The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

অনলাইনে পণ্য কেনাকাটার আগে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখবেন

অনলাইনে কেনাকাটা করার সময় অবশ্যই আপনাকে বেশ কিছু সতর্কতা অবলম্বন করতে হবে

দি ঢাকা টাইমস ডেস্ক ।। অনলাইনে কেনাকাটা বর্তমানে এতইটাই জনপ্রিয়তা পেয়েছে যে এর বাজার দিনদিন দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। এক দিকে যেমন সময় বেঁচে যাচ্ছে অন্যদিকে যাতায়াত খরচ এবং শারীরিক পরিশ্রম থেকেও মুক্তি পাওয়া যাচ্ছে।

বিশেষ করে অনলাইনে সবচেয়ে বেশি বিক্রিত পণ্যের মধ্যে বিশেষ অবস্থানে রয়েছে বিভিন্ন ধরণের ড্রেস, ইলেক্ট্রনিক সামগ্রী, বই ইত্যাদি। তবে অনলাইনে একটি সুন্দর ড্রেস বা পছন্দের কোন জিনিস দেখলেন আর অমনি অর্ডার করে দিলেন। অথচ ড্রেস বা ওই পছন্দের জিনিসটি হাতে পাওয়ার পর তার আসল অবস্থা দেখে আপনি হতবাক হয়ে গেলেন। তখন আফসোস করা ছাড়া আর কোন উপায় থাকে না।

তাই অনলাইনে ড্রেস বা বিভিন্ন জিনিস কেনার আগে যে বিষয়গুলো মাথায় রাখা উচিৎ আজ আমরা সেই বিষয়গুলো নিয়েই আলোচনা করব।

১। কম দাম এবং আকর্ষনীয় ডিজাইন দেখেই আকৃষ্ট হবেন নাঃ

কিছু বিক্রেতা বিভিন্ন ড্রেসের এমন কম দাম এবং সুন্দর ডিজাইন দিয়ে পোষ্ট করে যা দেখলে সবাই কিনতে চাই। অথচ আপনি ওই কম দাম দেখে যখনি অর্ডার করবেন, হাতে পাওয়ার পর দেখা যাবে যে ড্রেস অর্ডার করেছেন তার সাথে বেশ কিছু অমিল রয়েছে। এই সমস্যা সমাধানে কি করবেন? পুরো পোষ্টটি পড়লেই সব ক্লিয়ার হয়ে যাবে।

২। অ্যাডভান্সড পেমেন্ট করবেন নাঃ

বর্তমানে প্রায় সকল ভেরিফাইড বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানই ক্যাশ অন ডেলিভারি দিয়ে থাকে। আপনার পণ্য হাতে পাওয়ার পর তা ভাল করে দেখে তারপর বিল পরিশোধ করুন। কিছু ভুয়া বিক্রেতা অনলাইনে বিভিন্ন পণ্যের আকর্ষনীয় কম দাম দিয়ে ক্রেতাদের আকৃষ্ট করে এবং মাল অর্ডার করার সময় ২০ বা ৫০% অ্যাডভান্সড পেমেন্ট করতে বলে। অথচ পেমেন্ট করা হয়ে গেলে আর আপনার পণ্যও ডেলিভারি দেয় না ফোন দিলে ফোনও ধরে না। এমন সমস্যা বর্তমানে অনেক দেখা যাচ্ছে। তাই অনলাইনে কেনাকাটা করার সময় বিশস্ত প্রতিষ্ঠান ছাড়া অন্য কোন বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানকে অগ্রিম পেমেন্ট করবেন না।

৩। বাজার যাচাই করুনঃ

বর্তমানে কিছু ভুয়া পেজে (বিশেষ করে মোবাইল ফোন বিক্রেতা) পণ্যের এমন সব কম দাম দেখা যায় যা অবাস্তব। কিছু পেজে স্যামসাং, শাওমি, আইফোনের মত ফোনের এত কম দাম দিয়ে পোষ্ট করে যা দেখেলে মাথা নষ্ট হয়ে যায়। অথচ সেই দামে অর্ডার দেওয়ার পর ফোন যখন হাতে পাবেন, তখন আপনি হুশ হারিয়ে ফেলতে পারেন। আপনি হয়ত যে ফোনের অর্ডার করেছেন তার আসল বাজার মূল্য প্রায় ১৫-২০ হাজার টাকা বার তারও বেশি। আর কিছু ভুয়া কোম্পানি আপনাকে সেই ফোন মাত্র ৪-৫ হাজার টাকায় দেওয়ার জন্য বিজ্ঞাপণ দেখাবে। আপনি হয়ত অর্ডার করেছেন এবং ফোন হাতে পেয়ে বিলও পরিশোধ করেছেন। এখন প্যাকেট খুলে দেখছেন ১০০০ টাকা দামের একটি সাধারণ ফোন। তাহলে নিজেই চিন্তা করুন এখন আপনার হুশ থাকবে কি না। তাই পণ্যের আসল দাম যাচাই করে অর্ডার দিন। তাহলে এমনভাবে ঠোকবেন না।

৪। পণ্যের সঠিক মাপ দেখে অর্ডার করুনঃ

সবার শরীরের সাইজ এক নই। তাই কোম্পানী একই পণ্য বিভিন্ন সাইজের তৈরি করে। বিশেষ করে কোন ড্রেস বা জুতা অর্ডার করার সময় আপনার সঠিক সাইজ ইনপুট করে সঠিক পণ্য অর্ডার করুন। নইলে হাতে পাওয়ার পর নানা ঝামেলা পোহাতে হবে।

৫। অন্য পোষ্টের কমেন্টগুলো বা রিভিউগুলো পড়ুনঃ

আপনি যেখান থেকে পণ্য অর্ডার করতে চাচ্ছেন সেই সাইট বা পেজ অরিজিনাল কি না, তা যাচাই করার জন্য ওই সাইট বা পেজের পূর্বের পোষ্টগুলোর কমেন্ট বা রিভিউগুলো পড়ুন। কারণ সেই পেজ বা সাইটের দ্বারা অন্য কেউ প্রতারিত হলে বিগত পোষ্টগুলোর কমেন্টে তারা নানা ফিডব্যাক দিয়ে থাকে। তাই অন্য পোষ্টের কমেন্ট পড়েই সেই পেজের সঠিকতা যাচাই করা যায়।

Loading...