The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে করোনা সনাক্তকরণ পদ্ধতি উদ্ভাবন

ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক॥ কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি ব্যবহার করে কোভিড-১৯ সনাক্তকরণের নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছে বলে দাবি করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পাবলিক হেলথ বিভাগ, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ইউনিট ও কার্ডিওকেয়ার জেনারেল ও স্পেশালাইজড হাসপাতালের একদল গবেষক এই দাবি করেছেন। খবর সংবাদ মাধ্যম সূত্রের।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ব্যবহার করে করোনা সনাক্তকরণ পদ্ধতি উদ্ভাবন 1

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি ব্যবহার করে কোভিড-১৯ সনাক্তকরণের নতুন পদ্ধতি উদ্ভাবন করেছে বলে দাবি করেছে ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটি। ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির পাবলিক হেলথ বিভাগ, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ইউনিট ও কার্ডিওকেয়ার জেনারেল ও স্পেশালাইজড হাসপাতালের একদল গবেষক এই দাবি করেছেন। খবর সংবাদ মাধ্যম সূত্রের।

২২ মার্চ রবিবার বিকালে ইউনিভার্সিটির জনসংযোগ দফতরের ঊর্ধ্বতন সহকারী পরিচালক মোঃ আনোয়ার হাবিব কাজল এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এই তথ্য জানিয়েছেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, এই গবেষক দলে রয়েছেন, ড্যাফোডিল ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির অ্যালাইড হেলথ সায়েন্স অনুষদের সহযোগী ডিন অধ্যাপক ডাঃ আবু নাসের জাফর উল্লাহ, পাবলিক হেলথ বিভাগের প্রধান ড. এ.বি.এম আলাউদ্দিন চৌধুরী, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ইউনিটের মো. লিয়াকত আলী, শেখ মোঃ ফয়সাল, মো. হাবিবুর রহমান, কার্ডিওকেয়ার জেনারেল এবং স্পেশালাইজড হাসপাতালের ইন-চার্জ মো. নাসির উদ্দীন এবং মো. মেহেদী হাসান।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, গকেষকরা জানিয়েছেন যে, ফুসফুসের বিভিন্ন জটিল রোগ নির্ণয়ে রেডিওলজি একটি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কোভিড-১৯ নির্ণয়েও রেডিওলোজি তথা ‘চেস্ট রেডিওলোজি’ মডেল ও কৃত্রিম বৃদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি ব্যবহার করা সম্ভব।

গবেষকরা আরও জানিয়েছেন, কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা প্রযুক্তি ব্যবহার করে ড্যাফোডিল ইউনিভার্সিটি এমন একটি সফটওয়্যার তৈরি করেছে যে সফটওয়্যারটি রোগীর বুকের এক্সরে ও ফুসফুসের সিটি স্ক্যানের ছবি বিশ্লেষণের মাধ্যমে ‘কোভিড-১৯’ সনাক্ত করতে বিশেষ সাহায্য করবে।

এই সফটওয়্যারের মাধ্যমে ৯৬ ভাগ সঠিকভাবে ‘কোভিড-১৯’ রোগ নির্ণয় করা যাবে বলেও দাবি করেছেন এরসঙ্গে সংশ্লিষ্ট গবেষকরা।

গবেষকরা সফটওয়্যার তৈরির পাশাপাশি একটি ওয়েবসাইট নির্মাণ করছেন। যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমোদন সাপেক্ষে এই ওয়েবসাইটে রোগীর এক্সরে ছবি আপলোড করার মাধ্যমে কোভিড-১৯ সহ যেকোনো ফুসফুসজনিত রোগ সনাক্ত করা সম্ভব হবে বলেও জানিয়েছেন গবেষক দলের প্রধান প্রফেসর ডাঃ. আবু নাসের জাফর উল্লাহ। এছাড়াও গবেষক দলের প্রধানের (ফোন: ০১৭৭৫৩২৫০৬১) সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ করে বিস্তারিত জানা যাবে বলেও বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে।

Loading...