The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

redporn sex videos porn movies black cock girl in blue bikini blowjobs in pov and wanks off.

অন্যের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে প্রতিদিন আয় ১৮ হাজার টাকা!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বাস-ট্রেন, সিনেমার টিকেট কিংবা কোনো বিল দিতে লাইনে দাঁড়াতে হয়। তবে এক ব্যক্তি এই লাইনে দাঁড়ানোর কাজ করে প্রতিদিন আয় করনে ১৮ হাজার টাকা! কথাটি শুনে বিস্মিত হবেন সবাই।

অন্যের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে প্রতিদিন আয় ১৮ হাজার টাকা! 1

এই লাইনে দাঁড়ানোকেও যে কেও পেশা হিসাবেও বেছে নিতে পারেন, তবে সেটি অবশ্যই আশ্চর্যেরই বিষয় বটে! সম্প্রতি লন্ডনের এক ব্যক্তিকে পাওয়া যায়, যিনি অন্যের জন্য লাইনে দাঁড়ানো পেশা হিসাবেই নিয়েছেন। ফ্রেডি বেকিট নামে ৩১ বছর বয়সী ওই ব্যাক্তি বলেছেন, এই কাজে দিনে ঘণ্টাপ্রতি তার চার্জ আসে ২০ পাউন্ড। সেই হিসাবে দিনে ৮ ঘণ্টা দাঁড়ালে ১৮ হাজার টাকারও বেশি আয় করেন তিনি।

বেকিট পশ্চিম লন্ডনের ফুলহ্যামের বাসিন্দা। বেকিটের ভাষ্য হলো, এই কাজের জন্য অনেক ধৈর্য ও ঠাণ্ডা মাথার প্রয়োজন পড়ে। কারণ হলো, ‘দাঁড়িয়ে থেকে আয়’ বিষয়টি শুনতে যতোটা সহজ, বাস্তবে মোটেও ততোটা সহজ কাজ নয়। শীতকালে বরফপড়া ঠাণ্ডার মধ্যেও দাঁড়িয়ে থাকতে হয় ফ্রেডিকে। মূলত ধনী ও বৃদ্ধ ব্যক্তিরাই ফ্রেডির প্রধান কাস্টমার।

ফ্রেডি জানিয়েছেন যে, তার সবচেয়ে ভালো দিন যায় যেদিন অ্যাপোলো থিয়েটারের মতো জায়গাগুলোতে জনপ্রিয় কোনো অনুষ্ঠানের আয়োজন থাকে। এসব অনুষ্ঠানের টিকিট সংগ্রহের জন্য ব্যস্ত ধনী লোকদের জন্য লাইনে দাঁড়ান ফ্রেডি। এই পেশাটির একটি নাম রয়েছে, যারা এই কাজ করেন, তাদের লন্ডনে কিউয়ার বলা হয়ে থাকে।

ফ্রেডির শীতকালে তুলনামূলক আয় কম হয়, কারণ এই সময় মানুষ ঘর থেকে কম বের হয়, তাই অনুষ্ঠানও হয় কম। তবে গরমকালে সেই ‘ক্ষতি’ অনেকটাই পুষিয়ে নেন বলে জানিয়েছেন ফ্রেডি। এই সময় লন্ডনে বড় বড় সব অনুষ্ঠান আয়োজন করা হয়ে থাকে। তাতে লোকসমাগমও ঘটে প্রচুর।

ফ্রেডি পোষা প্রাণীর দেখভাল, প্যাকিং, খাবর কিংবা জিনিসপত্র আনা-নেওয়া এবং বাগানের কাজও করেন। স্থানীয় একটি অনলাইন মার্কেটপ্লেসে নিজের সেবাগুলোর জন্য সম্প্রতি বিজ্ঞাপন দিয়েছেন তিনি।

এমন পেশার জন্য ফ্রেডির পরিবার এবং বন্ধুরা মজাই পেয়েছেন, তবে তাতে অবাক হননি মোটেও! কারণ হলো ফ্রেডি বরাবরই এমন একজন ব্যক্তি।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকার চেষ্টা করি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের কাপড়ের মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...
sex không che
mms desi
wwwxxx