ন্যান্সির দ্বিতীয় সংসারেও ভাঙ্গন!

জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি নাকি তার স্বামীর সঙ্গে থাকছেন না

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী ন্যান্সির দ্বিতীয় সংসারেও ভাঙ্গন দেখা দিয়েছে। স্বামী নাজিমুজ্জামান জায়েদের সঙ্গে তার নাকি বনিবনা হচ্ছে না। এমন খবর বর্তমানে অনলাইন মাধ্যমগুলোতে ছড়িয়ে পড়েছে।

বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা গেছে, জনপ্রিয় কণ্ঠশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি নাকি তার স্বামীর সঙ্গে থাকছেন না। স্বামীর সঙ্গে কয়েক বছরের সংসারের পর গত দুই মাস ধরেই একসঙ্গে থাকছেন না তারা। তাদের মধ্যে বনিবনা না হওয়ায় পৃথক থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা দুজন মিলেই। এমনটিই সংবাদ মাধ্যমকে জানিয়েছেন এই শিল্পী। তবে একটি বিষয় মিলছে না, আর তা হলো গত ডিসেম্বরে ন্যান্সির জন্মদিনে বিশাল এক উপহার দেন তার স্বামী নাজিমুজ্জামান জায়েদ। ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন এলাকাতে ৫ শতাংশ জমি ছিল তার স্বামীর। সেই জমিটি সে ন্যান্সির নামে দানপত্র করে দিয়েছেন। বর্তমানে এই জমিটির সরকারি মূল্য প্রায় ২৫ লক্ষ টাকা। জন্মদিনে এমন একটি উপহার পেয়ে বেশ উচ্ছ্বসিত হন ন্যান্সি। তাদের জন্মদিনের মিষ্টি খাওয়ানোর ছবিও প্রকাশ পায় গণমাধ্যমে। সেটি মাত্র এক মাসের কম সময়ের ঘটনা। তাহলে আজ কেনো এই প্রশ্ন আসছে যে দুই মাস ধরে তারা আলাদা বসবাস করছেন?

সংগীতশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি মূলত ন্যান্সি নামেই পরিচিত। ২০০৬ সালে তার সঙ্গীত জীবন শুরু হয় ‘হৃদয়ের কথা’ চলচ্চিত্রের গানের মাধ্যমে। ২০০৯ সালে তার প্রথম অ্যালবাম ‘ভালোবাসা অধরা’ মুক্তি পায়। ২০১১ সালে প্রজাপতি চলচ্চিত্রের গানে কণ্ঠ দিয়ে তিনি প্রথমবারের মতো জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন।

ন্যান্সি ২০০৬ সালে ভালোবেসে বিয়ে করেন ব্যবসায়ী আবু সাঈদ সৌরভকে। আনুষ্ঠানিকভাবে ২০১২ সালের ২৪ মে ৬ বছরের সংসারজীবনের ইতি টানেন ন্যান্সি। সেই সংসারে রোদেলা নামে তাদের এক মেয়েও রয়েছে।

ন্যান্সি পরবর্তীকালে ২০১৩ সালের ৪ মার্চ নাজিমুজ্জামান জায়েদকে বিয়ে করেন। জায়েদ ও ন্যান্সির সংসারেও নায়লা নামে এক কন্যা সন্তান রয়েছে। জায়েদ ময়মনসিংহ পৌরসভায় চাকরিরত এবং ব্যবসার সঙ্গেও জড়িত তিনি। তবে এ বছরের শুরুতেই ভাঙনের সুর শোনা যাচ্ছে ন্যান্সির এই সংসারেও। এই গায়িকা তার বর্তমান স্বামীর সঙ্গে নাকি থাকছেন না।

ন্যান্সি জানিয়েছেন যে, স্বামী নাজিমুজ্জামান জায়েদের সঙ্গে কয়েক বছরের সংসারের পর গত ২ মাস হলো আর একসঙ্গে থাকছেন না ন্যান্সি। তাদের মধ্যে বনিবনা না হওয়াতে আলাদা থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তারা দুজন মিলেই।

ন্যান্সি জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে আমি ময়মনসিংহে রয়েছি। জায়েদ ও আমি দুই মাস ধরে আলাদাই থাকছি। অষ্ট্রেলিয়া সফর শেষে দেশে আসার পর হতেই আমরা একসঙ্গে থাকছি না। জায়েদের বাসায় সে থাকছে, আমার বাসায় আমি। বড় মেয়ে রোদেলা থাকছেন ন্যান্সির সঙ্গে এবং জায়েদের সঙ্গে থাকছেন ছোট মেয়ে নায়লা।

ন্যান্সি বলেছেন, ‘আমাদের মধ্যে এখনও বন্ধুত্বের সম্পর্ক অটুট রয়েছে। নিয়মিতই আমাদের মধ্যে কথাও হয়। তবে আলাদা থাকার সিদ্ধান্তটাও আমাদের দুজনের। ভবিষ্যতে কি সিদ্ধান্ত নেবো না নেবো, তা এখনও বলতে পারছি না। ভবিষ্যই সব বলে দেবে।’

Advertisements
আপনি এটাও পছন্দ করতে পারেন
Loading...