The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

এসএসসি ফলাফল: ১৫৭৪ স্কুলে সবাই পাস ও ১০৯ প্রতিষ্ঠানে সবাই ফেল

তবে কোনো শিক্ষার্থীই পাস করেনি- এমন কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবার কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং সিলেট বোর্ডে নেই

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আজ এসএসসি ও সমমান পরীক্ষার ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। ১৫৭৪ স্কুলে সবাই পাস ও ১০৯ প্রতিষ্ঠানে সবাই ফেল করেছে।

এসএসসি ফলাফল: ১৫৭৪ স্কুলে সবাই পাস ও ১০৯ প্রতিষ্ঠানে সবাই ফেল 1

এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলে এবার শতভাগ শিক্ষার্থী পাসের প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা গতবারের থেকেও ৬৯২টি কমেছে। সবাই ফেল করেছে- এমন প্রতিষ্ঠানের সংখ্যাও বেড়েছে ১৬টি।

এবারের পরীক্ষায় পাসের হার নেমে এসেছে গত ৯ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম- ৭৭ দশমিক ৭৭ শতাংশে। পাস করা শিক্ষার্থীদের মধ্যে ১ লাখ ১০ হাজার ৬২৯ জন শিক্ষার্থী এবার জিপিএ-৫ পেয়েছে।

সারাদেশে মোট ২৮ হাজার ৫৫৮টি প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা মাধ্যমিক পরীক্ষা দিয়েছে; গতবছর এই সংখ্যা ছিল ২৮ হাজার ৩৫৯।

এ বছরের পরীক্ষায় সারাদেশে ১ হাজার ৫৭৪টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছে। গত বছর ২ হাজার ২৬৬টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শতভাগ শিক্ষার্থী উত্তীর্ণ হয়েছিল।

হিসাব অনুযায়ী এবার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা ১৯৯টি বাড়লেও শতভাগ পাস করা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সংখ্যা আরও কমেছে ৬৯২টি।

পাস করা প্রতিষ্ঠানের মধ্যে রয়েছে ঢাকা বোর্ডে ১৮৪টি, রাজশাহী বোর্ডে ২০৬টি, কুমিল্লা বোর্ডের ৭৪টি, দিনাজপুর বোর্ডে ৮৪টি, সিলেট বোর্ডে ২৩টি, যশোর বোর্ডে ৭৩টি, বরিশাল বোর্ডে ৫০টি ও চট্টগ্রাম বোর্ডে ২৭টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সব শিক্ষার্থীই পাস করেছে।

অপরদিকে মাদ্রাসা বোর্ডের ৭৫৭টি ও কারিগরি বোর্ডের ৯৬টি প্রতিষ্ঠানের সকলেই পাস করেছে।

এ বছর দিনাজপুর বোর্ডে ৫টি, ঢাকা ও বরিশাল বোর্ডে ৩টি করে এবং রাজশাহী ও যশোর বোর্ডে ১টি করে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে শতভাগ পরীক্ষার্থী ফেল করেছে এসএসসি পরীক্ষায়।

তবে কোনো শিক্ষার্থীই পাস করেনি- এমন কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবার কুমিল্লা, চট্টগ্রাম এবং সিলেট বোর্ডে নেই।

অপরদিকে মাদ্রাসা বোর্ডের ৯৬টি প্রতিষ্ঠানের সব পরীক্ষার্থী এবার ফেল করেছে। তবে কারিগরি বোর্ডে এরকম কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এবার নেই।

ফল পুনঃনিরীক্ষা করতে হবে যেভাবে

মুঠোফোন অপারেটর টেলিটক হতে আগামীকাল অর্থাৎ ৭ মে হতে ১৩ মে পর্যন্ত এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার ফলাফলের পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করা যাবে। ফল পুনঃনিরীক্ষণের আবেদন করতে হলে RSC লিখে স্পেস দিয়ে তারপর বোর্ডের নামের প্রথম তিনটি অক্ষর লিখে স্পেস দিয়ে রোল নম্বর লিখে তারপর স্পেস দিয়ে বিষয় কোড লিখে ১৬২২২ নম্বরে পাঠিয়ে দিতে হবে।

ফিরতি এসএমএসে ফি বাবদ কতো টাকা কেটে নেওয়া হবে- সেটি জানিয়ে একটি পিন নম্বর (পার্সোনাল আইডেন্টিফিকেশন নম্বর) দেওয়া হবে। আবেদনে সম্মত থাকলে RSC লিখে তারপর স্পেস দিয়ে YES লিখে স্পেস দিয়ে পিন নম্বরটি লিখে স্পেস দিয়ে যোগাযোগের জন্য একটি মোবাইল নম্বর লিখে ১৬২২২ নম্বরে এসএমএস পাঠাতে হবে। প্রতিটি বিষয় ও প্রতি পত্রের জন্য ১২৫ টাকা হারে চার্জ কাটা যাবে। তাই সেই পরিমাণ টাকা রেখে তবেই এই কাজগুলো করতে হবে।

অপরদিকে যেসব বিষয়ের দুটি পত্র (যেমন- প্রথম ও দ্বিতীয় পত্র) রয়েছে, সেসব বিষয়ের ফলাফলের পুনঃনিরীক্ষার আবেদন করলে দুটি পত্রের জন্য মোট ২৫০ টাকা ফি দিতে হবে। একই এসএমএসে একাধিক বিষয়েরও আবেদন করা যাবে, এক্ষেত্রে বিষয় কোড পর্যায়ক্রমে ‘কমা’ দিয়ে লিখতে হবে।

উল্লেখ্য, গত ১ ফেব্রুয়ারি শুরু হয়ে ২৫ ফেব্রুয়ারি এসএসসি ও সমমানের পরীক্ষার তত্ত্বীয় ও ২৬ ফেব্রুয়ারি হতে ৪ মার্চ ব্যবহারিক পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। এ বছর ১০টি শিক্ষা বোর্ডের আওতায় ১ ফেব্রুয়ারি হতে অনুষ্ঠিতব্য এসএসসি ও সমমান পরীক্ষায় অংশ নেয় ২০ লাখ ৩১ হাজার ৮৯৯ জন শিক্ষার্থী। এর মধ্যে ছাত্র হলো ১০ লাখ ২৩ হাজার ২১২ জন। ছাত্রী হলো ১০ লাখ ৮ হাজার ৬৮৭ জন। ২০১৭ সালের তুলনায় এ বছর পরীক্ষার্থী বেড়েছে ২ লাখ ৪৫ হাজার ২৮৬ জন।

বিস্তারিত জানতে আরও পড়ুন- এসএসসিতে গড় পাসের হার ৭৭.৭৭ শতাংশ: যেভাবে পাওয়া পাবে পরীক্ষার ফলাফল

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...