The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

অফলাইন ভয়েস কমান্ড প্রযুক্তি: ‘হ্যালো ওয়ালটন’ বললেই চালু হবে এসি!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ যতো দিন গড়াচ্ছে ততোই বাড়ছে প্রযুক্তির ব্যবহার। এবার দেশীয় প্রযুক্তি নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ওয়ালটম এমন এক অফলাইন ভয়েস কমান্ড প্রযুক্তি নিয়ে এলো। এখন থেকে ‘হ্যালো ওয়ালটন’ বললেই চালু হবে এসি!

অফলাইন ভয়েস কমান্ড প্রযুক্তি: ‘হ্যালো ওয়ালটন’ বললেই চালু হবে এসি! 1

গত বৃহস্পতিবার গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন কারখানায় এসি সার্ভিস এক্সপার্টদের নিয়ে এক সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। ওই সম্মেলনে ওয়ালটন জানিয়েছে, কথা বলেই নিয়ন্ত্রণ করা যাবে এসি। রিমোট ব্যবহারের আর কোনো প্রয়োজন পড়বে না। অফলাইন ভয়েস কমান্ড প্রযুক্তির ওই এসি বাজারে ছেড়েছে বাংলাদেশী সুপারব্র্যান্ড ওয়ালটন। খবর বিজ্ঞপ্তির।

‘ওশেনাস সিরিজ’-এর এই এসিতে ব্যবহৃত হয়েছে ব্যাপক বিদ্যুৎ–সাশ্রয়ী ইনভার্টার প্রযুক্তি। রয়েছে ইউভি (আলট্রা ভায়োলেট) কেয়ার, ফ্রস্ট ক্লিনসহ অত্যাধুনিক সকল সুবিধা। গাজীপুরের চন্দ্রায় ওয়ালটন কারখানায় এসি সার্ভিস এক্সপার্টদের নিয়ে অনুষ্ঠিত দেশের সর্ববৃহৎ সম্মেলনে নতুন মডেলের ওই এসি উন্মোচন করেছেন প্রতিষ্ঠানটির পরিচালক এস এম মাহবুবুল আলম।

সম্মেলনে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত হতে আগত এসি সার্ভিস এক্সপার্ট অংশ নেন। এই সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়ালটন হাইটেক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ডেপুটি ম্যানেজিং ডিরেক্টর আলমগীর আলম সরকার এবং হুমায়ূন কবীর, ওয়ালটন এসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা তানভীর রহমান, চীফ টেকনিক্যাল অফিসার ওয়াল্টার কিম, এক্সিকিউটিভ ডিরেক্টর এস এম জাহিদ হাসান, উদয় হাকিম, ইউসুফ আলী, কর্নেল (অব.) শাহাদাত আলম প্রমুখ।

প্রকৌশলী আরিফুল ইসলাম জানিয়েছেন, অফলাইন ভয়েস কমান্ড এসি ইনস্টলেশনের পর পাওয়ার সংযোগ থাকা অবস্থায় ভয়েস কমান্ড দিয়েই পরিচালনা করা যাবে। বিদ্যুৎ–সংযোগ থাকা অবস্থায় এসিটি স্ট্যান্ডবাই মোডেই থাকবে। এই সময় ‘হ্যালো ওয়ালটন’ বললেই এসিটির ‘অ্যাকটিভ মোড’ অন হয়ে যাবে। তারপর ‘এসি স্টার্ট’ বললেই এসি চালু হবে। এই সময় ব্যবহারকারী কথা বলে নির্দেশনা দিয়েই এসিটি পরিচালনা করতে পারবেন। নির্দিষ্ট তাপমাত্রা সেট করতে হলে ‘কুল মোড’ কমান্ড দিয়ে কাঙ্ক্ষিত তাপমাত্রা বলতে হবে। যেমন ‘টোয়েন্টি ডিগ্রি’ বললে এসিটি তাপমাত্রা ২০ ডিগ্রিতেই সেট হবে। এসিটি বন্ধ করতে হলে ‘এসি অফ’ বলতে হবে।

বলা হয়েছে যে, ১০ সেকেন্ড কোনো কমান্ড না দিলেই এসিটি ‘স্ট্যান্ডবাই মোড’-এ চলে যাবে। এক্ষেত্রে ব্যবহারকারীকে পুনরায় ‘হ্যালো ওয়ালটন’ বলে ‘অ্যাকটিভ মোড’ অন করতে হবে। কমান্ড দেওয়ার ৩ সেকেন্ড পর আরেকটি কমান্ড দেওয়া যাবে।

ওয়ালটন এসির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) তানভীর রহমান বলেন, ২০১০ সাল হতে বাংলাদেশে নিজস্ব কারখানায় এসি উৎপাদন শুরু করেছেন তারা। ওয়ালটনের রয়েছে দেশ-বিদেশী প্রকৌশলীদের নিয়ে গঠিত শক্তিশালী আরএন্ডডি (গবেষণা ও উন্নয়ন) বিভাগ, যাদের নিয়মিত গবেষণায় একের পর এক অত্যাধুনিক প্রযুক্তি এবং ফিচারের এসি উৎপাদন ও বাজারজাত করা সম্ভব হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় ক্রেতাদের জন্য ভয়েস কমান্ড এসি নিয়ে এলো ওয়ালটন।

অনলাইন অটোমেশনের আওতায় এসির গ্রাহকদের আরও সহজে দ্রুত বিক্রয়োত্তর সেবা দেওয়ার লক্ষ্যে সারাদেশে ডিজিটাল ক্যাম্পেইন পরিচালনা করে আসছে ওয়ালটন। বর্তমানে চলছে ক্যাম্পেইন সিজন ৯। এর আওতায় ওয়ালটন এসি কিনে গ্রাহকরা ২১ বছর পর্যন্ত বিদ্যুৎ বিল ফ্রি পাওয়ার সুযোগও পাচ্ছেন। নগদ মূল্যের পাশাপাশি ওয়ালটন এসি কিস্তি ও ইএমআই সুবিধায় কেনার সুযোগও পাচ্ছেন। সেইসঙ্গে যে কোনো ব্র্যান্ডের পুরোনো এসি বদলে ২৫ শতাংশ ছাড়ে গ্রাহকরা ওয়ালটনের নতুন এসি কিনতে পারছেন। আরও রয়েছে ফ্রি ইনস্টলেশন সুবিধা। সারাদেশে ওয়ালটনের ৭৬টি সার্ভিস সেন্টার বিদ্যমান। সেইসঙ্গে সার্ভিস পার্টনারদের মাধ্যমে দেশব্যাপী এসি গ্রাহকদের সেবা দিয়ে আসছে ওয়ালটন। অপরদিকে ওয়ালটনের দক্ষ এবং অভিজ্ঞ প্রকৌশলী ও টেকনিশিয়ানরা প্রতি ১০০ দিন পর পর এসি ক্রেতাদের ফ্রি সার্ভিসও দিয়ে আসছেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...