The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পরীক্ষার খাতার অতিরিক্ত নম্বর অন্যকে দেওয়ার অনুরোধ!

শিক্ষার্থীর আবেদন এখন সকলের মধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাঝে মধ্যে কিছু বিদঘুটে ঘটনা আমাদের মধ্যে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে। যেমন এক শিক্ষার্থীর আবেদন এখন সকলের মধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে।

পরীক্ষার খাতার অতিরিক্ত নম্বর অন্যকে দেওয়ার অনুরোধ! 1

মাঝে মধ্যে কিছু বিদঘুটে ঘটনা আমাদের মধ্যে বেশ আলোড়ন সৃষ্টি করে। যেমন এক শিক্ষার্থীর আবেদন এখন সকলের মধ্যে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে।

মাঝে মধ্যেই দেখা যায়, শিক্ষার্থীরা পরীক্ষার খাতায় শিক্ষককে উদ্দেশ্য করে অনেক কিছুই লিখে থাকেন। তবে সেগুলো বেশির ভাগই থাকে নাম্বার বেশি দেওয়া বা পাস করে না দিলে তিনি কি সমস্যায় পড়বেন সেই বিষয়গুলো। তবে এবার একটু ব্যতিক্রমি ঘটনার খবর হলো এক শিক্ষার্থী তার পরীক্ষার খাতায় তেমনি ভিন্ন একটি বিষয় লিখেছেন। একাদশ শ্রেণির এক ছাত্র সম্প্রতি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের হৃদয় জিতে নিয়েছেন। যুক্তরাষ্ট্রের এক স্কুলশিক্ষক পোস্ট দিয়ে তার সেই ছাত্রের সঙ্গে পরিচয় করিয়ে দিয়েছেন। ওই ছাত্র পরীক্ষায় তার বোনাস পয়েন্ট অন্যকে দেওয়ার অনুরোধ করেছেন!

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের কেন্টাকির এক স্কুলের শিক্ষক উইনস্টন লি সম্প্রতি ফেসবুকে একটি পোস্টও করেন। সেখানে তিনি একটি পরীক্ষার খাতার ছবি দিয়ে লিখেছেন যে- এক ছাত্র তার বোনাস ৫ পয়েন্ট কোনো ‘দুর্বল’ পড়ুয়াকে দেওয়ার অনুরোধ করেছেন। ছবিতেও দেখা যায় যে, খাতার একদম নিচে ওই ছাত্র শিক্ষককে উদ্দেশ করে লিখেছেন, ‘যদি সম্ভব হয় তবে তার বোনাস পয়েন্ট যেনো অন্য কাওকে দিয়ে দেওয়া হয়।’

ছবিতে আরও দেখা যায় যে, ছাত্রটি মোট ৯৪ নম্বর পেয়েছেন। যে কারণে সে ৫ পয়েন্ট বোনাস পায়। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের চ্যাট শো ‘গুড মর্নিং আমেরিকা’য় লি জানিয়েছেন যে, তার ১২ বছরের শিক্ষকতা জীবনে এমন অনুরোধ কখনও তিনি দেখেননি। একই সঙ্গে তিনি জানিয়েছেন যে, ওই ছাত্রের অনুরোধ মেনে বোনাস পয়েন্ট অন্য একজনকে দেওয়াও হয়েছে। যদিও কারও পরিচয় ওই শিক্ষক প্রকাশ করেন নি।

কোলকাতার প্রবাবশালী দৈনিক আনন্দবাজার পত্রিকার এক খবরে বলা হয়, উইনস্টন লির সেই পোস্ট বর্তমানে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারকারীদের টাইমলাইনে ঘুরে বেড়াচ্ছে। প্রায় সবাই ওই উদার ছাত্রের এমন কাজের প্রশংসাও করেছেন। ২২ ফেব্রুয়ারির পোস্টটি এখন পর্যন্ত ৯৩ হাজারের বেশি লাইক পেয়েছে। সেই সঙ্গে পোস্টটি শেয়ার হয়েছে ৬৫ হাজারেরও বেশি বার। প্রায় ৫ হাজার জন ওই পোস্টে কমেন্টও করেছেন।

Loading...