The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

যে দ্বীপের প্রতিদিনের ভাড়া ১ কোটি ১১ লাখ: বিচ্ছেদের পর নির্জন দ্বীপে গেলেন মেলিন্ডা গেটস!

ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে সংবাদমাধ্যমের টানাটানি একেবারেই পছন্দ করছেন না

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বিশ্বের শীর্ষ ধনী মাইক্রোসফট প্রতিষ্ঠাতা বিল গেটসের সঙ্গে বিচ্ছেদের পর নিজের মতো করে সময় কাটাতে চান মেলিন্ডা গেটস। তাই বিচ্ছেদের পর নির্জন দ্বীপে গেলেন মেলিন্ডা গেটস! যে দ্বীপের প্রতিদিনের ভাড়া ১ কোটি ১১ লাখ!

যে দ্বীপের প্রতিদিনের ভাড়া ১ কোটি ১১ লাখ: বিচ্ছেদের পর নির্জন দ্বীপে গেলেন মেলিন্ডা গেটস! 1

ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে সংবাদমাধ্যমের টানাটানি একেবারেই পছন্দ করছেন না, সেটিও জানিয়েছেন মেলিন্ডা গেটস।

সে কারণে এই মুহূর্তে পরিবারের সঙ্গে একান্তে ছুটি কাটাতে পাড়ি দিয়েছেন অনেক দূর। ক্যারিবিয়ানের গ্রানাডার অন্তর্গত একটি নির্জন দ্বীপে গিয়ে উঠেছেন মেলিন্ডা গেটস।

গ্রেনাডার ওই দ্বীপটিতে সঙ্গে নিয়ে গেছেন তার ৩ সন্তানকে। রয়েছেন পরিবারের আরও কয়েক জন সদস্যও। তবে আশ্চর্য হতে হয় মেলিন্ডা এই দ্বীপে থাকার জন্য প্রতিদিন ভাড়া দিচ্ছেন ১ লাখ ৩২ হাজার ডলার, যা বাংলাদেশী মুদ্রায় দাঁড়াচ্ছে এক কোটি ১১ লাখ টাকা! মেলিন্ডা গেটস আপাতত এই দ্বীপেই থাকবেন। বিল গেটসের সঙ্গে বিচ্ছেদ ও তাদের বৈষয়িক বিষয়গুলো মিটমাট হয়ে গেলে তবেই আবার নিজের বাড়িতে ফিরবেন বলে জানিয়েছেন মেলিন্ডা গেটস।

আনন্দবাজার পত্রিকার এক খবরে জানা যায়, গ্রানাডার অন্তর্গত এই দ্বীপটির নাম ক্যালিভিগনি। ক্যালিভিগনির এই দ্বীপ মূলত একটি ব্যক্তিগত সম্পত্তি। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তের বিত্তবানরা ছুটি কাটাতে আসেন এই দ্বীপে। বিপুল পরিমাণ টাকা ভাড়া দিয়ে কয়েক দিনের জন্য এই পুরো দ্বীপটি উপভোগ করা হয়ে থাকে। বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে শুরু করে পারিবারিক ছুটি কাটানো সব কিছুর জন্যই ভাড়া নেওয়া যায় এই দ্বীপটি।

সমুদ্রে ঘেরা এই দ্বীপটিতে যে রিসোর্টটি রয়েছে তাতে ২০টি ঘর আছে। টয়লেট রয়েছে ১০টি। সুইমিং পুল, স্পা, নানা ধরনের খেলার জায়গাও রয়েছে এই রিসোর্টে। বিনোদনের কোনো অভাবই নেই এই দ্বীপে। সেইসঙ্গে প্রকৃতির কাছে থাকার সুযোগ তো আছেই। লন্ডন, মিয়ামি, নিউ ইয়র্ক হতে সরাসরি বিমানও রয়েছে গ্রেনাডায়। এই দ্বীপটির জনপ্রিয়তার জন্যই এই বিমান পরিষেবার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...