The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

গভীর ঘুমের জন্য “মাথা ম্যাসাজ” পদ্ধতি জেনে নিন

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ ঘুমের সমস্যা রয়েছে অনেকের। রাতে ঘুম না হওয়ায় শরীর খারাপ হতে থাকে। তাই অনেকেই ঘুমের জন্য নানা পদ্ধতি অবলম্বন করেন। আজ গভীর ঘুমের জন্য “মাথা ম্যাসাজ” পদ্ধতি জেনে নিন।

গভীর ঘুমের জন্য “মাথা ম্যাসাজ” পদ্ধতি জেনে নিন 1

অনেকেই সারারাত এপাশ-ওপাশ করেও কোনোভাবেই ঘুম আসতে চায় না। সারাদিনের কর্ম ব্যস্ততা, দুশ্চিন্তা, অস্থিরতা ঘুমাতে গেলেও যেনো তাকে পিছু ছাড়ে না। যারা এমন সমস্যায় ভুগছেন ও ভালো ঘুম হচ্ছে না তারা রাতে ঘুমাতে যাওয়ার আগে মাথা ম্যাসাজ করে ঘুমাতে পারেন। এক্ষেত্রে অন্য কাওকে দিয়েও মাথা ম্যাসাজ করিয়ে নিতে পারেন আবার নিজের মাথা নিজেও ম্যাসাজ করে নিতে পারেন খুব সহজেই। আসুন জেনে নেওয়া যাক ভালো ঘুমের জন্য মাথা ম্যাসাজ করার সহজ কয়েকটি ধাপ।

ম্যাসাজের প্রথম ধাপ

প্রথমেই মাথা ম্যাসাজের জন্য আপনাকে পছন্দসই তেল বেছে নিতে হবে। এক্ষেত্রে নারিকেল তেল, অলিভ ওয়েল, বাদাম তেল বা এই তিন ধরণের তেলের মিশ্রণ আপনাকে বেছে নিতে হবে। এই তেলগুলো চুলকে রাখবে উজ্জ্বল ও মাথার ত্বককে শিথিল করে মানসিক প্রশান্তি দিতে সহায়তা করবে।

ম্যাসাজের দ্বিতীয় ধাপ

পছন্দ মতো তেল নিয়ে একটি পাত্রে গরম করে নিতে হবে। খুব বেশি গরমও হবে না আবার একেবারে কম গরমও হবে না, যাতে সইতে পারেন এমন।

ম্যাসাজের তৃতীয় ধাপ

এখন কুসুম গরম তেল আঙ্গুলের মাথায় লাগিয়ে পুরো মাথার তালুতে ভালো করে ম্যাসাজ করে নিতে হবে। আঙ্গুল ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে একবার ঘড়ির কাঁটার দিকে, আরেকবার ঘড়ির কাটার ঠিক বিপরীত দিক দিয়ে ম্যাসাজ করতে থাকুন। এভাবে ৭ হতে ১০ মিনিট ক্রমাগতভাবে পুরো মাথা ম্যাসাজ করে নিতে হবে।

ম্যাসাজের চতুর্থ ধাপ

পুরো চুলে তেল ম্যাসাজের পর ১ ঘন্টা অপেক্ষা করতে হবে এবং চুল ভালো করে শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলতে হবে। যদি শ্যাম্পু করতে না চান তাহলে ইচ্ছে করলে সারারাত তেল মাথায় রেখেও আপনি ঘুমিয়ে পড়তে পারেন।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর

অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...