক ১১৪ এনএম@৩৫০০ আরপিএম।

নতুন এই গাড়িতে ৫ স্পিড এএমটি গিয়ার ট্রান্সমিশন ব্যবহার করা হয়েছে। চাইলেই অটো মোডেও গিয়ার পরিবর্তন ছাড়াও গাড়িটি চালানো যাবে। নতুন এই গাড়িটির হুইল ব্যাস ২৪০০ মিলিমিটার। ফুয়েল ট্যাংকের জ্বালানির ধারণ ক্ষমতা হলো ৩৫ লিটার। ছোট পরিসরে পাঁচ আসনের এই গাড়িটি ৬টি রঙে পাওয়া যাবে।

এই মডেলের গাড়িটি ভারতের বাজারে পাওয়া যাচ্ছে ৫ লাখ ৩৬ হাজার রুপিতে। অপরদিকে বাংলাদেশের বাজারে গাড়িটির মূল্য পড়বে ১৪ লাখ ৯৫ হাজার টাকা।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...