বিশ্বের সবচেয়ে চুলওয়ালা নারী এবার বসলেন বিয়ের পিঁড়িতে!

থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের এই বাসিন্দা তার চুলও একেবারে ছেঁটে ফেলেছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিশ্বের সবচেয়ে চুলওয়ালা নারী এবার বসলেন বিয়ের পিঁড়িতে! সুপাত্র সুসুফান ওই নারী এক সময় গিনেস বুকে ‘বিশ্বের সবচেয়ে চুলওয়ালা মেয়ে’ হিসেবে নাম তুলেছিলেন।

এবার সবকিছু ছাপিয়ে আবারও খবরের শিরোনামে এসেছেন সুসুফান। এবার কারণটা একেবারেই ভিন্ন। বিয়ে করতে চলেছেন তিনি। দ্য ডেইলি মেইল এই খবর দিয়েছে।

শুধুমাত্র ঘোষণা দিয়েই ক্ষান্ত হননি ১৭ বছর বয়সী তরুণী সুসুফান। থাইল্যান্ডের রাজধানী ব্যাংককের এই বাসিন্দা তার চুলও একেবারে ছেঁটে ফেলেছেন। ছবি তুলেছেন নিজের হবু স্বামীর সঙ্গেও। সেই ছবি আবার সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্টও করেছেন তিনি।

ছবি পোস্ট করে সুসুফান সেখানে লিখেছেন, তুমি শুধু আমার প্রথম প্রেমই নও, তুমি আমার জীবনের ভালোবাসাও! ইতিপূর্বে সুসুফান বলেছিলেন, তিনি তার এমন চুলওয়ালা অবস্থা নিয়ে মোটেও বিচলিত হন। চুলওয়ালা বলেই তিনি বিশেষ ব্যক্তিত্ব।

লেজার ট্রিটমেন্ট দিয়েও তার চুলের এই বৃদ্ধি কোনোভাবেই রোধ করা যাচ্ছিল না। তবে সুসুফানের বাবা জানিয়েছেন যে, এখন সে নিয়মিত পুরো শরীর শেভ করেন।

চুল কাটার পর সুসুফান

আসলে বিষয়টা এমন যে, সুসুফান অ্যামব্রাস সিন্ড্রোম বা ওয়ারউলফ সিন্ড্রোম নামে এক ধরনের বিরল রোগে আক্রান্ত। এই রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের শরীরে চুলের বৃদ্ধি অস্বাভাবিকভাবে হয়ে থাকে। সুসুফানেরও ঠিক তাই হয়েছে।

উল্লেখ্য, বিশ্বের সবচেয়ে চুলওয়ালা মেয়ে হিসেবে ২০১০ সালে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডস নাম ওঠে এই তরুণী সুসুফানের। সুসুফানের চেহারা, কান, বগল, পা এবং পিঠেও অনেক চুল ছিল। যা দেখতে বিদঘুটে লাগে।

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...