The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

১৫ বছর বয়সী এক কিশোরী ছিনতাইকারীকে বাইক থেকে টেনে নামালো

কিশোরীর হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নেওয়ার পর ওই বাইকটি ধাওয়া করে ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন এই কিশোরী

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ রাস্তা দিয়ে যাওয়ার সময় মোটরসাইকেলে আসা দুই ছিনতাইকারীর কবলে পড়েন ১৫ বছর বয়সী এক কিশোরী। তিনি ছিনতাইকারীকে বাইক থেকে টেনে নামালেন!

১৫ বছর বয়সী এক কিশোরী ছিনতাইকারীকে বাইক থেকে টেনে নামালো 1

কিশোরীর হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নেওয়ার পর ওই বাইকটি ধাওয়া করে ছিনতাইকারীকে ধরে ফেলেন এই কিশোরী। গত ২ সেপ্টেম্বর ঘটনাটি ঘটেছে ভারতের পাঞ্জাবের জালন্ধরে। গোটা ঘটনাই ধরা পড়েছে সেখানকার সিসিটিভি ক্যামেরায়। যদিও এই ধস্তাধস্তির সময় ছিনতাইকারীদের অস্ত্রের আঘাতও লেগেছে ওই কিশোরীর।

খবরে বলা হয়েছে যে, ১৫ বছর বয়সী ওই কিশোরীর নাম কুসুম কুমারী। ওইদিন টিউশনী পড়ে বাড়ি ফিরছিলো সে। তখন তার থেকে মোবাইল কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করে বাইকে করে আসা দুই ছিনতাইকারী।

ভিডিওতে দেখা যাচ্ছে যে, কুসুমের হাত থেকে মোবাইল কেড়ে নেয় এক দুষ্কৃতীকারী। তখনই তাকে বাধা দেয় ওই কিশোরী। বাইকের পিছন চেপে ধরে। এক ছিনতাইকারী নেমে তাকে আঘাতও করে বসে। ওই অবস্থাতেও ছিনতাইকারীকে ছেড়ে দেননি কুসুম। সর্বশক্তি দিয়ে তাকে আটকে রাখার চেষ্টাও করে সে। এমন অবস্থা হওয়ার পর স্থানীয় কয়েক জন ছুটে আসেন। ওই ছিনতাইকারী তখন ধরা পড়ে যায়। অবশ্য তার সঙ্গী বাইক নিয়ে পালিয়ে গেছে। তারপর ধৃত অপরাধীকে পুলিশের হাতে তুলে দেয় স্থানীয়রা।

কুসুম নিজের ফোন ফেরত পেয়েছে। তবে হাতে আঘাত পাওয়ায় সে বর্তমানে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। ঘটনা নিয়ে সেখানকার স্টেশন হাউস অফিসার যতীন্দ্র শর্মা বলেছেন যে, ‘অভিযুক্ত ছিনতাইকারীর নাম অবিনাশ কুমার। তার বয়স ২২ বছরের মতো। তাকে পুলিশ গ্রেফতার করেছে। ছিনতাইকারীর পলাতক সহযোগীর খোঁজ চালানো হচ্ছে। তাদের বিরুদ্ধে ভারতীয় দণ্ডবিধির বিভিন্ন ধারায় মামলা দায়ের করা হয়।’

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...