The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

পরপর দুইবার লটারি জিতে ৬৮ কোটি টাকার মালিক এক ব্যক্তি!

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যের রকউডের বাসিন্দা মার্ক ক্লার্কের সৌভাগ্যের পাল্লা অন্যান্যদের তুলনায় অনেক বেশি

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ জীবনে বহুবার লটারি ধরে একবারও কোনো পুরস্কার তার ভাগ্যে জুটেনি, এমন মানুষের সংখ্যাই অনেক। তবে এবার এক ব্যক্তি পরপর দুইবার লটারি জিতে ৬৮ কোটি টাকার মালিক হলেন!

পরপর দুইবার লটারি জিতে ৬৮ কোটি টাকার মালিক এক ব্যক্তি! 1

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মিশিগান অঙ্গরাজ্যের রকউডের বাসিন্দা মার্ক ক্লার্কের সৌভাগ্যের পাল্লা অন্যান্যদের তুলনায় অনেক বেশি। তাই তিনি একবার নন, পরপর দুবার লটারি জিতলেন। তাও আবার সাধারণ লটারিও নয়। দুইবার লটারি জিতে তিনি বর্তমানে ৬৭ কোটি ৮৬ লাখ টাকার মালিক হয়েছেন!

সংবাদমাধ্যম সিএনএন জানিয়েছে, ইনস্ট্যান্ট গেম লটারি জেতেন ৫০ বছর বয়সী ব্যক্তি মার্ক ক্লার্ক। দুইবার চার মিলিয়ন করে মোট ৮ মিলিয়ন ডলার (বাংলাদেশি মুদ্রায় ৬৮ কোটি টাকা) জেতেন ওই মার্কিন নাগরিক।

সিএনএনকে মার্ক ক্লার্ক জানিয়েছেন, ঘটনাটি ৩ বছর পূর্বের ঘটনা। ওই সময় তিনি মিশিগানের হাডসনের একটি গ্যাস স্টেশনে জ্বালানি সরবরাহের কাজ করতেন। তখন ইনস্ট্যান্ট গেম লটারির একটি টিকিট কেনেন। লটারি পরিচালনা কর্তৃপক্ষ তাকে ক্লার্ক নামতে খুঁজতে বললে তিনিও তাই করেন।

ক্লার্ক বলেন, আমি টিকিটের বার কোডটি একটি কয়েন দিয়ে ঘঁষা দিই ও ওই কয়েনটি ১০ বছর আগে বাবা আমাকে দিয়েছিলেন। ওই সময় শারীরিক জটিলতায় ভুগে মারা যাওয়া আমার বাবার জন্য আমি কিছুই করতে পারিনি। এই কয়েনই আমাকে লটারি জিতিয়ে দেয়।

ওই ঘটনার তিন বছর পর গতমাসেও একই ভাগ্য এসে ধরা দিলো ক্লার্কের কপালে। ক্লার্ক জানান, গত মাসে আবার একটি ইনস্ট্যান্ট গেম লটারির টিকিট কেনেন ও এইবারও চার মিলিয়ন ডলার পেয়ে যান তিনি।

ক্লার্ক বলেন, আপনি হয়তো কখনোই ভাববেন না যে, এক লাফে আপনি মিলিয়নিয়ার হয়ে গেছেন। আবার এটাও কল্পনা করতে পারবেন না যে, একই ঘটনার পূনরাবৃত্তিও ঘটবে। আমার বেলাতে ঠিক তাই ঘটেছে। দ্বিতীয়বার লটারি জিতে আমার অনুভূতি প্রকাশ করার ভাষা আমি হারিয়ে ফেলেছি।

প্রথম লটারি জেতার পর হতেই গ্যাস স্টেশনে জ্বালানি সরবরাহের কাজটি ছেড়ে দেন ক্লার্ক।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...