The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

টানা ছুটির ফাঁদে কক্সবাজার-কুয়াকাটাসহ বিভিন্ন স্থানে পর্যটকের ঢল

ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ এবারের ঈদের ছুটি টানা হওয়ায় দেশের পর্যটন এলাকাগুলোতে মানুষের ঢল নেমেছিল। কক্সবাজার, কুয়াকাটাসহ দেশের প্রায় সবগুলো পর্যটন স্পটে মানুষের ব্যাপক ভিড় লক্ষ্য করা গেছে।
টানা ছুটির ফাঁদে কক্সবাজার-কুয়াকাটাসহ বিভিন্ন স্থানে পর্যটকের ঢল 1
টানা ছুটির ফাঁকে কক্সবাজারে নেমেছিল দেশী-বিদেশী লাখও পর্যটকের ঢল। সাগরকন্যা কক্সবাজারে পর্যটকদের স্বাগত জানায় পর্যটন শিল্পের সঙ্গে জড়িতরা। পর্যটকদের আগমনকে কেন্দ্র করে আগে থেকেই হোটেল মোটেলগুলো সংষ্কার, সাগর পাড়ের কীটকট চেয়ারে রঙ লাগানোসহ অপরূপ সাজে সাজানো হয়েছিল দর্শনীয় পর্যটন স্থানগুলোকে। এদিকে মাস খানেক আগে থেকেই বুকিং হয়েছিল প্রায় সব হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউস ও রেস্ট হাউসগুলোর রুম। সাগরে গোসল করতে নেমে অপ্রত্যাশিত প্রাণহানি এড়াতে এবং পর্যটকদের নিরাপত্তার জন্য প্রশাসনের পক্ষ থেকেও নেয়া হয়েছিল বিভিন্ন উদ্যোগ। ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবস ও শবেকদর, শুক্র-শনিবার সাপ্তাহিক ছুটি পেরিয়ে সিয়াম সাধনার মাস মাহে রমজান পেরিয়ে আনন্দের পবিত্র ঈদুল ফিতর সব মিলিয়ে দীর্ঘ ছুটি হওয়ায় পর্যটন নগরী কক্সবাজার ও কুয়াকাটায় পর্যটক শূন্যতা কাটিয়ে দেশ-বিদেশ থেকে আগমন করে লাখ লাখ পর্যটক।

এদিকে ঈদের আগে থেকেই সৈকত নগরী কক্সবাজার ও কুয়াকাটায় পর্যটক শূন্যতা কেটে উঠতে শুরু করে। প্রাণচাঞ্চল্য ফিরে পায় পর্যটন স্পটগুলো। লাখও পর্যটকের কোলাহলে মুখরিত হয়ে ওঠে কক্সবাজার ও কুয়াকাটার নয়নাভিরাম পর্যটন স্পটগুলো। পর্যটকদের কাছে টানতে না পারায় এতদিন যে ব্যবসায়ীরা দারুণ হতাশায় নিমজ্জিত ছিল তারা আবারও সচল হয়েছে। আশানুরূপ পর্যটক আসার আশায় হোটেল-মোটেল, গেস্ট হাউস থেকে শুরু করে সর্বক্ষেত্রে লোকসান কাটিয়ে লাভের মুখ দেখার অপেক্ষার প্রহর গুনছে গোনা শুরু করে ব্যবসায়ীরা। এখানকার রিকশা চালক থেকে ট্যাক্সি ড্রাইভার, খাওয়ার হোটেল ব্যবসায়ী, ডাব বিক্রেতা, শুঁটকি বিক্রেতা সব ক্ষেত্রেই শুরু হয় উৎসবের আমেজ। ঈদের দুই দিন আগে থেকে ভিড় বাড়তে থাকে। ঈদের পরদিন এই ভিড় মহা আকার ধারণ করে। বিশেষ করে কক্সবাজার ও কুয়াকাটায় ভিড় চোখে পড়ার মতো। এছাড়াও পর্যটনের অন্যান্য স্পটেও পর্যটকদের ভিড় ছিল। যেমন সিলেটের জাফলং, সুন্দরবন, বগুড়ার মাহাস্থান গড়সহ দেশের অন্যান্য এলাকাতেও পর্যটকদের ভিড় অন্যান্যবারের থেকে অনেক বেশি। ঈদের দিন বৃষ্টি বা আকাশ মেঘাচ্ছন্ন থাকায় কিছুটা ভাটা পড়লেও ঈদের পরের ৩/৪ দিন আবহাওয়া ভালো থাকায় পর্যটকদের ভিড় নেমে আসে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...