একটি নির্মম ছবি এবং….

ATTENTION EDITORS - VISUAL COVERAGE OF SCENES OF DEATH OR INJURY A young migrant, who drowned in a failed attempt to sail to the Greek island of Kos, lies on the shore in the Turkish coastal town of Bodrum, Turkey, September 2, 2015. At least 11 migrants believed to be Syrians drowned as two boats sank after leaving southwest Turkey for the Greek island of Kos, Turkey's Dogan news agency reported on Wednesday. It said a boat carrying 16 Syrian migrants had sunk after leaving the Akyarlar area of the Bodrum peninsula, and seven people had died. Four people were rescued and the coastguard was continuing its search for five people still missing. Separately, a boat carrying six Syrians sank after leaving Akyarlar on the same route. Three children and one woman drowned and two people survived after reaching the shore in life jackets. REUTERS/Nilufer Demir/DHA TPX IMAGES OF THE DAY ATTENTION EDITORS - NO SALES. NO ARCHIVES. FOR EDITORIAL USE ONLY. NOT FOR SALE FOR MARKETING OR ADVERTISING CAMPAIGNS. TEMPLATE OUT. THIS IMAGE HAS BEEN SUPPLIED BY A THIRD PARTY. IT IS DISTRIBUTED, EXACTLY AS RECEIVED BY REUTERS, AS A SERVICE TO CLIENTS. TURKEY OUT. NO COMMERCIAL OR EDITORIAL SALES IN TURKEY.

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ছবি কথা বলে। এমন কথা আমরা শুনে আসছি। এবার সত্যিই এমন একটি নির্মম ছবি বিশ্ববাসীকে নাড়া দিয়েছে। ছবিটি ভূমধ্যসাগরের তীরের ছবি।

ATTENTION EDITORS - VISUAL COVERAGE OF SCENES OF DEATH OR INJURY A young migrant, who drowned in a failed attempt to sail to the Greek island of Kos, lies on the shore in the Turkish coastal town of Bodrum, Turkey, September 2, 2015. At least 11 migrants believed to be Syrians drowned as two boats sank after leaving southwest Turkey for the Greek island of Kos, Turkey's Dogan news agency reported on Wednesday. It said a boat carrying 16 Syrian migrants had sunk after leaving the Akyarlar area of the Bodrum peninsula, and seven people had died. Four people were rescued and the coastguard was continuing its search for five people still missing. Separately, a boat carrying six Syrians sank after leaving Akyarlar on the same route. Three children and one woman drowned and two people survived after reaching the shore in life jackets. REUTERS/Nilufer Demir/DHA    TPX IMAGES OF THE DAY     ATTENTION EDITORS - NO SALES. NO ARCHIVES. FOR EDITORIAL USE ONLY. NOT FOR SALE FOR MARKETING OR ADVERTISING CAMPAIGNS. TEMPLATE OUT. THIS IMAGE HAS BEEN SUPPLIED BY A THIRD PARTY. IT IS DISTRIBUTED, EXACTLY AS RECEIVED BY REUTERS, AS A SERVICE TO CLIENTS. TURKEY OUT. NO COMMERCIAL OR EDITORIAL SALES IN TURKEY.

সংবাদ মাধ্যমের খবরে বলা হয়, সিরিয়া হতে পালিয়ে যাওয়া অন্তত ১২ অভিবাসনপ্রত্যাশী গ্রিসের কস দ্বীপে যাওয়ার পথে ভূমধ্যসাগরে ডুবে মারা যায়। তাদের মধ্যে রয়েছে একটি শিশুর মৃতদেহ। এই নির্মম ছবিটি সামাজিক মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়েছে। ওই শিশুটিকে তুরস্কের এক পুলিশ কর্মকর্তা দেখেন বালুর ওপর উপুড় হয়ে পড়ে থাকতে।

আনুমানিক ৩ বছর বয়সী শিশুটির গায়ে ছিল লাল শার্ট আর নীল প্যান্ট। তুরস্কের বেসরকারি সংবাদ সংস্থা দোগান বলেছে, শিশুটির নাম আইলান। তার ৫ বছর বয়সী ভাই গালিপের দেহ সৈকতের অপর পাশে ভেসে গেছে।

নিউইয়র্ক টাইমস বলেছে, প্রাণহীন এই শিশুটির স্থির ও ভিডিওচিত্র খুব দ্রুতই প্রথমে তুরস্কের সামাজিক মাধ্যমে এবং তারপর বিশ্বজুড়ে ছড়িয়ে পড়ে। দর্শক, মানবাধিকারকর্মী, সাংবাদিক সবাইকে হতবাক করেছে। পীড়াদায়ক এই ছবিটি অন্য সবাইকে দেখাতে চান; যাতে এটা সিরিয়ায় যুদ্ধ বন্ধে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের কাছে আবেদন তৈরি করতে সক্ষম হয়।

এই নির্মম ছবিটি যারা শেয়ার করেছেন, তাদের মধ্যে রয়েছেন ওয়াশিংটন পোস্টের করেসপন্ডেন্ট লিজ স্লাই, যিনি সিরিয়া হতে যুদ্ধের রিপোর্টিং করে আসছেন। আরও রয়েছেন, হিউম্যান রাইটস ওয়াচের নাদিম হৌরি এবং পিটার বুকায়ের্ট। আন্তর্জাতিক উদ্ধার কমিটির প্রেসিডেন্ট ডেভিড মিলিব্যান্ড ও সিরিয়ার রাক্কা শহর এবঙ ইসলামিক স্টেটশাসিত অঞ্চলে বসবাসরত লোকজনও। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারের পর সংবাদ মাধ্যমও লুফে নিয়েছে এই নির্মম ছবিটি। কারণ বিশ্ববিবেককে জাগ্রত করতে এটি হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার হবে। মানুষ কতটা নির্দয় বা যুদ্ধ মানুষকে কোথায় নিয়ে যেতে পারে এই ছবিটি তারই উদাহরণ।

Advertisements
Loading...