The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঝুঁকি এড়াতে করণীয়

গত দু'বছরের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, রান্না ঘরেই সিলিন্ডার বিস্ফোরণের সংখ্যা প্রায় দেড় হাজারের মতো

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ সাম্প্রতিক সময় সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঘটনা যেনো মাত্রাতিরিক্ত আকারে বেড়েছে। আজ জেনে নিন সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঝুঁকি এড়াতে করণীয় বিষয়গুলো।

সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঝুঁকি এড়াতে করণীয় 1

সাম্প্রতিক সময় একের পর এক ঘটছে সিলিন্ডার বিস্ফোরণ। এতে করে ঘটছে হতাহতের ঘটনাও। রাজধানী ঢাকা হতে শুরু করে প্রত্যন্ত অঞ্চল, রান্নাঘর হতে শুরু করে পরিবহন সর্বত্রই ঝুঁকিতে এর ব্যবহারকারীরা। ঝুঁকি হতে বাঁচতে নিজে সচেতন হওয়ার পাশাপাশি সরকারি তদারকি বাড়ানোর তাগিদ দিয়েছে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলো।

শহরে পাইপ লাইনে গ্যাস সংকট ও গ্রামে কাঠের বিকল্প হিসেবে জনপ্রিয়তা পেয়েছে এই সিলিন্ডারজাত জ্বালানি। শুধু রান্না ঘরেই নয় তেলের বিকল্প হিসেবে পরিবহনেও ব্যবহৃত হচ্ছে এইসব সিলিন্ডারের গ্যাস। তবে মাঝে মধ্যেই ঘটছে বিস্ফোরণের ঘটনা। হতাহত হচ্ছে অনেক মানুষ।

গত দু’বছরের পরিসংখ্যানে দেখা যায়, রান্না ঘরেই সিলিন্ডার বিস্ফোরণের সংখ্যা প্রায় দেড় হাজারের মতো। অপরদিকে পরিবহনে বিস্ফোরণের সংখ্যা প্রায় ৭০টি। এতে আহত নিহত হয়েছেন প্রায় সাড়ে ৩শ’ মানুষ।

সংশ্লিষ্টরা বলেছেন, সিলিন্ডার বিস্ফোরণের মূল কারণ নিহিত রয়েছে ব্যবহারকারীর খামখেয়ালিপনায়। এই সমস্যা হতে বেরিয়ে আসতে হলে জনগণকে যেমন সচেতন হতে হবে, ঠিক তেমনি সরকারের তরফ থেকেও দরকার পর্যাপ্ত মনিটরিং।

সিলিন্ডার বিস্ফোরণের ঝুঁকি এড়াতে করণীয় 2

প্রতিদিন গ্যাস ব্যবহার করার সময় নীচের বিষয়গুলির উপর নজর রাখুন:

# গ্যাস সিলিন্ডার সোজা করে সঠিকভাবে রাখা খুব জরুরি একটি বিষয়। উঁচু-নিচু জায়গায় না রাখাই ভালো। তাতে করে পড়ে যাওয়ার যেমন সম্ভাবনা থাকে, ঠিক তেমনই অন্যান্য দুর্ঘটনাও ঘটে যেতে পারে যে কোনো সময়। গ্যাস সিলিন্ডার কখনওই ফেলা বা ঘষা-টানা করা যাবে না।

# রান্নাঘরে গ্যাস সিলিন্ডার ব্যবহার করলে যেনো বাতাস চলাচলের যথেষ্ট পরিমাণে ব্যবস্থা থাকে সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। গ্যাস ব্যবহার করার সময় জানালা অবশ্যই খুলে রাখুন। গ্যাসের পাশে দাহ্য জিনিসপত্র একেবারেই রাখবেন না। প্লাস্টিকের জিনিসপত্রও গ্যাস থেকে দূরে রাখতে হবে।

# গ্যাসের পাইপ সময় সময় পালটানো উচিৎ। জোড়াতালি দিয়ে ব্যবহার করা যাবে না। এতে করে খামাখা প্রাণের ঝুঁকি বাড়বে। পাইপ কেটে গেলে সঙ্গে সঙ্গে সেটি বদলে ফেলুন।

# গ্যাস বদল করার সময় রেগুলেটরটি লাগানোর সময় ঠিকভাবে লাগানো হয়েছে কিনা ভালো করে দেখে নিন। নয়তো বিপদের আশঙ্কা সৃষ্টি হতে পারে যে কোনো সময়।

# বর্তমানে দেখা যায় যে, অনেকের বাড়িতেই একটি বাড়তি গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডার রাখা থাকে। একটি শেষ হলেই যাতে অন্যটি ব্যবহার করা যায় তাই এমনটি করা হয়। অতিরিক্ত রাখা গ্যাস ভর্তি সিলিন্ডার কখনই ঘরের মধ্যে রাখা উচিত নয়। বাড়তি সিলিন্ডারটি খোলামেলা জায়গায় রাখুন, যেখানে ছায়া আছে এমন জায়গায়। গ্যাস সিলিন্ডার হতে তাপ দূরে রাখতে হবে।

# দেখা যায় অনেকেই বাড়িতে বড় গ্যাস হতে ছোটো গ্যাস ভর্তি করেন। এমনটা বাড়িতে করা কোনোভাবেই উচিত নয়। এতে ভয়াবহ দুর্ঘটনা ঘটে যেতে পারে যে কোনো সময়। কোনো মতেই এমন কাজ করা যাবে না।

# রান্নার কাজ শেষ হলে গ্যাসের চুলা ভালো করে বন্ধ করুন।

# চুলা জ্বালানোর সময় অবশ্যই গ্যাস লিক রয়েছে কি না সেটি ভালো মতো দেখে নিয়ে তবেই চুলা জ্বালান।

Loading...