The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

বিশ্বের অদ্ভুত নাম: এক ব্যক্তি সন্তানের নাম রাখলেন গুগল!

নামের আগে পিছে অন্য কিছু নেই। স্রেফ গুগল নাম রেখেছেন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ নামকরণ নিয়ে পৃথিবীতে অনেক মজার মজার ঘটনা ঘটে থাকে। তবে সব মজায় এবার ছাড়িয়ে গেছে সম্প্রতি রাখা একটি শিশুর নাম। শিশুর নাম রাখা হয়েছে গুগল। এই নামটি নেটদুনিয়ায় রীতিমতো হইচই পড়ে গেছে!

বিশ্বের অদ্ভুত নাম: এক ব্যক্তি সন্তানের নাম রাখলেন গুগল! 1

ইন্দোনেশিয়ার জাভা প্রদেশের এক দম্পত্তি তাদের প্রথম সন্তানের নাম রেখেছেন গুগল। নামের আগে পিছে অন্য কিছু নেই। স্রেফ গুগল নাম রেখেছেন তার সন্তানের। তাই এই নামটি ‘বিশ্বের সবচেয়ে অদ্ভুত নাম’ হিসেবে বিবেচিত হচ্ছে।

ইন্দোনেশিয়ার জাভা প্রদেশের ওই দম্পত্তির নাম এন্ডি চাহা সুপুত্রা ও এলা কারিন। এলা কারিন যখন প্রথম অন্তঃসত্ত্বা হন তখন স্বামী এন্ডি চাহা সিদ্ধান্ত নেন যে, তাদের সন্তানের নাম সাধারণ কোনো নাম রাখবেন। তবে এলা যখন ৭ মাসের অন্তঃসত্ত্বা তখন এন্ডি সিদ্ধান্ত পাল্টে ঠিক করেন যে সন্তানের নাম প্রযুক্তির সঙ্গে মিলিয়ে কোনো বিশেষ বা ব্যতিক্রমি নাম রাখবেন।

তারপর এন্ডি চাহা আইফোন, উইনডোজ, মাইক্রোসফট, আইওএস নাম নির্ধারণ করেন। কিন্তু দু:খের বিষয় হলো ওপরের কোনো নামই তার মনোপুত হচ্ছিলো না। অবশেষে তিনি ঠিক করলেন তার সন্তানের নাম হবে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগলের নামেই অর্থাৎ তার সন্তানের নাম হবে গুগল।

যদিও প্রথম দিকে স্ত্রী এলার এই নামটি পছন্দ হয়নি। এমনকি তার নামটি এতোটাই অপছন্দ হয়েছিল যে, প্রথম ৩ মাস তিনি কাওকে তার সন্তানের নাম পর্যন্ত বলেননি। তবে ধীরে ধীরে তারও এই নাম পছন্দ হতে থাকে। কারণ তিনিও আশা করতে থাকেন তার সন্তান গুগলের মতোই একদিন বিখ্যাত হয়ে উঠবেন।

তবে কেনো তিনি সন্তানের নামের আগে পিছে কোনো কিছুর নাম যোগ করেননি? স্থানীয় গণমাধ্যমের করা এক প্রশ্নের জবাবে এন্ডি চাহা বলেন, আমি চাইনি গুগলের সঙ্গে অন্যকোনো নাম যোগ হয়ে এই নামের মহত্বটি নষ্ট হোক। তিনি আরও বলেন, প্রতিদিন যেমন গুগলের কাছে অসংখ্য মানুষ উপকৃত হয়, ঠিক তেমন আমার সন্তানও বড় হয়ে মানুষের উপকার করবে বা উপকারে আসবে।

তবে এই গুগল নাম রেখে এন্ডি চাহা এবং এলা দম্পত্তি খুশি হলেও তাদের বেশ বিড়ম্বনায় পড়তে হচ্ছে প্রতিনিয়ত। অনেকেই মজা করে তাদের পরের সন্তানের নাম হোয়াটস আপ রাখতে বলেছেন। তবে এই ঠাট্টা-মশকরা মোটেও গায়ে মাখছেন না এই দম্পতি। কারণ তারা আশাবাদী যে, তাদের সন্তান একদিন গুগলের মতোই বিখ্যাত হবেন।

Loading...