জামায়াত শিবিরের তাণ্ডব ॥ যশোরে পুলিশ কনস্টেবল নিহত

দি ঢাকা টাইমস্‌ ডেস্ক ॥ যশোরে শিবিরের হামলায় এক পুলিশ কনস্টেবলের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার জামায়াতের দেশব্যাপী হরতালের সকালে মনিরামপুরের গোহাটা মোড়ে পুলিশ ও ছাত্রলীগের সঙ্গে জামায়াত-শিবিরের সংঘর্ষে ওই কনস্টেবল আহত হন। খবর বাংলাদেশ নিউজ২৪,
Police Constebol

পরে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন। ওই কনস্টেবলের নাম জহুরুল। মনিরামপুর থানার ডিউটি অফিসার এসআই ইমরান বিষয়টি নিশ্চিত করেন। জানা গেছে, এ ঘটনায় আরো ৫ কনস্টেবলসহ অন্তত ১৫ জন আহত হন।

রজধানীর জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে সকাল ১১ টার দিকে ৪টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটে এবং এখান থেকে পুলিশ ৩ জনকে আটক করে। প্রায় একই সময় রামপুরায় ২টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটানো হয় এবং একজনকে আটক করা হয়। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আজিমপুর বাসস্ট্যান্ডের কাছে একটি দোকানে আগুন দেয়ার চেষ্টার সময় শরীফ নামে এক যুবককে আটক করে পুলিশ। সকালে মীর হাজারিবাগ এলাকায় একটি ঝটিকা মিছিল থেকে কয়েকটি বাস ভাংচুর করা হয়। এ সময় পুলিশ কয়েকজনকে আটক করে।

এছাড়া মিরপুর-১০ নম্বর গোল চক্কর ও মিরপুর- ১১ এলাকায় দুটি বাসে আগুন দেয়ার খবর পাওয়া পাওয়া যায় এবং এছাড়া কাজী পাড়া, শ্যাওড়াপাড়া এলাকাতেও হরতকাল সমর্থকরা ঝটিকা মিছিল নিয়ে বের হলে পুলিশ কয়েকজনকে আটক করে। ভোরে যাত্রাবাড়ির সাইনবোর্ড এলাকায় একটি কাভার্ড ভ্যানে অগ্নিসংযোগ করা হয়। ঘটনাস্থল থেকে কাউকে আটক করতে পারেনি পুলিশ। ভোরে মিরপুর বি আরটিএ’র সামনে রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে পিকেটিং করলে পুলিশি বাধায় পিকেটাররা পালিয়ে যায়।
সকাল সাড়ে ৭টার দিকে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীরা একটি ঝটিকা মিছিল বের করলে সেখান থেকে ৫ জনকে আটক করা হয়। এ সময় পুলিশের ধাওয়া খেয়ে তারা পালিয়ে যায়। সকাল সাড়ে ৭টার দিকে ফার্মগেট মোড়ে দুটি গাড়িতে ভাংচুর চালায় কয়েকজন যুবক। এ সময় পুলিশ আসার আগেই তারা পালিয়ে যায়। সকাল সোয়া ৭টার দিকে শনিরআখড়া একালায় রাস্তায় টায়ার জ্বালিয়ে ও গাছের গুঁড়ি ফেলে পিকেটিং করার খবর পাওয়া গেছে। সকাল সোয়া ৮টার দিকে ধলপুরে জামায়াত-শিবিরের বেশ কয়েকজন নেতাকর্মী একটি ঝটিকা মিছিল করার প্রস্তুতি নিলে পুলিশি বাধায় তারা পালিয়ে যায়। এদিকে বুধবার রাত থেকেই আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী রাজধানীর বিভিন্ন পয়েন্টে ব্যাপক তলস্নাশি চালিয়ে জামায়াত-শিবিরের নেতাকর্মীদের গ্রেফতারে চিরুনি অভিযান চালানো হয়। এদিকে রাজধানীর বাইরেও হরতাল চলাকালে সকাল থেকে সংঘর্ষ-ভাংচুর-অগ্নিসংযোগ-ককটেল বিস্ফোরণের খবর পাওয়া গেছে।

সিরাজগঞ্জে ট্রাকে আগুন দিয়েছে হরতাল আহ্‌বানকারীরা। ময়মনসিংহে গাড়ি ভাংচুর, টেম্পোতে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। লক্ষ্মীপুরে কৃষি ব্যাংকের গাড়ি ভাংচুর ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটেছে। বগুড়ায় জামাত-পুলিশের সংঘর্ষে ৬ জন আহত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে। নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে ৩ গাড়িতে আগুন দিয়েছে হরতালকারীরা। চট্টগ্রামের লালদিঘির মোড়ে টেম্পো ও ইপিজেড এলাকায় হিউম্যান হলারে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়।

Advertisements
Loading...