The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

ইরানী তেল ট্যাঙ্কার আটক: ইরান হুঁশিয়ারি দিলো ব্রিটেনকে কোনো ছাড় না দেওয়ার

ব্রিটেনে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত হামিদ বায়েদিনেজাদ বলেছেন, ইরানি জাহাজ কোনো আইন বা প্রথা ভঙ্গ করেনি তবে ব্রিটেন দস্যুতার মাধ্যমে সেটি করেছে

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ জাবাল আল তারিক বা জিব্রাল্টার উপকূলে জব্দ ইরানের তেল ট্যাংকার ছেড়ে দিতে ব্রিটেনের শর্ত দেওয়ার পরও নিজেদের অবস্থানে অটল রয়েছে ইরান। বরং ব্রিটেনকে কোনো ছাড় না দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছে ইরান।

ইরানী তেল ট্যাঙ্কার আটক: ইরান হুঁশিয়ারি দিলো ব্রিটেনকে কোনো ছাড় না দেওয়ার 1

ব্রিটেনে নিযুক্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত হামিদ বায়েদিনেজাদ বলেছেন যে, জিব্রাল্টার প্রণালীতে আটক সুপার ট্যাংকার গ্রেস-ওয়ানকে ছেড়ে না দিলে ব্রিটেনকে উপযুক্ত জবাব দেওয়া হবে। এই বিষয়ে তাদের কোনো ছাড় দেওয়া হবে না বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেন তিনি।

গত শনিবার ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফের সঙ্গে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্টের ফোনালাপের পরপরই এই হুঁশিয়ারি দিলেন তিনি।

টুইটারে দেওয়া ওই বার্তায় হামিদ বায়েদিনেজাদ আরও বলেন, বেআইনিভাবে ট্যাংকার আটক করে ব্রিটেন যে ভুল করেছে সেই ভুলের পুনরাবৃত্তি হওয়া মোটেও উচিত হবে না। ইরানি জাহাজ কোনো আইন বা প্রথা ভঙ্গ করেনি তবে ব্রিটেন দস্যুতার মাধ্যমে সেটি করেছে।

ইতিপূর্বে ইরানের তেল ট্যাংকারটি সিরিয়ায় যাবে না এমন নিশ্চয়তা দিলে তা ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী জেরেমি হান্ট। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোহাম্মদ জাভেদ জারিফের সঙ্গে ফোনালাপে এই শর্তারোপও করেন তিনি।

জারিফের সঙ্গে ফোনালাপের পরই টুইটবার্তায় ব্রিটেনে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূত বলেন, ইরানি তেল ট্যাংকার এবং কার্গোকে মুক্তি দিতে ব্যর্থ হলে ওই ব্রিটিশ পদক্ষেপ বিনা জবাবে পার পাবে না।

শনিবারেই এক টুইটে জেরেমি হান্ট ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে ফোনে ফলপ্রসূ আলোচনা হওয়ার কথা জানিয়েছিলেন। তিনি বলেন, জারিফ তাকে জানিয়েছেন ইরান সমস্যাটির সমাধান চায় এবং মোটেও উত্তেজনা বাড়াতে আগ্রহী নয়।

যদিও জারিফ এও বলেছেন, ইরান যে কোনো পরিস্থিতিতেই হোক না কেনো তেল রপ্তানি চালিয়ে যাবে। এক বিবৃতিতে জারিফ বলেছেন যে, পূর্ব ভূমধ্যসাগরে একটি বৈধ গন্তব্যেই যাচ্ছিল ওই তেল ট্যাংকারটি। এখন ব্রিটেনের উচিত দ্রুত সেটি ছেড়ে দেওয়া।

উল্লেখ্য, গত ৪ জুলাই জাবাল আল-তারিক উপকূল হতে জাহাজটি জব্দ করে ব্রিটিশ নৌবাহিনী। তাদের দাবি হলো, ইউরোপীয় ইউনিয়নের নিষেধাজ্ঞা লঙ্ঘন করে সিরিয়ার একটি পরিশোধনাগারে তেল নিয়ে যাচ্ছিল ওই ট্যাংকারটি।

তবে এই ঘটনায় তেহরানও কড়াভাবে প্রতিবাদ জানিয়েছে। ট্যাংকার জব্দকে দস্যুবৃত্তি আখ্যায়িত করে সেটি ছেড়ে না দিলে পাল্টা ব্যবস্থা নেওয়ারও হুমকি দিয়েছে ইরান।

ইতিমধ্যেই ব্রিটেনের একটি তেল ট্যাংকারকে ধাওয়া করেছে ইরানের কয়েকটি সশস্ত্র গানবোট। জাবাল আল-তারিকের পুলিশ তেলবাহী ওই সুপার ট্যাংকারটির ক্যাপ্টেন এবং প্রধান কর্মকর্তাকে গ্রেফতার করেছিল। শুক্রবার দিনের প্রথমভাগে তারা ওই ট্যাংকারটির আরও ২ জনকে আটকের কথা জানালেও কয়েক ঘণ্টা পর ওই ৪ জনকেই ছেড়ে দেয়।

তুমি এটাও পছন্দ করতে পারো
Loading...