জীবিত ফেরা যায় না এমন এক গ্রামের গল্প!

তবে ভিতকর গ্রাম হলেও এই গ্রামটি দেখতে খুবই সুন্দর

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আজ আমরা এমন একটি গ্রামের গল্প শোনাবো যে গ্রামে কেও গেলে আর জীবিত ফিরতে পারে না। সত্যিই কী পৃথিবীতে এমন গ্রাম আছে? আজ সেটি জেনে নিন।

ডেইলি মেইল এর খবরে বলা হয়েছে, এমন আজব একটি গ্রাম রয়েছে রাশিয়ায়। সেখানকার উত্তর ওশেটিয়ার ডারগাভস নামে একটি গ্রাম রয়েছে। যেটি বিশ্বের সবচেয়ে নির্জন এলাকা হিসেবে পরিচিত। যেখান গেলে কেও আর জীবিত ফিরে আসে না। তাই এই গ্রামটিকে মৃতদের শহর বলে ডাকা হয়। এই গ্রামটিকে ঘিরে রয়েছে ৫টি খাড়া পাহাড়। এই গ্রামের ঘরগুলোও পাহাড়ি পাথরে তৈরি করা হয়েছে।

তবে ভিতকর গ্রাম হলেও এই গ্রামটি দেখতে খুবই সুন্দর। তবে কেও এই গ্রামে যেতে সাহস পায় না। কারণ হলো সেখানে শুধু মৃতদেহরাই বসবাস করে। বিশ্বাস করা হয় যে স্থানীয় মানুষরা ওই গ্রামের ঘরগুলোতে তাদের আত্মীয়-স্বজনদের মৃতদেহগুলোই রেখে আসেন।

জানা যায়, পাহাড়ি এই গ্রামে এমন অসংখ্য ভবন রয়েছে যেখানকার ঘরগুলো ভূগর্ভস্থ। এই গ্রামের কয়েকটি ভবনে ৪টি পর্যন্ত তলা রয়েছে। এটি আসলে বিশাল একটি গোরস্থান বলা যায়। এই ভবনগুলোর প্রতিটি তলাতেই মৃতদেহ কবর দেওয়া হয়। গ্রামটিতে প্রায় ৯৯টি ভবন রয়েছে। আজ থেকে প্রায় ৫শ’ বছর পূর্বে ১৬ শতাব্দি থেকেই এই ভবনগুলোতে মৃতদেহ কবর দেওয়া হতো।

জানা যায়, স্থানীয়দের বিশ্বাস হলো যারা একা একা এই ভবনে যায় তারা আর কখনও জীবিত ফিরে আসে না। সে কারণেই এই গ্রামে কখনও কোনো পর্যটকও যায়নি। তাছাড়া পাহাড়ি এলাকা হওয়ার কারণে এখানকার আবহাওয়া ক্ষণেক্ষণেই বদলায়। যা ভ্রমণকারীদের জন্য একেবারেই উপযোগীও নয়। তাছাড়া ভয়ের কারণেই এই এলাকা মাড়াতে চান না কেও।

Advertisements
Loading...