The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে রং ফরসাকারী ক্রিমে

সুন্দর্যতার পেছনে ছুটতে ছুটতে আমরা সকলেই প্রায় একটি প্রশ্নের সম্মুখীন হয়ে থাকি তা হল কিভাবে গায়ের রং ফর্সা করা যায়

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ নিজেকে সুন্দর আলোকিত করে রাখতে চাই আমরা সকলেই। সকলেই চাই নিজের রং ও রূপকে মাধুর্যতার দ্বারা সকলের কাছে প্রকাশ করতে। তাই আমরা অনেকেই ব্যবহার করি রং ফরসাকারী ক্রিম। কিন্তু এই ক্রিমে রয়েছে মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি।

মারাত্মক স্বাস্থ্যঝুঁকি রয়েছে রং ফরসাকারী ক্রিমে 1

সুন্দর্যতার পেছনে ছুটতে ছুটতে আমরা সকলেই প্রায় একটি প্রশ্নের সম্মুখীন হয়ে থাকি তা হল কিভাবে গায়ের রং ফর্সা করা যায়। মানুষের ফর্সা হওয়ার আকাঙ্ক্ষা কে পূর্ণ করার জন্য বাজারে আসছে নতুন ক্রিম, বিক্রি হচ্ছে হাজারো প্রসাধনী এবং চলছে লাখো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান। মানুষেরই ফর্সা হওয়ার আকাঙ্ক্ষা কে পুঁজি করে চলছে ছোট-বড় অনেক উদ্যোক্তা চলছে ফর্সা হওয়ার প্রতিযোগিতার ক্রিম। মানুষ জেনে ও না জেনে ব্যবহার করছে এই সকল বাজারে পাওয়া পন্য সমূহ যার পার্শ্ব প্রতিক্রিয়া সম্পর্কে কোন প্রকার ধারনাই নেই অনেকের। আমাদের ব্যবহৃত এই রং ফর্সাকারী ক্রিম হতে পারে আমাদের জন্য শারীরিক ঝুঁকির কারণ । এই ক্রিম দ্বারা হতে পারে বড় বড় অসুখ ঘটতে পারে প্রাণহানিও। ঠিক এইরকম একটি সতর্কবার্তা দিয়ে মানুষকে আজ্ঞাত করেছে যুক্তরাজ্য। সম্প্রতি যুক্তরাজ্যে বাণিজ্য মান নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তাদের হাতে এই ধরনের কিছু পণ্য জব্দ হয় যেখানে যা ব্যবহার করলে মানুষের শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে।

কিছু রঙ ফর্সাকারী ক্রিম খুবই মারাত্মক ক্ষতি বয়ে আনতে পারে আমাদের শরীরে। যুক্তরাজ্যের এক প্রতিবেদনে জানা যায় রং ফর্সাকারী ক্রিমের থাকা উপাদানসমূহ আমাদের ত্বকের উপরিভাগের স্তর কে ধ্বংস করে দেয়ার পাশাপাশি ত্বকের ক্যান্সারের ঝুঁকি সৃষ্টি করতে পারে। যা আমাদের সকলের জন্যই মারাত্মক একটি সতর্কবার্তা। সম্প্রতি জানাজায় অনেক পণ্যের মধ্যে ক্ষতিকারক রাসায়নিক উপাদান হাইড্রোকুইনোন থাকে যা খুবই মারাত্মক আকারে আমাদের শরীর ও ত্বককে বিপর্যস্ত করতে পারে। এছাড়া অনেক ক্রিমের মধ্যে মার্কারি ও পারদ পাওয়া গেছে যা নির্ধারণ ও চিহ্নিত করে সতর্কবার্তা প্রদান করেছেন এলজি। তারা আরো বলেন এসব পন্যকে খুচরা ব্যবসায় অনলাইনে বাজারে কিছু দোকানিরা ও কিছু অসাধু ব্যবসায়ীরা বিক্রি করছেন যার ফলে স্বাস্থ্যঝুঁকিতে পড়ছে সারা বিশ্ব। এ সকল পণ্য বাজারজাতকরণের সময় তারা পণ্যের সঠিক মাত্রা কিছুতেই উল্লেখ করতে চায় না যার কারণে ব্যবহারকারীরা ও ভোক্তারা স্বাস্থ্যহানি ও সাস্থ ঝুঁকিতে ভুগছেন।

হাইড্রোকুইনন এমন একটি রাসায়নিক যা আমাদের ত্বকের রং পরিবর্তনের উপাদান হিসেবে কাজ করে। হাইড্রোকুইনন আমাদের শরীরের জন্য খুবই ভয়াবহ এটি মানুষের ত্বকের উপরের স্তর কে অপসারণ করে দিতে পারে যার ফলে ত্বকের ক্যান্সার হওয়ার সম্ভাবনা বৃদ্ধি পায়। হাইড্রোকুইনোন এর প্রভাবে ক্যান্সারে পাশাপাশি যকৃৎ এবং কিডনির মারাত্মক ক্ষতি হয়ে থাকে। এছাড়া ফর্সাকারী ক্রিমের মধ্যে পাওয়া পারদ আমাদের শরীরে প্রাণঘাতি একটি পদার্থ হিসেবে কাজ করতে পারে। রং ফর্সাকারী ক্রিমে ব্যবহার হওয়া এরূপ উপাদান সমূহ মানবজাতির জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর এবং এর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার কারণে এটিকে যুক্তরাজ্য ও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।

নিষিদ্ধ ক্রিম সমূহ বা পণ্যসমূহ আমাদের জন্য খুবই বিপদজনক এবং এগুলো ব্যবহারের ফলে আমাদের স্বাস্থ্যের মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে পাশাপাশি সারা জীবনের জন্য এটি আমাদের ক্ষতির কারণ হতে পারে। এসব পণ্য আমাদের মৃত্যুর কারণ পর্যন্ত হতে পারে এবং মৃত্যু পর্যন্ত ডেকে আনতে পারে তাই যেকোনো মূল্যে এ সকল পণ্য কে এড়িয়ে চলা উচিত বলে মত প্রকাশ করেন এলজি নিরাপত্তা কমিউনিটি বোর্ডের চেয়ারম্যান সিমন ব্ল্যাকবার্ন । এসকল পন্য ক্রয় করার আগে এর মধ্যে থাকা সকল উপাদান গুলো কি তা সব সময় ভোক্তাদের খতিয়ে দেখা উচিত যার ফলে তারা তাদের পন্যকে সঠিকভাবে বাছাই করতে পারে। রং ফর্সাকারী ক্রিম ব্যবহারের সময় অবশ্যই আমাদের সকলকে পণ্যের উপাদানসমূহ সম্পর্কে জানতে হবে এবং যদি কোন ধরনের উপাদান উল্লেখ না থাকে তাহলে সেটি ব্যবহার করা কোন ক্রমেই উচিত নয়।

Loading...