The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ঐতিহাসিক স্থাপত্যের অন্যতম নিদর্শন ধনবাড়ি নবাব প্যালেস মসজিদ

এই মসজিদে ১৯২৯ সাল হতে ২৪ ঘণ্টা তেলাওয়াত হচ্ছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ শুভ সকাল। শুক্রবার, ২৮ ডিসেম্বর ২০১৮ খৃস্টাব্দ, ১৪ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ, ১৯ রবিউস সানি ১৪৪০ হিজরি। দি ঢাকা টাইমস্ -এর পক্ষ থেকে সকলকে শুভ সকাল। আজ যাদের জন্মদিন তাদের সকলকে জানাই জন্মদিনের শুভেচ্ছা- শুভ জন্মদিন।

ঐতিহাসিক স্থাপত্যের অন্যতম নিদর্শন ধনবাড়ি নবাব প্যালেস মসজিদ 1

যে ছবিটি আপনারা দেখছেন সেটি টাঙ্গাইলের ধনবাড়ি নবাব প্যালেসের মসজিদ। ৮৯ বছরের মধ্যে ১ মিনিটের জন্যও পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত বন্ধ হয়নি এই মসজিদে!

এই মসজিদটি টাঙ্গাইল জেলার ধনবাড়ী উপজেলার পৌরসভায় অবস্থিত। এটি ধনবাড়ী উপজেলার ঐতিহাসিক স্থাপত্যের অন্যতম একটি নিদর্শন।

মোগল আমলের এই মসজিদটি নিয়ে মানুষের আগ্রহের শেষ নেই। এই মসজিদে ১৯২৯ সাল হতে ২৪ ঘণ্টা তেলাওয়াত হচ্ছে। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে, এখনও ১ মিনিটের জন্যও বন্ধ হয়নি কোরআন তেলাওয়াত। মোগল স্থাপত্য রীতিতে নির্মিত এই মসজিদটির আকার-অবয়বে বেশ ক’বার পরিবর্তন করা হয়।

৩ গম্বুজবিশিষ্ট মসজিদে লাগোয়া সুদৃশ্য ও জাঁকজমকপূর্ণ একটি সুন্দর মিনারও রয়েছে। এই মসজিদকে কেন্দ্র করে মানত প্রথা প্রচলিত রয়েছে। এই মসজিদটি প্রায় ১০ কাঠা জমির ওপর অবস্থিত। এই আদি মসজিদটি ছিল আয়তাকার। তখন এর দৈর্ঘ্য ছিল ১৩ দশমিক ৭২ মিটার (৪৫ ফুটের মতো) এবং প্রস্থ ছিল ৪ দশমিক ৫৭ মিটার (১৫ ফুট)। তবে সংস্কারের পর এই মসজিদটির আকার রীতিমতো বদলে যায়। প্রচলিত নিয়মে এই মসজিদের পূর্বদিকের ৩টি প্রবেশপথ বরাবর এর অভ্যন্তরে কিবলা দেওয়ালে ৩টি মেহরাব নির্মিত হয়েছে। এই মসজিদের কেন্দ্রীয় মেহরাবের কুলুঙ্গিটি অষ্টভূজাকার এবং বহু খাঁজবিশিষ্ট খিলান সহযোগে ফুলের নকশায় অলংকৃত। উভয় পাশের দুটি এবং বহু খাঁজবিশিষ্ট খিলানযোগে গঠিত তবে অলঙ্কারহীন। এই মসজিদের অভ্যন্তরভাগ সর্বত্র চীনামাটির টুকরা দ্বারা মোজাইক নকশায় অলংকৃত। মসজিদ-সংলগ্ন অর্ধবিঘা আয়তনের অনুচ্চ প্রাচীর বেষ্টিত একটি প্রাচীন কবরস্থানও রয়েছে এখানে। এটি নওয়াব বাহাদুর সৈয়দ নওয়াব আলী চৌধুরীর মাজার। তারপাশে সৈয়দ নওয়াব আলীর আত্মীয়দেরও বেশ কয়েকটি কবর রয়েছে। যেটি মূল কম্পাউন্ডের বাইরে।

বিস্ময়কর হলেও সত্য যে ১৯২৯ সাল হতে ২৪ ঘণ্টা তেলাওয়াত হচ্ছে এই মসজিদটিতে। অবিশ্বাস্য হলেও সত্য যে, এখন পর্যন্ত ১ মিনিটের জন্যও বন্ধ হয়নি কোরআন তেলাওয়াত। বর্তমানে এখানে ৭ জন ক্বারি নিযুক্ত রয়েছেন। ২ ঘণ্টা পর পর একেকজন কোরআন শরীফ তেলাওয়াত করে থাকেন। ৮৯ বছর ধরে এই বিষয়টি নিয়মিতভাবে হয়ে আসছে। এটি সমগ্র বিশ্বের মধ্যেে একটি বিরল ঘটনা। এই মসজিদটিতে একসঙ্গে ২০০জন মুসল্লি নামাজ আদায় করতে পারেন।

তথ: https://bn.bdtime.com.bd এর সৌজন্যে।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...