যে কারণে মোবাইল সিমকার্ড আপনাকে পথে বসাতে পারে

সঠিক তথ্য না জানা বা ভুল কিছু কাজের মাধ্যমে মোবাইল সিমকার্ড আপনাকে পথে বসাবে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ বর্তমান বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় টেলিযোগাযোগ মাধ্যম হল মোবাইল। আর এই মোবাইলে আমরা যে সিম কার্ড ব্যবহার করি কিছু কারণে তা আমাদের অচিরেই পথে বসাতে পারে। বর্তমান বিশ্বের প্রতিটি দেশেই যেকোন ধরনের লেনদেনের জন্য মোবাইল নাম্বার ব্যবহার করা হয়। ব্যাংক, বীমা, ক্রয়-বিক্রয়, দেনা-পাওনা অর্থাৎ প্রতিটি বিষয়ের সাথেই যুক্ত করা হয় মোবাইল নাম্বার।

বাংলাদেশে সাধারনত গ্রামীণফোন, বাংলালিঙ্ক, রবি, এয়ারটেল এবং টেলিটক সিম কার্ড ব্যবহার করা হয়। এখন আমরা জানবো কিভাবে এই সীম কার্ড আপনাকে পথে বসাতে পারে।

ধরুন আপনার ব্যবহৃত মোবাইল নাম্বারটি আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট, ব্যবসায়িক লেনদেন সহ আরো অন্যান্য ক্ষেত্রে যুক্ত করা আছে। এখন-

১। অনেক সময় আপনার সিমে অচেনা কোন নাম্বার থেকে এসএমএস আসে। যেখানে বলা থাকে ‘আপনার এই নাম্বারটি বা আপনি কোকাকোলা বা ইত্যাদি ইত্যাদি প্রতিযোগীতায় ৮ লক্ষ টাকা বা পাউন্ড বা ডলার জিতেছেন, আপনার এই অর্থ ক্লেইম করতে বা আপনার অ্যাকাউন্টে ট্রান্সফার করে নিতে নিচের ই-মেইলে বা এই নাম্বারে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট সহ ইত্যাদি ইত্যাদি তথ্য সেন্ড করুন। লোভে পড়ে যেই মাত্র আপনি ওই ই-মেইলে বা ওই নাম্বারে আপনার তথ্য এবং ব্যাংক অ্যাকাউন্ট সেন্ড করবেন, ঠিক তখনি এই চক্রটি বিভিন্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে সমস্ত অর্থ হাতিয়ে নিবে।

তাই ভুলেও এমন কোন এসএমএস এর রিপ্লে দেওয়া, ফোন দেওয়া বা ই-মেইল করবেন না। একটা সাধারন বিষয় চিন্তা করুন, যেখানে আপনি কোন লটারির টিকিট কাটেন নি বা কোন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহন করেন নি সেখান থেকে আপনি কিভাবে টাকা পেতে পারেন?

২। কিছু চক্র রয়েছে যারা আপনার ফোনে সেভ করা রয়েছে এমন কিছু গুরুত্বপূর্ণ নাম্বার সংগ্রহ করে। তারপর বিভিন্ন সফটওয়্যারের মাধ্যমে আপনার সেই পরিচিত গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির নাম্বার বানিয়ে সেই ব্যক্তি সেজে আপনাকে এসএমএস বা ফোন দিতে পারে। এই ক্ষেত্রে আপনার ফোনে সেই গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তির নামে সেভ করা ফোন নাম্বার শো করবে। আর আপনিও হয়ত আপনার পরিচিত সেই ব্যক্তি মনে করে তাকে অনেক গোপন তথ্য দেওয়া এমনকি বড় ধরনের কোন লেনদেনও করে ফেলতে পারেন। আর এভাবেই আপনি বড় ধরণের ক্ষতির সম্মুখীন হতে পারেন।

তাই সর্বদা চেষ্টা করবেন গুরুত্বপূর্ণ কোন ব্যক্তির ফোন বা এসএমএস আসার পর পূনরায় আপনার ফোনের কন্টাক্ট নাম্বার বা ফোনবুক থেকে সেই ব্যক্তির নাম্বারটিতে ফোন দিয়ে নিশ্চিত হয়ে লেনদেন করবেন। ভুলেও ওই নাম্বারে রি-ডায়াল করবেন না।

পোষ্টটি আপনার প্রিয় কোন ব্যক্তি বা বন্ধুকে শেয়ার করে অথবা আপনার টাইমলাইনে শেয়ার করে অন্যদের তথ্যগুলো জানতে সাহায্য করুন।
Advertisements
Loading...