The Dhaka Times
তরুণ প্রজন্মকে এগিয়ে রাখার প্রত্যয়ে, বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় সামাজিক ম্যাগাজিন।

মানবদেহের কয়েকটি মজার অজানা তথ্য জেনে নিন!

দি ঢাকা টাইমস্ ডেস্ক ॥ আমরা নিজেদের দেহ সম্পর্কে পুরোপুরি জানি না। নিজের শরীর সম্পর্কে হয়তো ৭০% মানুষই জানেন না। অজানাই রয়ে গেছে অনেক কিছুই। মানবদেহের কয়েকটি মজার অজানা তথ্য জেনে নিন!

মানবদেহের কয়েকটি মজার অজানা তথ্য জেনে নিন! 1

আমআমাদের দেহ কীভাবে কাজ করে ও এতে কী ধরণের পরিবর্তন এবং প্রক্রিয়াগুলো ঘটছে। প্রকৃতপক্ষে মানবদেহে জটিল ও রহস্যময় প্রক্রিয়া বিদ্যমান। যা মাঝেমধ্যেই সবচেয়ে দক্ষ বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক এবং বিজ্ঞানীদেরও বিভ্রান্ত করে ফেলেছে।

আমাদের শরীরের বিষয়ে কয়েকটি চমকপ্রদ তথ্য রয়েছে যা জানলে আপনি মুগ্ধ হবেন এবং বিস্মিত হবেন।

# একটি চুল ঝুলন্ত আপেলের ওজনও ধরে রাখতে পারে। অবশ্য বিজ্ঞানীরা আপেলের মাত্রা নির্দিষ্ট করেননি।

# জিভ দেখে অনেক কিছুই বুঝা যায়। জিভের নমুনা একেবারেই অনন্য। তাই কাওকে জিভ দেখানোর সময় এটি অবশ্য মনে রাখবেন।

# যে কোনও ব্যক্তির মুখে বিদ্যমান ব্যাকটিরিয়ার সংখ্যা পৃথিবীর মোট লোক সংখ্যার সমান কিংবা তারও অনেক বেশি!

# মস্তিস্কের স্পন্দনের গতি হলো ঘন্টায় প্রায় ৪০০ কিলোমিটার।

# কোনো ব্যক্তির নখগুলো নরম এবং ভঙ্গুর ও চাঁদহীন হলে তা অতিরিক্ত থাইরয়েডের নির্দেশও করতে পারে।

# আমাদের ধারনা চার ধরণের রক্ত রয়েছে মানব দেহে। আসলে রক্তের ধরন হলো ২৯টি। তাদের মধ্যে বিরলতম হলো বোম্বাই সাব টাইপ।

# মাত্র একদিনেই আমাদের রক্ত ​​১৯ ৩১২ কিলোমিটার দূরত্ব ‘দৌড়ায়’!

# মানবদেহের সকল স্নায়ুর মোট দৈর্ঘ্যই হলো ৪৫ কিলোমিটার।

# একজন মানুষ প্রতিদিন প্রায় ২০০০০ বার শ্বাস নেন।

# বিশ্বের প্রায় সকল লোকের চোখের পাতাতে ‘ডেমোডেক্স’ নামে একটি বিশেষ ধরনের উপাদান থাকে।

# আমাদের কান প্রায় অবিশ্বাস্য গতিতে জীবনব্যাপী বাড়তেই থাকে। কান প্রতি বছর এক মিলিমিটারের এক চতুর্থাংশ পরিমাণ মতো বৃদ্ধি পায়।

# মানব হৃদপিণ্ড বছরে ৩৫ মিলিয়ন বার বিট দেয়।

# মানুষের চোখ অন্তত ১ কোটি পর্যন্ত নানা রংয়ের মধ্যে পার্থক্য করতে পারে। তবে আমাদের মস্তিষ্ক এর সবগুলোই মনে রাখতে পারে না।

করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে করণীয়

# সব সময় ঘরে থাকি।
# জরুরি প্রয়োজনে বাইরে বের হলে নিয়মগুলো মানি, মাস্ক ব্যবহার করি।
# তিন লেয়ারের সার্জিক্যাল মাস্ক ইচ্ছে করলে ধুয়েও ব্যবহার করতে পারি।
# বাইরে থেকে ঘরে ফেরার পর পোশাক ধুয়ে ফেলি। কিংবা না ঝেড়ে ঝুলিয়ে রাখি অন্তত চার ঘণ্টা।
# বাইরে থেকে এসেই আগে ভালো করে (অন্তত ২০ সেকেণ্ড ধরে) হাত সাবান বা লিকুইড দিয়ে ধুয়ে ফেলি।
# প্লাস্টিকের তৈরি পিপিই বা চোখ মুখ, মাথা একবার ব্যবহারের পর অবশ্যই ডিটারজেন্ট দিয়ে ভালো করে ধুয়ে শুকিয়ে ব্যবহার করা যেতে পারে।
# কাপড়ের তৈরি পিপিই বা বর্ণিত নিয়মে পরিষ্কার করে পরি।
# চুল সম্পূর্ণ ঢাকে এমন মাথার ক্যাপ ব্যবহার করি।
# হাঁচি কাশি যাদের রয়েছে সরকার হতে প্রচারিত সব নিয়ম মেনে চলি। এছাড়াও খাওয়ার জিনিস, তালা চাবি, সুইচ ধরা, মাউস, রিমোট কন্ট্রোল, মোবাই, ঘড়ি, কম্পিউটার ডেক্স, টিভি ইত্যাদি ধরা ও বাথরুম ব্যবহারের আগে ও পরে নির্দেশিত মতে হাত ধুয়ে নিন। যাদের হাত শুকনো থাকে তারা হাত ধোয়ার পর Moisture ব্যবহার করি। সাবান বা হ্যান্ড লিকুইড ব্যবহার করা যেতে পারে। কেনোনা শুকনো হাতের Crackle (ফাটা অংশ) এর ফাঁকে এই ভাইরাসটি থেকে যেতে পারে। অতি ক্ষারযুক্ত সাবান বা ডিটারজেন্ট ব্যবহার থেকে বিরত থাকাই ভালো।

Loading...