The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ইউনিকোডে যুক্তাক্ষর সমস্যার সমাধান হতে চলেছে

স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে আইক্যান এর এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলা ডোমেইন নাম এবং ইউনিকোডের যুক্তাক্ষর লেখা সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়ার বিষয়ে মন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেছে আইক্যান

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ইউনিকোডে বাংলা ভাষার জাতীয় স্ট্যান্ডার্ড মানার বিষয়ে আন্তর্জাতিক ডোমেইন ব্যবস্থাপনা নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইক্যান-এর পূর্ণ সমর্থন পেয়েছে বাংলাদেশ।

ইউনিকোডে যুক্তাক্ষর সমস্যার সমাধান হতে চলেছে 1

জানা গেছে, ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বারের সঙ্গে বুধবার স্পেনের বার্সেলোনায় মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে আইক্যান এর এক বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে বাংলা ডোমেইন নাম এবং ইউনিকোডের যুক্তাক্ষর লেখা সমস্যা সমাধানে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়ার বিষয়ে মন্ত্রীকে আশ্বস্ত করেছে আইক্যান।

যে কারণে ইন্টারনেট ডোমেইনে যে সংকটটি ছিল তা দূর হওয়ার পথে বিরাট প্রতিবন্ধকতা দূর হবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে বলে জানানো হয়েছে মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে।

বৈঠকে ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী আইক্যান কর্তৃপক্ষের কাছে ইউনিকোডে বাংলা ভাষার সমস্যা তুলে ধরে বলেছেন, বাংলা ভাষার মর্যাদা প্রতিষ্ঠার সংগ্রামে বাংলাদেশীরা বুকের রক্ত দিয়েছে। বাংলা ভাষার চর্চা এবং বিকাশেও বাংলাদেশের অবদানই সবথেকে বেশি। কিন্তু দুঃখজনক হলেও সত্য ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম বাংলা লিপি উন্নয়নের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের মতামতকে অনেক ক্ষেত্রেই গৌণভাবেই দেখেছে। যে কারণে প্রযুক্তিগত ক্ষেত্রে অক্ষর ব্যবহারে আমরা সমস্যার সম্মুখীন হচ্ছি বারং বার।

‘অনেক ক্ষেত্রে বাংলা ভাষাকে দেবনাগরীর মতো করেই দেখা হয়েছে। বাংলা যে স্বতন্ত্র ভাষা ও তার লিপির ব্যবহারও যে স্বতন্ত্র সেটি মনে রাখতে হবে। বাংলাদেশের ভাষাবিজ্ঞানীসহ সাধারণ ব্যবহারকারীদের অভিজ্ঞতা এবং মতামতকে বাংলা ইউনিকোড লিপি উন্নয়নে অবশ্যই বিবেচনায় রাখতে হবে।’

তিনি আরও বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার বাংলা ভাষার প্রযুক্তিগত ব্যবহারকে যুগোপযোগী এবং সহজসাধ্য করতে বেশ কিছু কর্মসূচিও হাতে নিয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তিতে বাংলা ভাষার উন্নয়নে সরকার ১৬০ কোটি টাকার প্রকল্পও গ্রহণ করেছে। বাংলা ভাষা চর্চা এবং গবেষণা, বাংলা ভাষার উন্নয়নের কাজ এগিয়ে নেওয়া ও তথ্যপ্রযুক্তিতে এর প্রয়োগ করা পৃথক কোনো এজেন্ডা নয়, এর সঙ্গে আমাদের আত্মারও সম্পর্ক।

মন্ত্রী বাংলা ভাষাকে তথ্যপ্রযুক্তির সঙ্গে সম্পৃক্ত করার বিষয়ে তার দীর্ঘ অভিজ্ঞতা তুলে ধরে আরও বলেছেন, বাংলা ভাষায় যখন ইউনিকোড কনসোর্টিয়াম হয়, তখন বাংলাদেশ হতে কোনো মতামত না নেওয়ায় বাংলা ইউনিকোডে ত্রুটি রয়েই গেছে। বাংলা ভাষায় অস্তিত্বই নেই এমন অনেক অক্ষর ইউনিকোডে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

বৈঠকে আইক্যান প্রেসিডেন্ট ও সিইও গোরান মারবাই আইক্যান প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব দিয়েছেন। আইক্যান চিফ টেকনিক্যাল অফিসার ডেভিড কনার্ডসহ শীর্ষ কর্মকর্তারা এই সময় উপস্থিত ছিলেন।

Loading...