The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

রাফলেসিয়া তুয়ান-মুদাই বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফুল!

সুমাত্রার বড়লাট স্ট্যামফোর্ড রাফালেস এবং আবিষ্কারক জোসেফ আর্নল্ড-এর নামের কিছু অংশ মিলিয়ে ফুলটির নাম রাখা হয়েছে ‘রাফলেসিয়া আরনোলডি’

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সত্যিই এক ব্যতিক্রমি ফুল বটে! তাই বলে এতো বিশাল হতে পারে ফুল! ঠিক তাই ইন্দোনেশিয়ায় বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই ফুলের দেখা পাওয়া গেছে।

রাফলেসিয়া তুয়ান-মুদাই বিশ্বের সবচেয়ে বড় ফুল! 1

সত্যিই এক ব্যতিক্রমি ফুল বটে! তাই বলে এতো বিশাল হতে পারে ফুল! ঠিক তাই ইন্দোনেশিয়ায় বিশ্বের সবচেয়ে বড় এই ফুলের দেখা পাওয়া গেছে।

সংবাদ মাধ্যমের এক খবরে জানা যায় যে, এই বৃহদাকৃতির লাল রঙের সাদা ছোপ ছোপ দাগ যুক্ত ফুলটির নাম হলো রাফলেসিয়া তুয়ান-মুদাই। এটি মূলত রাফলেসিয়া পরিবারভুক্ত একটি ফুল। সম্প্রতি ফোটা এই ফুলটির আকার ১১১ সেন্টিমিটার (৩.৬ ফুট)। কয়েক বছর পূর্বে একই জাতের ফুলের দেখা পাওয়া গিয়েছিলো ইন্দোনেশিয়ার পশ্চিম সুমাত্রার জঙ্গলে। সেই ফুলটির আকৃতি ছিল একটু ছোট ১০৭ সেন্টিমিটার।

সুমাত্রার আগাম কনজারভেশন সংস্থার আদে পুত্রা এই বিষয়ে বলেছেন, এখন পর্যন্ত নজরে আসে সবগুলো রাফলেসিয়া তুয়ান-মুদাইয়ের মধ্যে এটিই সবচেয়ে বড় ফুল বলা যাবে। এটি সপ্তাহ ধরে সতেজ থাকে এরপরই এটি শুকিয়ে পঁচে নষ্ট হতে থাকে। পরজীবী ফুলটি মৃতদেহের ফুল হিসাবেও অধিক পরিচিত। খাওয়ার জন্য পোকামাকড়কে আকর্ষণ করতে এই ফুল পচা মাংসের মতোই গন্ধ ছড়ায়।

সংবাদ মাধ্যমের এক খবরে জানা যায় যে, ব্রিটিশ সাম্রাজ্যবাদী স্যার স্টামফোর্ড রাফালেসের নাম অনুসারেই এ ফুলের নাম রাখা হয়েছে রাফলেসিয়া। দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে এই জাতের ফুলের দেখা পাওয়া যায়। ইতিপূর্বে ফিলিপাইনে ১০০ সেন্টিমিটার আকৃতির রাফলেসিয়া ফুলের দেখা পাওয়া গিয়েছিলো।

আর এটি প্রথম পাওয়া যায় ১৮১৮ সালে ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রার এক জঙ্গলে। সুমাত্রার বড়লাট স্ট্যামফোর্ড রাফালেস এবং আবিষ্কারক জোসেফ আর্নল্ড-এর নামের কিছু অংশ মিলিয়ে ফুলটির নাম রাখা হয়েছে ‘রাফলেসিয়া আরনোলডি’।

সংবাদ মাধ্যমের এক খবরে আরও জানা যায় যে, এই ফুলের বড় ও পুরু ৫টি পাপড়ি থাকে। ফুলের ব্যাস দেড় থেকে ৩ ফুট পর্যন্ত হয়ে থাকে। পাতা না থাকায় নিজের খাদ্য নিজেই তৈরি করতে পারে না এই ফুল। এই ফুল সৌন্দর্য ফুলপ্রেমীদের মুগ্ধ করলেও এর গন্ধ কাওকেই কোনোভাবেই আকৃষ্ট করে না। কাছে গেলে ফুলটি থেকে পচা মাংসের দুর্গন্ধ বের হয়ে আসে। সে কারণে অনেকেই এই ফুলকে ‘মৃতফুল’ বলেও অভিহিত করে থাকেন।

Loading...