The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

রাতারাতি কোটিপতি হওয়া ২৪ বছরের এক যুবকের গল্প!

হাতে ‘চাঁদ’ পেয়ে জীবনটাকে এখন অন্যভাবে উপভোগ করছেন এই কোটিপতি যুবক

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মানুষ পরিশ্রম করলে কোটিপতি হতে পারেন সেটি বাস্তব ঘটনা। কিন্তু রাতারাতি কোটিপতি হওয়া অনেকটা ভাগ্যের ব্যাপার। কারণ লটারিতে জিতে রাতারাতি কোটিপতি হওয়া যায়। তবে ২৪ বছরের এক যুবক লটারি ছাড়াই রাতারাতি কোটিপতি হয়েছেন!

রাতারাতি কোটিপতি হওয়া ২৪ বছরের এক যুবকের গল্প! 1

এই যুবক রাতারাতি কোটিপতি হওয়ার বিষয়টি এমনভাবে কাজ করেছে যে এক রাতের মধ্যেই সারা বিশ্ব তাকে চিনে ফেললো। এক রাতের মধ্যেই তিনি বিশ্বের ধনীতমদের তালিকায় জায়গা করে নিলে।

যার কথা এই মুহূর্তে বলা হচ্ছে, তিনি মাত্র ২৪ বছর বয়সী একজন টগবগে যুবক। সবে পড়াশোনা শেষ করেছেন তিনি। কোটি কোটি ডলারের মালিক হওয়ার জন্য একবিন্দুও পরিশ্রম করতে হয়নি এই যুবককে। যেনো আকাশের চাঁদ নিজে থেকেই তার হাতে চলে এসেছে এমন একটি ঘটনা!

হাতে ‘চাঁদ’ পেয়ে জীবনটাকে এখন অন্যভাবে উপভোগ করছেন এই কোটিপতি যুবক। কখনও নামী মডেলদের সঙ্গে পার্টি করছেন আবার কখনও বিল গেটসদের সঙ্গে একই টেবিলে ওঠাবসাও করছেন। আবার কখনও নামজাদা অভিনেতার পাশে বসে বাস্কেটবল খেলা দেখছেন এই যুবক।

ওই কোটিপতি যুবকের নাম এরিক সে। ওয়াশিংটনের সিয়াটল-এ জন্ম হলেও এরিকের বেড়ে ওঠা কিন্তু হংকং-এ। তিনি হংকংয়ের স্কুলেই পড়াশোনা করেছেন। পেনসিলভেনিয়ার হোয়ারটন স্কুল হতে তিনি অর্থনীতিতে ডিগ্রি অর্জন করেছেন। তিনি বেজিংয়ের সিনহুয়া বিশ্ববিদ্যায়ের স্কলার ছিলেন।

হয়তো এতোকিছু শোনার পর আপনারও জানতে ইচ্ছা করছে তো কীভাবে রাতারাতি কোটি কোটিপতি হয়ে উঠলেন এই যুবক? আসলেও তাই, ৩৮৮ কোটি ডলার উপহার পেয়েই রাতারাতি বিলিয়নেয়ার হয়ে গিয়েছেন এই ২৪ বছর বয়সী যুবক এরিক সে।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, এরিকের বাবার পারিবারিক ব্যবসা রয়েছে। সাইনো বায়োফার্মাসিউটিকল লিমিটেডের প্রতিষ্ঠাতা তার বাবা। আর তার মা হলেও ওই সংস্থাটির এগজিকিউটিভ ডিরেক্টর।

তাদের এই সংস্থাটির সম্পত্তির পরিমাণ বর্তমানে ৮৫০ কোটি ডলার। সেই সম্পত্তির একটা অংশই তার ছেলে এরিককে উপহার দিয়েছেন টেসি দম্পতি। যে কারণে রাতারাতি বিলিয়নিয়র হয়ে উঠেছেন এরিক সে।

এই বিলিয়নেয়ার হওয়ার পর কেমন জীবন কাটাচ্ছেন এরিক? তার বিলাসবহুল জীবনের পরিচয় সোশ্যাল মিডিয়া থেকেই পাওয়া যাবে।

রিহানা, বেলা হাদিদের মতো একাধিক সেলিব্রিটির সঙ্গে দুর্দান্ত নানা ছবি আপলোড করেছেন এরিক। তাদের সঙ্গে পার্টি করে বেড়াচ্ছেন তিনি। কখনও কখনও ফ্রান্সের প্রাক্তন ফার্স্ট লেডি কার্লা ব্রুনির সঙ্গেও তাকে দেখা যাচ্ছে। আবার কখনও ইউরোপের মোনাকের প্রিন্সেস চার্লিনের সঙ্গে ফটোশুট করছেন এরিক। কখনও তিনি ডলফিনের সঙ্গে স্নান উপভোগ করছেন।

তার এই সম্পত্তি রাতারাতি স্টারবাকস্-এর প্রতিষ্ঠাতা হোয়ার্ড ও স্ন্যাপচ্যাট-এর সিইও ইভানের থেকেও বেশি হয়ে গেছে।

ফোর্বস ম্যাগাজিনের এক তথ্যে জানা যায়, এই উপহার তাকে বিশ্বের প্রথম সাড়ে ৫শ’ জন ধনীর তালিকায় নিয়ে এসেছে।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, এই কোটিপতি যুবক এরিক ঘুরতে ভীষণ পছন্দ করেন। কখনও দুবাই যান, কখনও আবার রাশিয়া, তো কখনও প্যারিসে চলে যান এই যুবক। সোশ্যাল মিডিয়ায় তার ১০ হাজার ফলোয়ারের জন্য ছবি তুলতেও কখনও পিছপা হন না এরিক।

তথ্যসূত্র: আনন্দবাজারপত্রিকা

Loading...