The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ফোনের রেডিয়েশন লেভেল জানার উপায় জেনে নিন

ফোনের মধ্যে থাকা ট্রান্সমিটিং ডিভাইস হতে সব সময় নির্গত হতে থাকে অদৃশ্য রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি তরঙ্গ

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আপনার মোবাইলের ক্যামেরাটা কতো মেগাপিক্সেলের, ইন্টারনাল মেমোরি কতো জিবি বা ব্যাটারি ব্যাকআপ কতো ঘণ্টার ইত্যাদি— স্মার্টফোন কিনতে গিয়ে এই সমস্ত তথ্য নিয়ে সাধারণত আমরা বেশি আগ্রহী থাকি। কিন্তু রেডিয়েশনের বিষয়টি আমরা কখনও ভাবিনা।

ফোনের রেডিয়েশন লেভেল জানার উপায় জেনে নিন 1

ফোনের এমন অনেক গুরুত্বপূর্ণ ফিচার থাকে, যেগুলি নিয়ে আমরা চিন্তাভাবনা করি না একেবারেই। তবে ফোন কেনার পর নিত্যদিনের ব্যবহারে ওই বিষয়গুলির গুরুত্ব অস্বীকার করার কোনো উপায় থাকে না।

স্মার্টফোনের সে রকমই একটা প্যারামিটার হলো রেডিয়েশন লেভেল। ফোনের মধ্যে থাকা ট্রান্সমিটিং ডিভাইস হতে সব সময় নির্গত হতে থাকে অদৃশ্য রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি তরঙ্গ। সেই তরঙ্গ নিঃসরণের হার একটি নির্দিষ্ট মাত্রা অবধি আমাদের শরীরের তেমন কোনো ক্ষতি করে না। তবে এই রেডিয়েশন লেভেল মাত্রাতিরিক্ত হয়ে গেলে, মারাত্মক প্রভাব পড়ে আমাদের শরীরের উপর।

তাই নিজের ফোনে রেডিয়েশনের মাত্রাটা নিরাপদ কিনা সেটি জানাটাও একটি জরুরি বিষয়। ফোনের রেডিয়েশনের পরিমাপ করা হয় সাধারণত ‘এসএআর ভ্যালু’ দিয়ে। প্রত্যেক সংস্থা ইউজার ম্যানুয়ালে ফোনের এসএআর ভ্যালুটি উল্লেখ করে থাকে।

তবে নিজের স্মার্টফোনের মাধ্যমেও জেনে নেওয়া যাবে এই এসএআর ভ্যালু। এখন প্রশ্ন হলো কী ভাবে জানবেন? ফোনের ডায়াল প্যাডে যাওয়ার পর ‘*#07#’ টাইপ করুন। তাহলেই আপনার স্ক্রিনে ফুটে উঠবে আপনার ফোনের রেডিয়েশনের মাত্রা কতো।

ভারতীয় কেন্দ্রীয় সরকারের টেলিমন্ত্রক দফতরের নির্দেশিকা অনুসারে এই এসএআর ভ্যালু প্রতি কিলোগ্রামে ১.৬ ওয়াটের বেশি হলে কখনও চলবে না। আপনার ফোনের রেডিয়েশনের মাত্রা সরকারের নির্দেশিকায় উল্লেখিত মাত্রার মধ্যেই রয়েছে তো? দেখে নিন আজই।

Loading...