The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ব্রাহ্মণ-কন্যা হয়েও হিন্দু নারী পুরো মাস রোজা রাখছেন!

তার এই রোজা পালনের ঘটনায় ইতিমধ্যেই সর্বত্র সাড়া পড়ে গেছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ভারতে হিন্দুত্ববাদী মোদি সরকারের বিরুদ্ধে যখন ধর্মীয় মেরুকরণের অভিযোগ উঠছে বার বার, তখন খোদ দিল্লিতেই ধর্মীয় সম্প্রীতির একটি অনন্য নজির সামনে এসেছে। হিন্দু ব্রাহ্মণ-কন্যা হয়েও রোজা পালন করে চলেছেন এক নারী!

ব্রাহ্মণ-কন্যা হয়েও হিন্দু নারী পুরো মাস রোজা রাখছেন! 1

তার এই রোজা পালনের ঘটনায় ইতিমধ্যেই সর্বত্র সাড়া পড়ে গেছে। সকল ধর্মের মধ্যে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি এবং শান্তি বৃদ্ধির লক্ষ্যে মুসলিমরা পবিত্র রমজান মাসে উপবাস পালন করছেন জানিয়ে ইতিহাসের স্নাতক ৫২ বছর বয়সী জয়শ্রী শুক্লা বলেছেন, ‘প্রেম, শান্তি ও ভ্রাতৃত্ব বৃদ্ধি করার জন্য এটিই তার অনন্য উপায়।’

তিনি সংবাদ মাধ্যম আনাদুল এজেন্সিকে বলেছেন,পর্যবেক্ষক এবং ফটোগ্রাফার হিসাবে ভারতের বৃহত্তম মসজিদগুলোতে একাধিকবার আমার যাওয়ার সুযোগও হয়েছে। আমি মসজিদে মুসলমানদের সঙ্গে মিশে গিয়েছিলাম। তাদের সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি এবং ভ্রাতৃত্ববোধ আমাকে সব সময় মোহিত করে। আর তাই আমি মুসলিম সংস্কৃতির প্রেমে পড়ে যাই।

শুক্লা আরও বলেন, ‘মসজিদে কেও কখনও আমাকে জিজ্ঞাসা করেনি আমি কোন ধর্মের অন্তর্ভুক্ত। সন্ধ্যায় ইফতারের সময় লোকেরা আমাকে বাড়ি থেকে আনা খাবার সরবরাহ করতো। তাদের এসব সংস্কৃতি আমার হৃদয় ছুঁয়েছে। আমি সেখানে সংখ্যালঘু ছিলাম, তবুও তারা আমার সঙ্গে এতো শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার আচরণ করেছে।’ ২০১৯ সাল থেকে রোজা রাখছেন বলেও জানিয়েছেন জয়শ্রী শুক্লা।

২০১২ সালের ভারতীয় সাধারণ নির্বাচনের বিজেপি জয়লাভের পর ক্রমবর্ধমান ধর্মীয় বিদ্বেষ ও মেরুকরণের কারণে একটা সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির সেতু নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা অনুভব করে আসছেন জয়শ্রী শুক্লা। তিনি বলেন, তিনি বিশ্বাস করেন যে মুসলিম সম্প্রদায়ের প্রতি সংহতি প্রকাশ করা আমার জন্য জরুরি ছিল। পরিবারের নানা চাপ থাকা সত্ত্বেও তিনি রোজা পালন করছেন।

শুক্লার স্বামী, রাজেশ শ্রীবাস্তব একজন প্লেসমেন্ট অফিসার। গত বেশ কয়েক বছর ধরে উত্তর প্রদেশে তার পৈতৃক বাড়িতেই ইফতার পার্টির আয়োজন করছেন। শুক্লা বলেন, ‘কেও আমাকে সরাসরি জিজ্ঞাসাবাদ করেনি, তবে পরিবারের কিছু লোকজন অস্বস্তি বোধ করেছে। যদিও আমি নিজের জায়গায় ধর্মভ্রষ্ট বা ধার্মিক কোনটাই আমি নই। আমি একটি ব্রাহ্মণ পরিবার হতে এসেছি, সুতরাং অস্বস্তি থাকবে এটাই খুব স্বাভাবিক।’

শুক্লাকে কেওই রোজা রাখতে বা মুসলিম সংস্কৃতিতে আগ্রহী হওয়ার জন্য কখনও প্রভাবিত করেনি। এই বছর করোন ভাইরাস লকডাউনের কারণে শুক্লা তার মুসলিম ড্রাইভারের সঙ্গে রোজা করছেন এবং পুরো মাস রোজা রাখবেন বলেও সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। জয়শ্রী শুক্লা মনে করেন যে, এটি সম্প্রদায়িক সম্প্রীতির সেতু নির্মাণে ও অন্য সংস্কৃতিকে আরও ভালোভাবে বুঝতে সহায়তা করে থাকে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...