এক সাপ খেলার যাদুকর ইকবালের গল্প!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সাপ খেলা হয়তো আমরা অনেকেই দেখেছি। কিন্তু ইকবাল সাপুড়ে যে খেলা দেখায় সেটি কেও কখনও দেখেননি। নাক দিয়ে ঢুকিয়ে মুখ দিয়ে বের করেন সাপ! তাই তাকে সাপ খেলার যাদুকর বলা হয়।

Iqbal's story of a snake charmer playing

সাপ খেলা আমরা অনেক দেখেছি। সাপকে বশ করে তাকে নিয়ে খেলা বেশ ভালই লাগে। কিন্তু এবার ইকবাল জগি নামে এমন এক সাপুড়ের সন্ধান পাওয়া গেছে যিনি মুখ দিয়ে সাপ ঢুকিয়ে নাক দিয়ে বের করেন! একটি বিষধর সাপকে নিয়ে তিনি যেভাবে খেলা দেখান তাতে যে কেও বিস্মিত না হয়ে পারবেন না।

সংবাদ মাধ্যমের খবরে জানা যায়, পাকিস্তানের বাসিন্দা ইকবাল জগির বয়স ৩০ বছর। তিনি সাধারণ কোনো সাপুড়ে নন। তিনি গত ১২ বছর ধরেই অদ্ভুত এবং ভয়াবহ এক সাপের খেলা দেখাচ্ছেন। সম্প্রতি সাপুড়ে ইকবাল জগি এক বিয়ে বাড়ির অনুষ্ঠানে আগত অতিথিদের জন্য নিজের সেই খেলাটি দেখালেন। তিনি একটি জ্যান্ত বিষধর সাপ নিজের নাক দিয়ে ঢুকিয়ে দিলেন এবং খানিক পর মুখ দিয়ে সেটি বের করলেন। এই সাপটি ছিল দু’ফুটের ওপরে লম্বা। ওই খেলা দেখতে গিয়ে আতঙ্কে অনেক দর্শকের গায়ের লোম দাঁড়িয়ে যায়।

পাকিস্তানের বন্দর নগরী করাচি সংলগ্ন এক গ্রামে এই সাপুড়ে ইকবাল জগির বাড়ি। ৫ মেয়ে আর ৩ ছেলে নিয়ে এক বিশাল সংসার। তার আয় বলতে এই সাপের খেলা আর কৌশল। যা ১২ বছর ধরে তিনি করে আসছেন। ঝুঁকিপূর্ণ এই খেলায় তার আয় মাত্র ৫ পাউন্ড সমপরিমাণ। যা বাংলাদেশী মুদ্রায় ৫৯২ টাকার মতো। অর্থাৎ দাঁড়াচ্ছে যে একজন মানুষের জীবনের দাম মাত্র ৫ পাউন্ড! অবাক করার মতো গল্প।

এ সম্পর্কে ইকবাল জগির বক্তব্য,‘সাপুড়ে হিসেবে আমাকে আমার সম্প্রদায়ের লোকজন অনেক সম্মান করে। আমি জীবনের ঝুঁকি নিয়েই খেলাটি দেখাই। চাইলেও যে কোনো সাপুড়ের পক্ষে এই কাজটি করা সম্ভব নয়। গুরুজনের আশীর্বাদ রয়েছে বলেই আমি এই ধরনের খেলা দেখাতে পারি।’

ইকবাল জগি নিজের এই প্রতিভা নিয়ে গর্ব বোধ করেন। তাই তো নিজের জীবনকে হাতের মুঠোয় নিয়ে প্রতিনিয়ত এমন একটি খেলা দেখান। আতঙ্কিত দর্শকরা যখন অধীর আগ্রহ নিয়ে ওই সাপটি বেরিয়ে আসার প্রতীক্ষায় থাকে, ঠিক তখন অদ্ভূত এক ভালোলাগায় আপ্লুত হন সাপুড়ে ইকবাল জগি। তিনি উপভোগ করেন তার দর্শকদের চূড়ান্ত সেই সাসপেন্স!

Advertisements
Loading...