The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

১২ বছর বয়সেই বাবা হলেন এক বালক!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ মাত্র ১২ বছর বয়সেই বাবা হলেন এক বালক! বৃটিশ ওই বালকের নাম সিন স্টুয়ার। সদ্যোজাত ছেলের মায়ের নাম এম্মা। ঘটনাটি চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের মধ্যে সাড়া ফেলেছে।

12-year-old father is a boy

১৬ বছর বয়স মা হয়েছেন এম্মা নামের কিশোরীটি। কিন্তু এটি একেবারেই স্বাভাবিক। কিন্তু ১২ বছর বয়সে বাবা হওয়ার বিষয়টি চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের হতচকিত করেছে। গবেষকরা এখন এই বিষয়টি নিয়ে গবেষণা শুরু করেছেন। ১২ বছরেই বাবা হলেন বৃটিশ বালক সিন স্টুয়ার্ট। তার গার্ল ফ্রেন্ড তথা সদ্যোজাত ছেলের মায়ের নাম এম্মা যার বয়স ১৬ বছর। ১৬ বছরে মা হওয়ার নজির বিশ্বে অনেক রয়েছে। কিন্তু মাত্র ১২ বছর বয়সে বাবা হওয়ার বিষয়টি একেবারেই অস্বাভাবিক ঘটনা।

১২ বছর বয়সে বাবা হওয়া বিরলতম নজির হওয়ায় চিকিৎসাবিজ্ঞানকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে এই ঘটনাটি। চিকিৎসকরা এখন স্টুয়ার্টের স্পার্ম নিয়ে পরীক্ষা-নীরিক্ষা চালাচ্ছেন। কারণ ১২ বছরের বালকের স্পার্মের ম্যাচিওরিটি লেভেল এবং পেনিট্রেশন পাওয়ার সেই পর্যায়ে কখনওই থাকে না যে একজন শিশু যে কিনা এখনও কিশোর নয়, সে হঠাৎ বাবা হতে পারে।

সংবাদ মাধ্যম জানিয়েছে, এম্মার সঙ্গে শারীরিক সম্পর্ক হয়েছিল বয়ফ্রেন্ড সিন স্টুয়ার্টের। তখন এম্মার বয়স ছিল ১৫। স্টুয়ার্টের বয়স ১১। তখনই গর্ভবতী হয় এম্মা। তাদের দু’জনের বাড়ি থেকেই কোন প্রকার আপত্তি জানানো হয়নি। তারা বৃটেনের বেডফোর্ডশায়ারের শার্নব্রুক এলাকার গ্রামের বাসিন্দা।

এর অর্থ দাঁড়ায় স্টুয়ার্ট ১১ বছর বয়সে বাবা হয়। এই ঘটনার পর তাজ্জব বনে যান চিকিৎসকরা। রিজেলে গ্রামে মার্গারেট বুফর্ট স্কুলে ক্লাস সেভেনে পড়ে ওই বালক স্টুয়ার্ট। অপর দিকে শার্নব্রুক আপার স্কুলে ক্লাস টেনে পড়ে এম্মা। দুজনেই যখন জানতে পারে যে তারা বাবা এবং মা হতে চলেছে তখন ঘটনার গুরুত্ব তারা কোন কিছুতেই বুঝতেই পারেনি। কারণ বাবা কাকে বলে এমন ধারণায় ছিল না ওই বালকের। বাড়ির লোক এবং বন্ধুদের সাহায্য পেয়ে মনের জোরে এম্মা দশটা মাস কাটিয়েছে। তারপর সেই মোতাবেক নর্মাল ডেলিভারিও হয়। বাবা হওয়ার পর খুবই খুশি স্টুয়ার্ট।

সরল হাসিতে তার প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে সিন স্টুয়ার্ট, “আমার ছেলে! ব্যাপারটা বিশ্বাসই হয় না। ও আমার খুব ছোট্ট একটা বন্ধু।” এম্মা সরল মনে লাজুক হেসে প্রতিবেশীদের জানিয়েছে, যখন স্টুয়ার্টের সঙ্গে এক আত্মীয়দের বাড়িতে দেখা হয়েছিল তখনও জানতাম যে ও আমার চেয়ে ছোট। ওকে দেখেই আমার খুব ভালো লেগে গিয়েছিল। ও খুব কিউট। ও ঠিক আমার বেবির মতোই। ও তো আমাকে বলেছিল ও আমারই বয়সী। আমিও তখন জানতাম না ও আমার চেয়ে বয়সে এতো ছোট। তথ্যসূত্র: মেইলঅনলাইন

Loading...